জনপ্রিয় এই ধারাবাহিকের জেরক্স কপি মিঠাই! জি বাংলার বিরূদ্ধে গোপন তথ্য ফাঁস, লজ্জিত মিঠাই ভক্তরা

নিজস্ব প্রতিবেদন: বিগত প্রায় বছরখানেকের বেশি সময় ধরে বঙ্গসেরার ধারাবাহিকের আসন দখল করে রেখেছে জি বাংলার মিঠাই। এই ধারাবাহিকের বিপুল ফ্যানবেস এর কাছে অন্য কোন ধারাবাহিক পাত্তা পাবে কিনা তাতে সন্দেহ রয়েছে। যেখানে আজকাল বিভিন্ন চ্যানেলের ধারাবাহিক গুলিতেই পরকীয়া সম্পর্ক, একসাথে দুই থেকে তিনটি বিয়ে বা পারিবারিক কুটকাচালি দেখানো হয় সেখানে এই ধারাবাহিক কিন্তু অনেকটাই ব্যতিক্রম।

এই ধারাবাহিকে মিঠাই আর সিদ্ধার্থের রসায়ন বেশ পছন্দ করেছেন দর্শকেরা। প্রথমদিকে সিদ্ধার্থ অর্থাৎ উচ্ছেবাবু মিঠাইকে পছন্দ না করলেও ধীরে ধীরে কিন্তু সময়ের সাথে তার মন গলে যায়। বর্তমানে একে অপরকে চোখে হারান তারা। তবে আচমকাই ধারাবাহিকের গল্পের ট্র্যাকের পরিবর্তনের কারণে কিন্তু বিগত কয়েকদিন ধরেই মিঠাইয়ের টিআরপি ক্রমশ নিম্নমুখী হচ্ছে।

তাই শোনা যাচ্ছিল এই ধারাবাহিক নাকি খুব শীঘ্রই বন্ধ হয়ে যেতে পারে। তবে এই সবকিছুর মাঝেই এবারে মিঠাই ভক্তদের জন্য আরও দুঃসংবাদ; কারণ জনৈক জলসা ভক্ত সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়াতে বেশ কিছু পয়েন্ট উল্লেখ করে দেখিয়ে দিয়েছেন মিঠাই নাকি স্টার জলসার জনপ্রিয় খড়কুটো ধারাবাহিকের কপি! যদিও এই পয়েন্টগুলি একেবারেই মানতে নারাজ মিঠাই ভক্তরা।

তাদের মত অনুসারে ট্যাগলাইন থেকে শুরু করে, সম্পূর্ণ গল্পের কনসেপ্ট নাকি খড়কুটো ধারাবাহিক থেকেই চুরি করে নিয়েছে মিঠাই। জনৈক ওই নেটিজেনের কথায়,খড়কুটোতে ট্যাগ লাইন ছিল ‘সুখে-দুখে একসাথে’, আর মিঠাইয়ের ট্যাগলাইন ‘সুখে দুখে মিষ্টি মুখে’! শুধু তাই নয় যৌথ পরিবারের যে কনসেপ্ট, পরিবারের প্রত্যেক সদস্যের মধ্যে যে রসায়ন, সেটাও নাকি খরকুটোতেই প্রথম দেখা গিয়েছিল। শুধুমাত্র তাই নয়, মিঠাই আর খড়কুটো ধারাবাহিকের খলনায়িকার চরিত্রের ধরনে পর্যন্ত মিল খুঁজে পেয়েছেন একাংশ। তাদের দাবি,মিঠাইতে খলনায়িকা তোর্সাকেও অনেকটা খড়কুটোর তিন্নির স্টাইলে তৈরি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত এর আগেও বেশ কয়েকটি অন্য ধারাবাহিককে কপি করার অভিযোগ উঠেছিল মিঠাইয়ের বিরুদ্ধে। বঙ্গসেরা ধারাবাহিকের আসনদখল করে থাকলেও এই ধারাবাহিক যে ইউনিক সেটা কিন্তু একেবারেই মানতে নারাজ নেটিজেনদের একাংশ। যৌথ পরিবারের কনসেপ্ট টেলিভিশনের পর্দায় প্রথমবার খড়কুটো ধারাবাহিককেই স্পষ্টভাবে তুলে ধরা হয়েছিল।

তাই অনেকেই মনে করছেন মিঠাই এর কনসেপ্ট বা ধারণা সম্পূর্ণরূপে স্টার জলসার তৃণা সাহা আর কৌশিক রায় অভিনীত খড়কুটো থেকেই নেওয়া হয়েছে। যদিও জলসা ভক্তদের এই দাবি মানতে একেবারেই নারাজ মিঠাই ভক্তরা। এই বক্তব্য গুলির বিরুদ্ধেও একাধিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তারা।

মিঠাই ভক্তদের কথায়,খড়কুটো কিছুদিন আগেই বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তার আগে টিআরপির অভাবে ধারাবাহিকটিকে সন্ধ্যের প্রাইম টাইম থেকে দুপুরের স্লটে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। অন্যদিকে,মিঠাই রানীই হল সব সিরিয়ালের সেরা। টানা ৫৬ বার টপার হওয়ার রেকর্ড এই পর্যন্ত আর কারও নেই।

মিঠাইয়ের সাফল্যে হিংসা করেই এসব পোস্ট করা হচ্ছে বলে পাল্টা দিচ্ছেন তারাও। তবে একথা সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করা যায় না যে, টিআরপি কম থাকলে বা বন্ধ হয়ে গেলেও খরকুটো ধারাবাহিকটি কিন্তু দর্শকদের মধ্যে একটা আলাদাই আবেগের সৃষ্টি করেছিল। এমনকি ধারাবাহিকের শেষে তৃণা সাহা অর্থাৎ গুনগুনের চরিত্রের মৃত্যু কিন্তু অনেকেই মেনে নিতে পারেননি।

Back to top button