সামনেই পুজো! খুব কম খরচে এবার বাড়িতেই এই সহজ দুর্দান্ত উপায়ে করে নিন ১০০% ওয়াটারপ্রুফ মেকআপ

নিজস্ব প্রতিবেদন : আর মাত্র কয়েক দিনের অপেক্ষার পরেই শুরু হয়ে যাবে বাঙালির সবথেকে বড় উৎসব দুর্গাপুজো। পূজো নিয়ে এখন থেকেই মানুষের মনে কিন্তু আনন্দ আর উন্মাদনার শেষ নেই। নতুন জামা কাপড় কেনাকাটা থেকে শুরু করে প্রায় সবকিছুই শুরু হয়ে গিয়েছে সাধারণ মানুষের। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন আমরা পুজো স্পেশাল নিয়ে এসেছি শুধুমাত্র মহিলাদের জন্য। পূজো মানেই নতুন জামা কাপড় এবং সাজগোজ।

কিন্তু এমন অনেক মহিলারা রয়েছেন যারা হয়তো কিভাবে সাজগোজ করবেন তা বুঝতে পারেন না। ঠিক তাদের জন্যই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আলোচনা করব দুর্গা পূজার অষ্টমীর সকালে আপনারা কি ধরনের মেকাপ করতে পারবেন সেই নিয়ে।

প্রসঙ্গত দুর্গাপূজার অষ্টমীর সকালের সাজ নিয়ে কিন্তু মেয়েদের মধ্যে একটা আলাদাই ভাবনা থাকে। বেশিরভাগ বাঙালি মহিলা কিন্তু এদিন সকালে শাড়ি পড়তে প্রেফার করে থাকেন। কিন্তু শাড়ির সাথে কি ধরনের লুক দিলে তা মানানসই হবে এই বিষয়ে ধারণা অনেকেরই নেই। চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

অষ্টমীর সকালের বিশেষ সাজ:

১) মেকআপ শুরু করার জন্য আপনাকে সবার প্রথমেই কিন্তু ভালো করে ফেস ক্লিন করে নিতে হবে। এর জন্য প্রথমেই আপনারা ফেসওয়াশ ব্যবহার করুন তারপর যদি বহু সময় পর্যন্ত আপনারা ফেসের উপর লোম না তুলে থাকেন সেটাকে একটি রেজার এর সাহায্যে তুলে ফেলুন। এর জন্য মুখে ভালো করে এলোভেরা জেল লাগিয়ে ফেস রেজার এর সাহায্যে আপনারা কিন্তু লোম তুলে ফেলতে পারেন।

প্রসঙ্গত যদি এই লোম আপনারা না তোলেন সে ক্ষেত্রে কিন্তু মেকআপ লং লাস্টিং হবে না এবং অনেক ক্ষেত্রেই কিন্তু ফেটে যেতে পারে। এই লোম না তুললে কিন্তু ঘাম হলে মেকআপ উঠে যাবে এবং কখনোই তা একেবারে ত্বকের ভেতর পর্যন্ত বসবে না। এরপর আপনাদের একটি টোনারের সাহায্যে ফেসটাকে সেট করে নিতে হবে। কাজে আপনারা আয়ুরের ফেস টোনার টা ব্যবহার করতে পারেন।

তারপর আপনাদের ভালো করে ত্বকে লাগিয়ে নিতে হবে পন্ডস এর সুপারলাইট জেল মশচারাইজার। চাইলে আপনারা আপনাদের পছন্দমত অন্য কিছুও ব্যবহার করতে পারেন। এই প্রত্যেকটা জিনিস কিন্তু আপনারা ১০০ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন। এরপর আপনাদের একটি আইব্রো পেন্সিল ব্যবহার করে ভালো করে আই ব্রো সেট করে নিতে হবে।

২) আপনাদের সান প্রটেকশনের জন্য ল্যাকমি সানস্ক্রিন ব্যবহার করে নিতে হবে। ছোট প্যাক আপনারা কিন্তু একশ টাকার মধ্যেই পেয়ে যাবেন এই সানস্ক্রিনের। এরপর আপনাদের ইনসাইড এর প্রাইমার ভালো করে ত্বকে লাগিয়ে নিতে হবে। তারপর আপনাদের ব্যবহার করতে হবে কনসিলার।

এই জিনিসটিও আপনারা অনলাইনে একেবারে সামান্য অফারের মধ্যেই পেয়ে যাবেন। কনসিলার কিন্তু আপনাদের হাত দিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। তারপর ভালো করে চোখের উপরের অংশে আউটার কর্নারে আপনাদের আইশ্যাডো লাগিয়ে নিতে হবে। কোন রকমের পাউডার বা কম্প্যাক্ট ব্যবহার করার এই মুহূর্তে প্রয়োজন নেই।

৩) মেইবিলাইনের ফিট মি ফাউন্ডেশন টা আপনারা ব্যবহার করতে পারেন। তারপর আপনাদের ব্লু হ্যাভেনের কম্প্যাক্ট পাউডার ভালো করে ত্বকে লাগিয়ে নিতে হবে। এরপর ফেস সেট করার জন্য আপনারা কিন্তু চোখের নিচে এবং ঠোটের দুপাশে লুজ পাউডার লাগিয়ে নিতে পারেন। তারপর চোখের নিচের অংশে আপনাদের আই মেকআপ সম্পূর্ণ করে নিতে হবে। পছন্দ মতন আইশ্যাডো দিয়ে চোখের আউটার লাইনে হালকা করে টেনে দিন। তারপর মুখে যে পাউডারটি লাগিয়েছিলেন সেটিকে পাফ বা ব্লেন্ডারের সাহায্যে আপনাদেরকে ভালো করে বসিয়ে নিতে হবে।

এরপর ফেস কন্ট্রোল করার জন্য আইশ্যাডো থেকে ব্রাউন কালার টা নিয়ে দুই ধারে হালকা করে দিতে হবে। এরপর ঠিক একই রকম ভাবে আপনারা কিন্তু নাকের অংশটাও কন্ট্রোল করতে পারবেন। এরপর আইশ্যাডো বা লিপস্টিক দিয়ে আপনারা ভালো করে গালের দুপাশে ব্লাশ করে নিতে পারেন। চোখের মেকআপ সম্পূর্ণ করার জন্য আপনাদের ব্যবহার করতে হবে ল্যাকমে আইলাইনার। ১০০ টাকার মধ্যেই কিন্তু আপনারা এই আইলাইনারটি পেয়ে যাবেন।

মাসকারা হিসেবে আপনারা ব্লু হ্যাভেন ব্যবহার করতে পারেন এক্ষেত্রে। সবশেষে আরও একবার নাক এবং ঠোটের উপর আর নিচের অংশ আপনাদের হাইলাইটার দিয়ে হাইলাইট করে নিতে হবে। ব্যাস সবশেষে আপনাদের শাড়ির সাথে মানানসই লিপস্টিক পড়ে নিলেই কিন্তু সাজসম্পন্ন হয়ে যাবে। অবশ্যই চেষ্টা করবেন লিকুইড লিপস্টিক ব্যবহার করার।

যদি আপনারা বিবাহিত হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে একটু আলাদা লুক আনার জন্য কিন্তু সুন্দরভাবে সিঁদুর করে নিতে পারেন।  আজকের এই মেকআপ টিউটোরিয়াল ভালো লেগে থাকলে অন্যান্য বন্ধুবান্ধবদের সাথে শেয়ার করে নিন যাতে তাদের অষ্টমীর সাজ তৈরি করতে গিয়ে কোন সমস্যায় না পড়তে হয়।।

Back to top button