মাথার চুল আরও ঘন এবং কুচকুচে কালো করে তুলতে ব্যবহার করুন এই সহজ দুর্দান্ত ঘরোয়া ট্রিকস

নিজস্ব প্রতিবেদন: চুল নিয়ে কিন্তু সকলেই কমবেশি অত্যন্ত সমস্যায় ভুগে থাকেন। কখনো দেখা যায় অল্প বয়সেই হয়তো চুলে পাক ধরছে বা চুলের গোড়া হয়ে উঠছে খুবই দুর্বল। একটু চুল আঁচড়ালেই হাতে উঠে আসে। সামনেই রয়েছে দুর্গাপুজো। এই সময় যদি চুলের এই অবস্থা থাকে তাহলে কার মন ভালো থাকবে বলুন তো?  আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন কিছু পদ্ধতি আলোচনা করব যাতে চুল হয়ে উঠবে ঘন এবং কালো। চলুন আর দেরি না করে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি জেনে নেওয়া যাক।

১)মেথি ও অ্যালোভেরা জেলের ব্যবহার:

চুলের যত্নে কিন্তু মেথি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। যদি আপনারা মেথি চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালো করে ঘষে ঘষে লাগিয়ে নিতে পারেন তাহলেই কিন্তু চুল অনেকটাই মজবুত আর সিল্কি হয়ে উঠবে। পাশাপাশি অ্যালোভেরা গাছের পাতা থেকে সমপরিমাণ অ্যালোভেরা জেল ভালো করে বার করে নিয়ে এই জেল যদি আপনি মাথায় লাগাতে পারেন, তাহলে চুল বাড়ার সাথে সাথে চুল পড়াও কমে যাবে। চাইলে এলোভেরা জেল আর মেথি একসঙ্গেও ব্যবহার করতে পারেন। এর জন্য অ্যালোভেরা জেল এর সঙ্গে মেথি গুঁড়ো খুব ভালো করে মিশিয়ে নিন এবং তার চুলের গোড়ায় ব্যবহার করুন।

২) কারি পাতার ব্যবহার:

চুলের যত্ন করার জন্য আপনারা কিন্তু কারি পাতাও ব্যবহার করতে পারেন। এর জন্য আপনাদের কারিপাতার একটি পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। তারপর এটাকে চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন। কিছুক্ষণ পর ঠান্ডা জল দিয়ে ভালো করে চুল ধুয়ে নিলেই কাজ হয়ে যাবে।

৩) জবা ফুল এবং জবা পাতার ব্যবহার:

জবাফুল আর জবা পাতাকে খুব ভালো করে পেস্ট করে নিতে হবে। এই পেস্ট চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালো করে লাগিয়ে বেশ খানিকক্ষণ রেখে আপনি পরিষ্কার জলে ধুয়ে ফেলুন। এই ক্ষেত্রে কিন্তু আপনাদের শ্যাম্পু করার খুব একটা প্রয়োজন থাকছে না।

৪) আমলকি ও হেনার ব্যবহার:

চুলের যত্নে যে প্রশাধনী ব্যবহার করা হয়, তার বেশির ভাগেরই প্রধান উপাদান হলো আমলকি। ঘরোয়া উপায়ে পাকা চুল কালো করতে চুলের লেন্থ অনুযায়ী হেনা পাউডার গরম জলে ভিজিয়ে পেস্ট করে নিন। এবার পেস্টে আমলকি পাউডার ও অল্প কফি মিশিয়ে মিশ্রণটি ভালো করে চুলে লাগিয়ে নিন। ১ ঘণ্টা রেখে চুল ভালো করে শ্যাম্পু করে ধুয়ে নিন।

সবশেষে বলবো যদি আপনাদের এই সমস্ত উপাদানের কোন একটিতে অ্যালার্জি থেকে থাকে তাহলে কিন্তু অবশ্যই এগুলি ব্যবহার করার আগে চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়ে নেবেন। তাহলে কোন রকমের সমস্যা হবে না।

Back to top button