রাতের ডিনারে একবার খুব সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন এই দুর্দান্ত স্বাদের রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন: দুপুরের লাঞ্চ কিংবা রাতের ডিনার কখন কি ধরনের রান্না খাওয়া হবে তা নিয়ে কিন্তু আপনারা কম বেশি সমস্যায় পড়ে থাকেন। প্রতিদিন একঘেয়ে খাবার খেতে গিয়ে কিন্তু দেখবেন একটা বিরক্ত ভাব চলে আসে। তাই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আপনাদের উদ্দেশ্যে একটি রাতের ডিনারের জন্য দারুণ রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি। কমবেশি সকলেই কিন্তু এই রেসিপিটি সহজ উপায়ে তৈরি করে নিতে পারবেন। চলুন তাহলে আর দেরি না করে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক।

রাতের ডিনারের জন্য দারুন একটি রেসিপি:

১) প্রথমেই মিডিয়াম সাইজের চার থেকে পাঁচটি পেঁয়াজ নিয়ে খোসা ছাড়িয়ে নিতে হবে। এরপর এর মুখের দিকটা এবং তলার দিকটা একটু হালকা করে ছুরির সাহায্যে কেটে নিন। এবার কড়াইতে পর্যাপ্ত পরিমাণে তেল নিয়ে সেটাকে গরম করে নিতে হবে। ওই গরম তেলের মধ্যেই আপনাদের গোটা গোটা পেঁয়াজগুলিকে দিয়ে দিতে হবে। পেঁয়াজ গুলোকে লালচে করে ভেজে নিন।

একটু পরে আপনারা কিন্তু পেঁয়াজ গুলিকে ভাজতে ভাজতেই উল্টে দেবেন। চারিদিকে ভালোভাবে রঙ ধরে পেঁয়াজ গুলি সেদ্ধ হয়ে গেলে তেল থেকে ছেঁকে আপনাদের এগুলি তুলে নিতে হবে। এরপর একটি ক্যাপসিকাম নিয়ে এটাকে টুকরো করে কেটে নিন। তারপর যে তেলে পেঁয়াজ ভেজেছিলেন সেটার মধ্যেই আপনাদের ক্যাপসিকাম দিয়ে এটা কেউ ভেজে নিতে হবে। পেঁয়াজ এবং ক্যাপসিকাম এর মতন মিডিয়াম ফ্লেমে দুটি মাঝারি সাইজের টমেটো টুকরো করে ভেজে নিতে হবে।

২) দ্বিতীয় ধাপে ছয় থেকে সাতটা কাজুবাদাম নিয়ে আবারো ওই তেলের মধ্যে ভেজে নিতে হবে। আপনারা কিন্তু প্রত্যেকটা উপকরণ এভাবে আলাদা করেই ভাজবেন, একসঙ্গে ভাজবেন না। এবার প্রথমে যে পেঁয়াজ আর টমেটো গুলি ভেজে রেখেছিলেন সেটাকে ছুরির সাহায্যে টুকরো করে ভেতরের আর বাইরের অংশগুলিকে আলাদা করে দিতে হবে।

এবার ভেতরের অংশগুলিকে আপনাদের মিক্সার গ্রাইন্ডার এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। সঙ্গে ভাজা কাজুবাদাম গুলিকে দিয়ে একটা ক্রিমের মতন পেস্ট তৈরি করে নিন। এবার কড়াইতে যে তেলটি রয়েছে সেটার মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে কয়েকটি মসলা। দুটি দারচিনি, চার থেকে পাঁচটি লবঙ্গ এবং তিনটে থেতো করা গোটা এলাচ দিয়ে কিছুক্ষণ ভালো করে নাড়াচাড়া করুন। হাফ চামচ জিরে এতে মিশিয়ে দিন।

৩) পেঁয়াজ টমেটো এবং কাজু দিয়ে যে পেস্ট তৈরি করা হয়েছিল সেটাকে এবার কড়াইতে দিয়ে দিতে হবে। কিছুক্ষণ তেলের সাথে ভালোভাবে নাড়াচাড়া করে এটাকে ভিজিয়ে নিতে হবে। এবার এতে মিশিয়ে দিন এক চামচ আদা রসুন বাটা। দিয়ে দিন সামান্য পরিমাণে হলুদ, এক ছোট চামচ লঙ্কার গুঁড়ো, এক ছোট চামচ ধনের গুঁড়ো এবং স্বাদ মতন লবণ।ঝাল যদি আপনারা একটু বেশি খেতে চান সেক্ষেত্রে লঙ্কার গুড়োর পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারেন। মসলা যতক্ষণ বসে যাচ্ছে ততক্ষণ আপনাদের পনির নিয়ে কেটে নিতে হবে।

মসলা থেকে তেল ছাড়তে আরম্ভ হয়ে গেলে এই পনির বা ছানাটিকে তার মধ্যে দিয়ে দেবেন। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে ভেজে নেওয়ার পরে যে পেঁয়াজ ও ক্যাপসিকামের বাইরের অংশগুলি আপনারা আলাদা করে রেখেছিলেন সেটাকে এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে।রান্নার এই পর্যায়ে কিন্তু গ্যাসের আঁচ কম করে রাখবেন। তারপর এক কাপ জল এতে দিয়ে ভালোভাবে নাড়াচাড়া করুন।

দেখবেন কিছুটা সেদ্ধ হওয়ার পর এর রঙ অনেকটাই পরিবর্তন হয়ে গিয়েছে। কসুরী মেথি এক ছোট চামচ ছড়িয়ে দিন।চাইলে তাজা দুধের সর  ফেটিয়ে দিতে পারেন। কিছুক্ষণ কষিয়ে নেওয়ার পরে এই রেসিপিটি নামিয়ে নিন। গরম গরম ভাতের সাথে বা রুটির সাথে রাতের ডিনারে পরিবেশন করুন।

Back to top button