টবের গাঁদা গাছে এবার থেকে দিন এই একটি দুর্দান্ত জিনিস, ফুল হবে আগের থেকে বড়ো ও আরও বেশি

নিজস্ব প্রতিবেদন: কয়েকদিনের মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে শীতকাল। শীতকাল মানেই কিন্তু রংবেরঙের বিভিন্ন ফুল আর নানান ধরনের সবজির চাষ।শীতকালীন ফুলগুলির মধ্যে গাঁদা অন্যতম একটি জনপ্রিয় ফুল। ধূসর এই শহরের অফিস-আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিণা জুড়ে নানা জাতের, বিভিন রঙের গাঁদা ফুলে ছেয়ে যাওয়া খুব একটা অপরিচিত কিছু নয়। এই ফুলের চাহিদা সারা বছর ব্যাপী। বিভিন্ন উৎসব আয়োজনে, বিয়ে, সভা-মিছিল, মিটিং এ গাঁদা ফুলের মালা, তোড়ার ব্যবহার অনস্বীকার্য।

তাই চাহিদা অনুযায়ী কম-বেশি কিন্তু অনেকেই এই ফুলের চাষে অংশগ্রহণ করে থাকেন। অনেকেই আবার বাড়িতে এই সমস্ত ফুলের চাষ করে তা বিক্রি করেন। কিন্তু যেকোনো গাছ লাগানোর পরেই তার সঠিক যত্ন এবং পরিচর্যা পদ্ধতি না জানলে কিন্তু আমাদেরকে সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়।।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের সাহায্যে তাই আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব বাড়িতে খুব সহজেই মেরিগোল্ড বা গাঁদা ফুল চাষ করার বিশেষ কিছু টিপস। নিয়মগুলি ফলো করলে কিন্তু আপনাদের ফুল চাষে কোন রকমের সমস্যা হবে না এবং সহজেই গাছের বৃদ্ধি হবে। চলুন তাহলে একেবারেই সময় নষ্ট না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

গাঁদা ফুল গাছে কি করলে বড় এবং বেশি ফুল আসবে?

১) প্রথমেই আপনাদের নার্সারি থেকে ভালো জাতের কোন গাঁদা ফুলের চারা কিনে নিয়ে আসতে হবে। এটাকে আপনারা পলিথিন থেকে শুরু করে কোন গামলা বা টবেও লাগাতে পারেন। তবে খুব বেশি জল দেবেন না এবং কড়া রোদে এই চারা রাখবেন না। সঠিক অবস্থানে রাখলে মোটামুটি কুড়ি দিনের মধ্যেই কিন্তু চারা বৃদ্ধি হতে শুরু করবে।

এই সময় আপনাদেরকে কিন্তু পিঞ্চিং বা কাটিং করে দিতে হবে যাতে গাছের বৃদ্ধি না আটকে যায়। এই সময় কিন্তু গাছে নতুন পাতা বের হওয়ার জন্য একটু শক্তিশালী সারের প্রয়োজন হবে।এই ক্ষেত্রে DAP প্রয়োগ করতে পারেন আপনারা, এটি গাঁদা ফুলের গাছের বৃদ্ধিতে দ্রুত সাহায্য করবে। গাছের গোড়া থেকে একটু দূরে DAP এর ১০ থেকে ১৫ টা দানা দিয়ে দেবেন।

২) সার প্রয়োগ করার আরো ১৫ থেকে ২০ দিনের মধ্যেই কিন্তু গাছে ফুল ধরতে শুরু করে দেবে। যদি আপনি নার্সারি থেকে গাছ নিয়ে এসে গামলায় লাগাতে চান সেক্ষেত্রে প্রথমেই পলিথিন থেকে চারা গাছ বের করে নেবেন এবং তার চারপাশ টা একটু পরিষ্কার করবেন।। চারপাশ থেকে একটু মাটি সরিয়ে নিলে খুব সহজেই কিন্তু এটা গামলা বা টবের মধ্যে বসানো যাবে। একসাথে দুই থেকে তিনটি চারা আপনারা এই গামলাতে লাগাতে পারেন।। এরপর এই গামলা বা টবটিকে এমন একটা জায়গায় রাখবেন যেখানে টানা তিন থেকে চার ঘন্টা রোদ আসবে।

৩) অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় হাইব্রিড গাঁদা ফুলের গাছের উপরে একটা ফুল এসেই আর ফুল আসা বন্ধ হয়ে যায়। এই ক্ষেত্রে সমাধান হিসেবে যে প্রথম ফুলটি আসবে সেটাকে আপনাদের কাটিং করে দিতে হবে। আসলে এই প্রথম যে ফুলটা তৈরি হয় সেটা কিন্তু গাছের সমস্ত শক্তি শোষণ করে নেয়। যার ফল স্বরূপ গাছের বৃদ্ধি ব্যাহত হয়। ফুল আসার পরে যদি সেটা শুকিয়ে যায় সেটা কেও কিন্তু কেটে দেবেন।

৪) গাছের বৃদ্ধি সঠিকভাবে নিয়ে আসার জন্য আপনারা কিন্তু জলে মিশিয়েও DAP প্রয়োগ করে দিতে পারেন। ৫ লিটার জলে ১০০ গ্রাম পরিমাণে DAP মিশিয়ে নেবেন এবং পরে আরো কিছুটা পরিমাণ জল তাতে যোগ করবেন। এরপর একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ ধরে যে কটা গাঁদা ফুলের গাছ আপনি লাগিয়েছেন তাতে দিয়ে দেবেন। এই কয়েকটা জিনিস যদি আপনি স্টেপ বাই স্টেপ করতে পারেন সেক্ষেত্রে কিন্তু খুব সহজেই গাঁদা ফুলের গাছ বেড়ে উঠবে এবং তাতে বাম্পার ফুল ধরবে।

Back to top button