বিয়েবাড়ি হোক বা পার্টি! কোথাও যাওয়ার আগে লাগান এই ঘরোয়া প্রোডাক্ট, ত্বক হবে ফর্সা ও উজ্জ্বল

নিজস্ব প্রতিবেদন : আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন কিছু অভিনব পদ্ধতির কথা বলব যা বাড়িতে ট্রাই করলে আপনাদের ত্বক একদম কাঁচের মতন চকচকে ফর্সা আর উজ্জ্বল হয়ে উঠবে। যেহেতু ত্বক থেকে সম্পূর্ণ ধুলো-বালি আর দূষিত পদার্থ দূর হয়ে যাবে তাই দেখতেও অনেকটাই সুন্দর লাগবে। আপনারা যারা এই সমস্যা নিয়ে ইতিমধ্যেই চিন্তায় পড়েছেন তারা অবশ্যই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে নিতে পারেন।

ত্বক কাঁচের মতন উজ্জ্বল করার উপায়:

১) আজকের এই পদ্ধতিটি করতে গেলেই প্রথম একটি ছোট পাত্রের মধ্যে এক টেবিল চামচ বেসন নিয়ে নিতে হবে আপনাদের। বেসন কিন্তু একটি ন্যাচারাল ক্লিনজার। যদি সামান্য জলের মধ্যে এটা মিশিয়ে আপনারা স্কিনে হালকা হাতের রাব করেন তাহলে কিন্তু এটা যে কোন ফেসওয়াশ কেই হার মানিয়ে দেবে। অর্থাৎ যদি আপনাদেরও স্কিনে কোন রকমের প্রবলেম থাকে তাহলে কিন্তু ফেসওয়াশ এর পরিবর্তে আপনারা একেবারে নিশ্চিত ভাবে বেসন ব্যবহার করতে পারেন।

এবার এক টেবিল চামচ বেসন যে পাত্রে আপনারা নিয়েছিলেন সেটার মধ্যে মিশিয়ে নিতে হবে হাফ টেবিল চামচ কস্তুরী হলুদ গুঁড়ো, এক টেবিল চামচের সামান্য বেশি পরিমাণ মধু, এক টেবিল চামচ টক দই। এবার আপনাদের সমস্ত উপকরণগুলোকে চামচের সাহায্যে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। চাইলে আপনারা এখানে কিন্তু গোলাপ জল ও ব্যবহার করতে পারেন।

২) এই ফেসপ্যাকটি ব্যবহার করার আগে আপনাদের কিন্তু খুব ভালো করে মুখ ক্লিন করে নিতে হবে। এক্ষেত্রে আপনারা যে কোন ফেসওয়াস বা ক্লিনজার ব্যবহার করতে পারেন। তারপর ভালো করে মুখ ধুয়ে নিয়ে হালকা হাতে ফেসপ্যাকটাকে সম্পূর্ণ মুখে ম্যাসাজ করা শুরু করতে হবে। একবার ক্লকওয়াইজ এবং একবার অ্যান্টি ক্লক ওয়াইজ আপনারা এই মাসাজের কাজ করবেন। আপনাদের কিন্তু মাসাজ করতে কোন অসুবিধা হবে না কারণ এর মধ্যে কোন রকমের স্ক্রাবিং এর উপকরণ নেই।

ভালো করে মাসাজ করার পর একটা ঘন লেয়ার আপনাদেরকে ত্বকের উপরে অ্যাপ্লাই করে নিতে হবে। তবে চোখের একেবারে নিচের অংশটা কিন্তু আপনারা বাদ দিয়ে দেবেন। আসলে এই জায়গার চামড়া অত্যন্ত পাতলা হয়ে থাকে। এখানে বেশিক্ষণ ফেসপ্যাক লাগানো থাকলে কিন্তু জায়গাটা খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়। এবার বেশিক্ষণ এখানে ফেসপ্যাক লাগিয়ে রাখলে কিন্তু রিংকেলসের প্রবলেম দেখা যাবে।

৩) এবার কিছুক্ষণ পর শুকিয়ে গেলে আপনাদের ধীরে ধীরে ফেসপ্যাকটি তোলার ব্যবস্থা করতে হবে। তার জন্য একটি নরম কাপড় বা ভিজে তোয়ালে নিয়ে নিন এবং হালকা হাতে এটাকে উঠাতে থাকুন। দেখবেন কিছুক্ষণের মধ্যেই ফেসপ্যাক সম্পূর্ণ উঠে গেছে এবং আপনাদের ত্বক কতটা বেশি পরিমাণে গ্লো করছে। টানা সাত দিন যদি আপনারা এই রেমিডি ট্রাই করতে পারেন তাহলে ফলাফল কিন্তু হাতেনাতেই বুঝতে পারবেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য কস্তুরী হলুদ গুড়োর বদলে আপনারা রান্নার হলুদ ব্যবহার করতে পারেন। তবে রান্নার হলুদের মধ্যে কিন্তু অনেক সময় কেমিক্যাল থাকে। তাই চেষ্টা করবেন যে কোন কসমেটিকসের দোকান বা অনলাইন অ্যাপ্লিকেশন থেকে কস্তুরী হলুদ গুঁড়ো সংগ্রহ করে নেওয়ার। অত্যন্ত অল্প দামের মধ্যেই কিন্তু আপনারা এটাকে পেয়ে যাবেন।

Back to top button