এই সহজ পদ্ধতিতে মাত্র পাঁচ মিনিটেই দূর করুন কড়াইয়ের নিচের কালি।

নিজস্ব প্রতিবেদন: রান্না করতে যতই ভাল লাগুক না কেন, রান্নার পর বাসন ধোওয়ার কথা ভাবলেই কি মুড অফ হয়ে যায় আপনার? বিশেষ করে সুন্দর একটি আইটেম রান্নার পর যদি যদি দেখেন কড়াইয়ের নীচে বিচ্ছিরি কালো দাগ হয়ে গিয়েছে, তাহলে তো আর কথাই নেই!

রান্নার পর কড়াইয়ের নীচে তেলচিটে কালিই বলুন, কি পুড়ে যাওয়া কালো দাগই বলুন, সে পরিষ্কার করা মানে যেন এক বিশাল পর্ব! অনেকসময় অনেক সাবান বা ডিশওয়াশার দিয়ে ঘষেও সহজে সে দাগ যেতে চায় না। ফলে সকলেই চান কড়াইয়ের নীচে পড়া কালি দূর করার চটজলদি টিপসের সন্ধান। তাই আজকের লেখায় রইল কড়াইয়ের নীচে কালি পাঁচ মিনিটে দূর করার দুর্দান্ত পাঁচটি টিপসের হদিশ।

১. বেকিং সোডাঃ

বেকিং সোডা অত্যন্ত সহজলভ্য একটি উপাদান। কড়াইয়ের নীচের কালি একনিমেষে দূর করার জন্য বেকিং সোডাকে কিন্তু আপনি কাজে লাগাতে পারেন অনায়াসে। যে-কড়াইটি পরিষ্কার করতে চান, তাতে হালকা গরম জল করে বেকিং সোডা দিন। এরপর জলসুদ্ধ কড়াইটি দু-তিন মিনিট রেখে দিন। এরপর স্ক্রাবার দিয়ে আস্তে-আস্তে কড়াইয়ের কালো দাগ ঘষতে শুরু করুন। দেখবেন, তেলচিটে দাগই হোক কি পোড়া কালি, খুব সহজেই সেটি উঠে যাচ্ছে, আপনাকে বেশি ঘষাঘষি করতেও হচ্ছে না!

২. অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলঃ

এই দুর্দান্ত টিপসটির কথা কিন্তু অনেকেই জানেন না। তবে কড়াইয়ের জেদি দাগ তোলার জন্য এটি কিন্তু আপনার মুশকিল আসান হতেই পারে! অনেক সময়েই দেখা যায়, স্ক্রাবার দিয়ে বারবার ঘষলেও কিছুতেই কড়াইয়ের দাগ উঠতে চায় না।

সেক্ষেত্রে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল ব্যবহার করতে পারেন। বাসন মাজার জন্য যে লিকুইড সাবান ব্যবহার করেন, সেটি কড়াইয়ের কালো অংশে দিন, তারপর সেখানে সামান্য জল দিন। এবার অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলের একটি ছোট অংশ ছিঁড়ে বলের মতো পাকিয়ে নিয়ে তাই দিয়ে সাবান ঘষুন। দেখবেন যত জেদি দাগই হোক না কেন, খুব দ্রুত আপনার কড়াই পরিষ্কার হয়ে যাবে।

৩. পাতিলেবুর রসঃ

কড়াইয়ের কালি তোলার এটি খুব চেনা একটি প্রক্রিয়া। পাতিলেবু আমাদের সকলের বাড়িতেই থাকে। তাছাড়া এর দামও খুব একটা বেশি হয় না। কড়াইয়ের নীচের কালি, নোংরা, তেল ইত্যাদি যে-কোনও দাগ তোলার জন্য লেবু খুব কার্যকরী।

পোড়া কড়াইয়ের মধ্যে জল দিয়ে দুটুকরো পাতিলেবু ওতে দিন এবং জলটি দু-তিন মিনিট হালকা গরম করে নিন। এরপর গ্যাস বন্ধ করে কড়াইটি পাঁচ-ছ’ মিনিট এমনি বসিয়ে রাখুন। তারপর পাতিলেবুর টুকরোগুলি দিয়েই কড়াইটি ঘষতে শুরু করুন, দেখবেন যে-কোনওরকম কালো দাগ, তেল কি সুন্দর তাড়াতাড়ি উঠে যাচ্ছে।

৪. গরম জল, নুন এবং ডিশওয়াশারঃ

সাধারণত দেখা যায়, রান্নার পর সাধারণ জল দিয়ে কড়াই পরিষ্কার করলে কালো দাগ কিছুতেই উঠতে চায় না। ফলে বারবার অনেক ডিটারজেন্ট খরচা করেও সেরকম কোনও সুরাহা হয় না।

সেক্ষেত্রে কড়াইতে জল গরম করে নিন। তারপর সেই জলে সামান্য নুন এবং ডিশওয়াশার লিকুইড দিয়ে কড়াই মিনিট দশেক ভিজিয়ে রাখুন। এরপর জল ঠান্ডা হলে স্ক্রাবার দিয়ে কড়াইটি ঘষুন। এই প্রক্রিয়াটিতে আপনি কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি উপকার পেতে পারেন।

৫. ভিনিগারঃ

অনেকেই জানেন না, ভিনিগার কিন্তু দারুণ ক্লিনজিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে। ভিনিগারে থাকা অ্যাসেটিক অ্যাসিড খুব সহজে কড়াইয়ের কালো দাগ দূর করতে পারে।

রান্না করতে গিয়ে যদি আপনার কড়াই পুড়ে যায়, তাহলে তাতে অল্প ভিনিগার দিয়ে রেখে দিন। কিছু সময় পরে গরম জল ও লিকুইড সাবান দিয়ে পরিষ্কার করে নিন। দেখবেন খুব দ্রুত উপকার পাচ্ছেন।

মনে রাখুন কিছু বিশেষ বিষয়ঃ

১. রান্না করতে গিয়ে আপনার কড়াইতে যদি কালি পড়েই থাকে, তাহলে সেই কড়াইটি পরে পরিষ্কার করবেন বলে বেশিক্ষণ ফেলে রাখবেন না। সম্ভব হলে রান্না শেষ হওয়ার সঙ্গে-সঙ্গে কড়াইটি পরিষ্কার করে নিন। একান্তই সেটি সম্ভব না হলে অন্তত চেষ্টা করুন, যাতে ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই সেই কাজটি সেরে ফেলা যায়। কারণ দাগ একবার ভাল করে বসে গেলে কিন্তু সেটি পরে পরিষ্কার করা অনেক ঝামেলার ব্যাপার হয়ে যাবে।

২. কড়াইয়ের কালি তোলার জন্য ধাতব স্ক্রাবার ব্যবহার করবেন না। এটি কড়াই বা যে-কোনও বাসন খারাপ করে দেয় তো বটেই, সেইসঙ্গে আপনার হাতের ক্ষেত্রেও এটি ক্ষতিকর। তাই সাধারণ কোনও স্ক্রাবার ব্যবহার করুন।

মজার ব্যাপার, কোল্ড ড্রিংক্স, টমেটো কেচাপ বা ওয়াইন ব্যবহার করেও কিন্তু আপনি আপনার পোড়া কড়াইয়ের নীচের কালো দাগ সহজে পরিষ্কার করতে পারবেন! তবে উপরে উল্লেখিত উপাদানগুলিও এক্ষেত্রে দারুণ কার্যকরী। ফলে এবার থেকে পোড়া কড়াই আর ফেলে রাখবেন না। দ্রুত পরিষ্কার করে নিন। তাহলে বেশি সময়ও লাগবে না, কাজটিও খুব সহজে হয়ে যাবে!

Back to top button