বাড়িতেই ইলিশ মাছ এই ৩টি দুর্দান্ত উপায়ে করুন সংরক্ষণ, থাকবে সারাবছর টাটকা

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙালি অথচ ইলিশ মাছ খেতে ভালোবাসেন না এরকম কিন্তু হতেই পারেনা। রুই কাতলা থেকে শুরু করে অন্যান্য বহু মাছ থাকলেও ইলিশকেই কিন্তু মাছের রাজা বলে উল্লেখ করা হয়ে থাকে। তবে কিছু ক্ষেত্রে ইলিশ মাছের কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সিজন থাকে। তবে শুধু সিজন থাকলেই তো হলো না! বহু মানুষ তো সারা বছর ধরেই এই মাছ খেতে পছন্দ করে থাকেন।

তাই এটা অত্যন্ত স্বাভাবিক যে ইলিশ মাছ সংরক্ষণ করা ভীষণভাবে প্রয়োজন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করে নিতে চলেছি সারা বছর স্বাদ আর গন্ধ ঠিক রেখে তিনটি পদ্ধতিতে ইলিশ মাছ সংরক্ষণ করার উপায়। আপনারা যারা ইলিশ মাছ খেতে ভালোবাসেন তারা কিন্তু ভুল করেও আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি মিস করবেন না। চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

ইলিশ মাছ সংরক্ষণের পদ্ধতি:

সংরক্ষণের জন্য বাজার থেকে ৩টি মাছ নিয়ে আসার পরে সেটাকে আর ধোয়ার প্রয়োজন নেই। শুধুমাত্র মাছের গায়ে যে জল লেগে থাকবে সেটাকে ভালো করে তাবাল দিয়ে মুছে নিলেই হবে। এই কাজে আপনারা কিচেন টিস্যু পেপার ও ব্যবহার করতে পারেন। তিনটে মাছ দিয়ে আমরা সংরক্ষণের আলাদা তিনটি পদ্ধতি আলোচনা করব।

প্রথম পদ্ধতি:

এতে প্রথমেই আপনাকে ভালো করে মাছের লেজ কেটে নিতে হবে। এরপর একটা লেবু কেটে নিয়ে যেখানে মাছের কানসা থাকে সেখানে এই লেবুর রস দিয়ে দিতে হবে। এভাবে লেবুর রস দিয়ে দিলে কিন্তু মাছের গায়ে সংরক্ষণ করার পরেও কোন রকমের গন্ধ হবে না। এরপর মাছের গায়েও কিছুটা লেবুর রস ছড়িয়ে দিন। এরপর বাড়িতে যে খবরের কাগজ থাকে তার মধ্যে আপনাদের ভালো করে মাছ মুড়ে নিতে হবে।

পেপার দিয়ে মুড়িয়ে নেবার পর এটাকে একটা পলিথিনের মধ্যে ভরে বেলুন। এই কাজে আপনারা জিপলক ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। যদি পলিথিন ব্যবহার করেন তাহলে অবশ্যই চেষ্টা করবেন এর মধ্যে থেকে সম্পূর্ণ হাওয়া বের করে দেওয়ার। পলিথিন দিয়ে মোড়ানোর পরে ভালো করে সমস্ত অংশে সেলোটেপ আটকে দিন। ব্যাস শেষ হয়ে গেল আমাদের প্রথম পদ্ধতি।

দ্বিতীয় পদ্ধতি:

কিচেন টিস্যু দিয়ে মুছে নেওয়ার পর দ্বিতীয় পদ্ধতিতে মাছের গায়ে এবং কানসার অংশে আপনাদেরকে ভিনেগার দিয়ে দিতে হবে। এভাবে ভিনেগার ব্যবহার করলেও মাছের গায়ে কোন রকমের গন্ধ হবে না। এবার ঠিক আগের পদ্ধতির মতোই এটাকে খবরের কাগজে ভালো করে মুড়ে নিয়ে একটা পলিথিন ব্যাগে ভরে নিতে হবে। অবশ্যই পলিথিন ব্যাগ থেকে আপনারা হাওয়া বের করে নেবেন। সবশেষে আগের মতই সেলোটেপ দিয়ে প্যাক করে নিতে পারেন যাতে এটাকে বছরখানেক সংরক্ষণ করা যায়।

তৃতীয় পদ্ধতি:

আজকের এই প্রতিবেদনের তৃতীয় পদ্ধতিটি কিন্তু অত্যন্ত কার্যকর। যারা বাজারে মাছ বিক্রি করে থাকেন তারা কিন্তু অনেক সময় এই পদ্ধতিতে ইলিশ সংরক্ষণ করে থাকেন।। এর জন্য একটি কৌটোর মধ্যে কিছুটা পরিমাণ জল দিয়ে তাতে মাছ ডুবিয়ে রেখে দিতে হবে। তারপর কৌটোর ঢাকনা লাগিয়ে আপনাদের এটাকে বরফ করে ফেলতে হবে। অর্থাৎ এবার কৌটোটিকে আপনারা ডিপ ফ্রিজে রেখে ভালো করে বরফ করে মাছ দীর্ঘদিন পর্যন্ত সংরক্ষণ করে রেখে দিন।। তবে এই পদ্ধতিতে অনেক মাছ সংরক্ষণ করতে চাইলে আপনার বাড়িতে কিন্তু প্রয়োজনীয় ফ্রিজের ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন।

Back to top button