ছোপ বা বলিরেখা উধাও হয়ে বয়স দেখাবে ১০ বছর কম! শুধু ট্রাই করুন কেয়া শেঠের এই সহজ ৫টি ঘরোয়া টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: দৈনন্দিন সমস্ত কাজের মধ্যেও নিয়মিত কিন্তু স্কিনের যত্ন নেওয়াটা ভীষণভাবে প্রয়োজন। আসলে যদি আপনারা ঠিক মতন স্কিনের যত্ন না নেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু দেখবেন আপনাদের ত্বকে রিংকেলস, ব্ল্যাকহেডস,র‍্যাস থেকে শুরু করে আরো নানান ধরনের সমস্যা লক্ষ্য করা যায়। এমনকি স্কিন এতটাই রুক্ষ হয়ে যায় যে দেখে মনে হয় এর বয়স আরো ১০ বছর বেড়ে গিয়েছে।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের তাই আমরা মহিলাদের জন্য নিয়ে এসেছি কেয়া শেঠের খাস দরবার থেকে ত্বকের বয়স কমানোর বিশেষ কয়েকটি টিপস। আপনারা যারা উপরিউক্ত সমস্যাগুলির ভুক্তভোগী হয়ে রয়েছেন তারা কিন্তু খুব মনোযোগ দিয়ে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটি পড়বেন। দেখবেন খুব সহজেই কিন্তু আপনাদের সমস্যা দূর হয়ে যাবে। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

ত্বকের বয়স কমাতে চান?

ত্বকের বয়স কমানোর একটি সহজ উপায় হচ্ছে ফেসপ্যাক। নিয়মিত নিজের স্কিনকে একেবারে মোলায়েম এবং তরতাজা রাখতে হলে আপনাদের কিন্তু ফেসপ্যাক ব্যবহার করা ভুললে চলবে না। জেনে নিন কেয়া শেঠ স্পেশাল হোম-মেড ফেস প্যাক তৈরি করার পদ্ধতি।

১) স্কিনের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার জন্য বিশেষ ফেসপ্যাক:

স্কিনের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করার জন্য আপনাদের যে ফেস প্যাকটি তৈরির কথা বলতে চলেছি তাতে উপকরণ হিসেবে প্রয়োজন হবে ১ চামচ শসার রস, ২ চামচ দুধ এবং অল্প পাতিলেবুর রস‌। একটি বাটি নিয়ে তার মধ্যে আপনাদের শসার রস,দুধ আর পাতিলেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। মোটামুটি ১০ মিনিট এই মিশ্রণটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। আপনারা কিন্তু চাইলে রোজ মুখে এটাকে ব্যবহার করতে পারেন। এই ফেসপ্যাক এতটাই কার্যকরী একটা জিনিস যে খুব সহজেই আপনার ত্বক থেকে যেকোন কালো দাগ ছোপ দূর হয়ে যাবে।

বয়স কমানোর কিছু গোপন রহস্য:

দেখবেন আপনার অযত্নের ফলে ত্বকের বয়স কিন্তু খুব শীঘ্রই বাড়তে থাকে। যার ফলস্বরূপ মুখে দেখা দেয় অজস্র বলিরেখা অথবা ব্ল্যাকহেডস। এর জন্য বাজার চলতি কোন ক্রিম ব্যবহার না করে আপনারা কিন্তু সহজেই বাড়িতে কেয়া শেঠ স্পেশাল এজিং-এর ট্রিটমেন্ট করে নিতে পারেন, যা আপনাকে এনে দেবে দারুন সুন্দর আর উজ্জ্বল ত্বক।

রিঙ্কল তোলার উপায়:

 

ত্বকের বয়স যদি বেড়ে যায় তাহলে কিন্তু দেখবেন মুখে প্রচুর পরিমাণে বলি রেখা বা রিঙ্কল লক্ষ্য করা যায়। এগুলি কিন্তু চাইলে সহজেই দূর করা যেতে পারে। তার জন্য ২ চামচ ফ্রেশ পেঁয়াজের রস এবং ১ টা ডিমের সাদা অংশ ভালো করে আপনাদের কে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার এই মিশ্রনটিকে একটি তুলোর সাহায্যে ভালো করে লেয়ার তৈরি করে মুখের উপরে মেখে নিন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, পেঁয়াজে প্রচুর সালফার আর অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট থাকে, যা আপনার বলিরেখা কমিয়ে আপনার বয়স কম দেখাবে, আর ডিমে থাকা প্রোটিন আপনার চামড়াকে টানটান আর টোনড রাখতে সাহায্য করবে।

ত্বকের যত্নের জন্য ‘সি.টি.এম.’ রুটিন :

কেয়া শেঠের মতে, ক্লিনজিং, টোনিং, ময়েশ্চারাইজিং-ই কিন্তু বয়েস কমানোর জন্য বিশেষ একটি উপায়। যদি নিয়মিত আপনারা ত্বকের যত্নের জন্য এই তিনটি ধাপ ফলো করতে পারেন তাহলে কিন্তু আর স্কিন প্রবলেম নিয়ে আপনাদেরকে সবিশেষ চিন্তা করতে হবে না।

সর্বদা স্কিনকে পরিষ্কার রাখুন:

বাইরে বেরোলে কিন্তু বিভিন্ন ধরনের ধুলোবালি আর দূষণ আমাদের ত্বকের উপরে প্রভাব বিস্তার করে থাকে। তাই সর্বদা ত্বক পরিষ্কারের দিকে আপনাদেরকে কিন্তু নজর দিতেই হবে। আপনার ত্বকের সঙ্গে মানানসই ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন এবং নিয়মিত কিন্তু স্কিনকে মশ্চারাইজ রাখার আপনারা চেষ্টা করবেন। নয়তো ধুলোবালি ত্বকের উপরে বসে গিয়ে আপনার স্কিনকে দাগ ছোপ যুক্ত এবং রুক্ষ করে তুলবে।

টোনিং এবং মশ্চারাইজিং:

স্কিনের বয়স কমাতে চাইলে নিয়মিত কিন্তু আপনাকে টোনিং করতে থাকতেই হবে। এর জন্য আপনারা নিজেদের ত্বকের সঙ্গে মানানসই যে কোন টোনার অথবা কেয়া শেঠের স্পেশাল ল্যাভেন্ডার ফেয়ারনেস ওয়াটারও ব্যবহার করতে পারেন। ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন।

এবার আসা যাক মশ্চারাইজিং এর কথায়। স্কিনের উজ্জ্বল্য বৃদ্ধি করতে এবং বয়স কম দেখানোর জন্য আপনারা কিন্তু যেকোনো উপযোগী ময়শ্চারাইজার ব্যবহার করতে পারেন যা আপনাদের ত্বকের কোন রকমের ক্ষতি করবে না। তাছাড়া কেয়া শেঠের টেট্রা হোয়াইটেনিং ক্রিম, সিরাম ইত্যাদিও ব্যবহার করতে পারেন। এগুলো কিন্তু ভীষণ রকমের কার্যকরী।

ত্বককে এক্সফোলিয়েটিং করার উপায়:

টোনিং এবং মশ্চারাইজিং এর পাশাপাশি আপনাদের কিন্তু নিয়মিত ত্বক এক্সফোলিয়েটিং করে যেতে হবে। বাড়িতেই খুব সহজে এটা করা যেতে পারে। তার জন্য একটি পাত্রের মধ্যে আপনাদের ২ চামচ দুধ আর ২ চামচ মসুর ডালের গুঁড়ো মিশিয়ে নিতে হবে। এটা মুখে লাগিয়ে ভালো করে ম্যাসাজ করুন মিনিট দশেক ধরে। স্কিনের বয়স কমাতে এটা কতটা কার্যকরী সেটা আপনারা কিছুক্ষণের মধ্যে নিজেরাই বুঝতে পারবেন।।

মহিলাদের উদ্দেশ্যে ত্বকের যত্নের বিশেষ কিছু টিপস:

শুধুমাত্র কিন্তু বিভিন্ন ধরনের ক্রিম বা প্যাক ব্যবহার করলেই হবে না। স্কিন যাতে খুব বেশি রুক্ষ না হয়ে যায় তার জন্য আপনাদের কিন্তু পরিমাণ মতন জল খেতে হবে এবং নিয়মিত রোদে বেরোনোর আগে সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। যতটা সম্ভব রাতে ঘুমোনোর আগে নাইট ক্রিম ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন। ব্যাস সঙ্গে উপরিউক্ত কয়েকটি টিপস যদি আপনারা নিয়মিত পালন করতে পারেন তাহলে আর আপনাদের কোন রকমের চিন্তা করতে হবে না।।

Back to top button