ছুটির দিনে স্বল্প খরচে ঘুরে আসুন পারমাদনের জঙ্গলে, রইলো বিস্তারিত

নিজস্ব প্রতিবেদন : ভ্রমণপিপাসু মানুষদের জন্য আজকে আমরা নিয়ে এসেছি ভ্রমণের একটি নতুন ঠিকানা। এমন বহু মানুষ রয়েছেন যারা হয়তো সপ্তাহান্তে কিংবা অবসর সময়ে কোথাও হয়তো কাছে পিঠে ভ্রমণের পরিকল্পনা করছেন। ঠিক তাদের জন্যই চেনা ছকের বাইরে বেরিয়ে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন।

আজকে আমরা আপনাদের জন্য যে জায়গাটির খোঁজ নিয়ে আসতে চলেছি সেটি কিন্তু খুব সহজেই আপনাকে আকৃষ্ট করবে যদি আপনি অসাধারণ প্রাকৃতিক পরিবেশের মধ্যে কয়েক দিন কাটিয়ে যেতে চান। এই বর্ষাকালে যখন ইছামতি নদীর জল কানায় কানায় পূর্ণ, ঠিক সেই সময়ে ইছামতীর ধারে পারমাদান জঙ্গলে ইতিহাস সমৃদ্ধ নীলকুঠির পাশে মঙ্গলগঞ্জে আপনারা কাটিয়ে যেতে পারেন কয়েকদিন। নিঃসন্দেহে আপনাদের এই জায়গাটি অত্যন্ত আকৃষ্ট করতে বাধ্য করবে। বিস্তারিত জানতে আমাদের প্রতিবেদনটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়তে পারেন।

কলকাতা থেকে ১১০ কিলোমিটার; বনগাঁ থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত গা ছমছমে ভুতুড়ে পরিবেশের এই জায়গাটি। যদি আপনারা জঙ্গল ভালবেসে থাকেন তাহলে ইছামতি নদীর পাশেই রয়েছে পারমাদান জঙ্গল। দুপুরে খাওয়া দাওয়া করার পর খুব সহজেই আপনারা জঙ্গলের পাশ বরাবর ইছামতি নদীতে নৌকো করে ঘুরে আসতে পারেন যা আপনাদের মন ভালো করে দেবে। এর খুব কাছেই রয়েছে নীলকুঠি কাটা সাহেবের কুঠি। আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না এই কুঠি নিয়ে প্রচলিত রয়েছে বহু পরিমানে ভুতুড়ে গল্প। তবে এই ভৌতিক পরিবেশ এনজয় করার জন্য আপনাদের রাতের বেলা গাইড নিয়ে নীলকুঠি যেতে হবে। এই নীলকুঠিতে ঘুরতে গেলে কিন্তু আপনারা অনেক অজানা ইতিহাস জানতে পারবেন যা আপনাদেরকে মুগ্ধ করে দেবে।

আপনি যদি ভূতে বিশ্বাস নাও করেন এই জায়গাটির গা ছমছমে পরিবেশ এবং অসাধারণ প্রাকৃতিক পরিবেশের সৌন্দর্য আপনাকে কিন্তু এখানে বারবার টেনে নিয়ে আসতে বাধ্য করবে একথা আমরা বলতে পারি।। নববিবাহিতদের জন্য অল্প সময়ে ছুটি কাটাতে এই জায়গাটি কিন্তু একেবারেই আদর্শ। রাতের পরিষ্কার আকাশের নিচে বসে ইছামতি নদীর পাশে জোনাকির মেলা দেখতে দেখতেই কিন্তু কেটে যাবে আপনাদের গোটা সময়।

কোথায় থাকবেন?

এখানে ভ্রমণ করতে আসলে আপনারা খুব সহজেই কটেজে থাকতে পারেন। নদীর ধারেই রয়েছে তিনটি কটেজ যেখানে বুকিং নেওয়া হয়। এখানে আপনাদের খরচ পড়বে জনপ্রতি ১৩০০ টাকা। যদি আপনারা টেন্টে থাকেন সেক্ষেত্রে খরচ পড়বে ১২০০ টাকা। এই প্যাকেজের মধ্যে আরো অনেক কিছুই আপনারা পেয়ে যেতে চলেছেন। যেমন—কটেজে থাকা সহ চারবার খাওয়া, নৌকায় ইছামতি ভ্রমণ এবং রাতে গাইড এর সঙ্গে নীলকুঠি দর্শন।

যদি আপনারা ক্যাম্প ফায়ার করতে চান বা ব্যাম্বু চিকেন খেতে চান সেক্ষেত্রে কিন্তু আগে থেকেই জানিয়ে রাখতে হবে, তাহলে ব্যবস্থা করে দেওয়া হবে।। এই দুটি জিনিস কিন্তু প্যাকেজের বাইরে থাকছে। এখানে ভ্রমণ করতে যেতে হলে বা অন্যান্য কোন বিস্তারিত তথ্য জানতে হলে আপনারা 8420145135 নম্বরে ফোন করে জেনে নিতে পারেন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানাতে অবশ্যই ভুলবেন না। এই ধরনের আরো টুরিস্ট স্পটের খোঁজ পাওয়ার জন্য আমাদের পরবর্তী প্রতিবেদন গুলির উপর নজর রাখতে পারেন।

Back to top button