অনেক বছর ছিল না কোনো সম্পর্ক! অবশেষে ফের এক ফ্রেমে স্বামীর সাথে ধরা দিলেন রচনা ব্যানার্জী, ভাইরাল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদন: টলিউডের একসময়ের অত্যন্ত পরিচিত মুখ রচনা ব্যানার্জি। বাংলা থেকে শুরু করে ওড়িয়া দুই ধরনের চলচ্চিত্রতেই দেখা গিয়েছে তাকে। তবে বর্তমানে তিনি সব থেকে বেশি খ্যাত দিদি নাম্বার ওয়ান এর সঞ্চালিকা হিসেবে। ৪০ এর উপরে বয়স হলেও বর্তমানের যে কোন তরুণ নায়িকাকে টেক্কা দেওয়ার ক্ষমতা রাখেন রচনা। তার সৌন্দর্য থেকে শুরু করে সাবলীল অভিনয় সবকিছুই কিন্তু রীতিমতন প্রতিভার স্বাক্ষর বহন করে। অনেকেই হয়তো জানেন না তার আসল নাম রচনা নয়, ঝুমঝুম ব্যানার্জি।পরিচালক সুখেন দাস তার প্রথম চলচ্চিত্র দান প্রতিদানে (১৯৯৩) তার নাম রাখেন রচনা।

তারপর থেকেই সেই নামে পরিচিত হয়ে আসছেন অভিনেত্রী। ব্যক্তিগত জীবনে কিন্তু পরপর দুইবার বিয়ে করেছেন তিনি। আসলে অভিনেত্রী হিসেবে সফল হলেও তার দাম্পত্য জীবন যে সুখের নয় একথা বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে নিজের মুখেই স্বীকার করে নিয়েছেন রচনা। প্রথমবার রচনা কটকে সিদ্ধার্থ মহাপত্র-কে বিয়ে করেন। তবে খুব বেশি সময় এই বিয়ে টিকে থাকতে পারেনি। এরপর প্রবাল বসুকে বিয়ে করেন এই অভিনেত্রী। কিন্তু আশ্চর্য ব্যাপার হলো ছেলের জন্মের কয়েক বছরের মধ্যেই তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়।

তবে আইনিভাবে বিচ্ছেদ করেননি তারা। শুধুমাত্র আলাদা থাকতেন। একটা সাক্ষাৎকারে রচনা জানিয়েছিলেন প্রধানত ছেলের কারণেই তারা ডিভোর্স নেননি। যাতে তাদের সন্তান বাবা-মা উভয়ের ভালবাসা পায় সেই কারণেই এমনটা সিদ্ধান্ত। আলাদা বাড়িতে থাকার পরেও রচনা আর তার স্বামী প্রবাল বসুর মধ্যে কিন্তু বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল। তাদের ছেলে প্রনীল অভিনেত্রী রচনা ব্যানার্জীর কাছে থাকলেও নিয়মিত তার বাবার সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিল। কিন্তু এবারে রচনা ব্যানার্জীর ভক্তদের জন্য সামনে চলে এসেছে একটি সুখবর।

আসলে দীর্ঘদিনের বিচ্ছেদের পর চলতি বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের দূর্গাপুজোতে আবারো এক হয়ে গিয়েছেন রচনা এবং তার স্বামী প্রবাল বসু। দুর্গাপূজার মহানবমী উপলক্ষে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল এই দম্পতিকে। ছেলে এবং স্বামীকে নিয়ে একই ফ্রেমে এদিন ধরা দেন অভিনেত্রী রচনা। সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন রচনা ব্যানার্জীর এই ছবিগুলি রীতি মতন ঝড়ের গতিতে ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছে। ছবিগুলি দেখার পর অনেকেই মনে করছেন সম্ভবত বিচ্ছেদের এত বছর পর আবারও এক হতে চলেছেন তাদের সকলের প্রিয় দিদি নাম্বার ওয়ান খ্যাত রচনা ব্যানার্জি আর তার স্বামী।

এবার এই গুঞ্জন কতটা সত্যি তা হয়তো আমাদের পরবর্তী সময়ই বলে দেবে। আসুন স্বামীর সঙ্গে বিচ্ছেদের প্রসঙ্গে কি বলেছিলেন রচনা তা জেনে নেওয়া যাক। রচনার কথায়, “ছেলের জন্যই আমরা ডিভোর্স নেইনি। কারণ আমি কখনও চাইনি যে আমার ছেলেকে এই ট্যাগটা দেওয়া হোক যে তাঁর বাবা-মা ডিভোর্সড। এটা আমার এবং আমার স্বামীর মিলিত সিদ্ধান্ত ছিল”।

Back to top button