একাকী ফেলে বিদায় নিলেন রাজু! স্বামী অন্তিম ক্রিয়ায় নিজেকে না সামলাতে পেরে কান্নায় ভেঙে পড়লেন স্ত্রী শিখা, দেখুন সেই ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: বুধবার গোটা বিনোদন জগৎ জুড়ে দেখা গিয়েছিল শোকের ছায়া। আচমকাই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইহজগত ত্যাগ করে চলে যান জনপ্রিয় কমেডিয়ান রাজু শ্রীবাস্তব। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল মাত্র ৫৮ বছর। নিজের কাজের মাধ্যমে সব সময় এই মানুষের মুখে হাসি ফোটাতেন রাজু। স্বাভাবিকভাবেই এই মানুষটির মৃত্যুতে ভেঙে পড়েছিল বিনোদন জগতের একটা বড় অংশ।

সম্প্রতি এদিন দিল্লির নিগমবোধ ঘাটে রাজু শ্রীবাস্তবের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। আত্মীয় বন্ধু-বান্ধব এবং পরিজনরা ছাড়াও শেষকৃত্তে কিন্তু বেশ কয়েকজন বলিউডের ব্যক্তিত্ব কেউ দেখা গিয়েছে এদিন। বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সূত্রের খবর অনুযায়ী এদিন রাজুর ভাইয়ের বাড়ি থেকে তার অন্তিম যাত্রা বেরিয়েছিল।

একটি ফুল দিয়ে সাজানো অ্যাম্বুলেন্সে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়। প্রিয় কমেডিয়ান কে দেখার জন্য কিন্তু রাস্তার দুপাশে বহু মানুষ ভিড় জমিয়েছিলেন। রাজু শ্রীবাস্তব কে সকলেই চোখের জলে বিদায় জানান। এমনকি অনুরাগীদের একাংশের মুখে , ‘রাজু শ্রীবাস্তব অমর রহে’ এই শ্লোগানও বেশ কয়েকবার পর্যন্ত শুনতে পাওয়া যায়। সদ্য স্বামীকে হারিয়ে একেবারেই ভেঙে পড়েছেন রাজুর স্ত্রী শিখা শ্রীবাস্তব।

অগণিত ভক্তদের মতন এদিন নিজের স্বামীকেও চোখের জলে বিদায় জানান তিনি। বাবাকে হারিয়ে তখন দু’চোখের জল থামছে রাজুর দুই ছেলেমেয়ের। মুহূর্তেই নেট মাধ্যমে এই সমস্ত ছবি ভাইরাল হয়ে উঠেছে কয়েক ঘন্টার মধ্যে। বেশিরভাগ মানুষেরাই অত্যন্ত দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাজু শ্রীবাস্তবের পরিবারের এই অবস্থা দেখে। কাছের বন্ধুদের মধ্যে রাজু শ্রীবাস্তবের মরদেহের সঙ্গে শ্মশানে গিয়েছিলেন বন্ধু এহসান কুরেশি এবং সুনীল পাল।

সংবাদ মাধ্যমের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সুনীল পাল বলেন, “রাজু ভাই চিরকাল আমাদের হৃদয়ে থাকবেন। উনি আমাদের শিক্ষক ছিলেন”। বলিউড ব্যক্তিত্বের মধ্যে এদিন রাজু শ্রীবাস্তবের শেষকৃত্যে পরিচালক মধুর ভান্ডারকরকে দেখা যায়। পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি, আচমকাই গত দশই আগস্ট ট্রেড মিলে হাঁটার সময় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে সেখানেই মাটিতে পড়ে যান রাজু।

এরপর প্রায় ৪৩ দিন ধরে হাসপাতালে যমে মানুষের সঙ্গে তার টানাটানি চলে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তার জীবনদ্বীপ নিভে যায়। প্রসঙ্গত হাসপাতালে ভর্তির পর প্রথম দিকে অবস্থার অবনতি হলেও প্রায় ১৫ দিন হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে থাকার পর ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছিলেন তিনি। জ্ঞান ফিরেছিল তাঁর। তবে গত ১ সেপ্টেম্বর আবার শিল্পীর শারীরিক অবনতি হতে থাকে।

এমস সূত্রে খবর, হৃদরোগের চিকিৎসাধীন রাজুর হঠাৎই জ্বর আসতে শুরু করে। ঝুঁকি না নিয়ে রাজুকে লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমে রাখেন তাঁর চিকিৎসকেরা। গত ২০ দিন সেভাবেই চিকিৎসা চলছিল কৌতুকাভিনেতার। বুধবার সকালে আর সঙ্গ দেয়নি তাঁর শরীর। গত দেড় মাসের চিকিৎসাপর্বে একের পর এক শারীরিক সমস্যা দেখা দিয়েছে রাজুর। হার্ট অ্যাটাকের পর প্রথমে তাঁর অ্যাঞ্জিওপ্লাস্টি হয়। দু’টি স্টেন্টও বসে।

কিন্তু তাতে হার্ট সচল হলেও রাজু সুস্থ হননি। রাজুর চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক অনিল মুরারকা জানিয়েছিলেন, হার্ট সচল হলেও রাজুর মস্তিষ্ক জবাব দিয়েছে। ফলে ভেন্টিলেশন সাপোর্টেই রাখতে হবে। যদিও ২৫ অগস্ট প্রায় ১৫ দিন ভেন্টিলেশনে থাকার পর জ্ঞান ফেরে রাজুর। কিন্তু গত ১ সেপ্টেম্বর রাজু আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাঁর দেহের তাপমাত্রা বেড়ে ১০০ ডিগ্রি ছোঁয়। তাই কৌতুকাভিনেতাকে আবারও লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমেই রাখতে বাধ্য হয়েছিলেন চিকিৎসকেরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button