এবার আপনিও বাড়িতে বানাতে পারবেন দারুন স্বাদের চা, রইলো পারফেক্ট চা বানানোর সহজ পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- চা এমন একটি পানীয় যা সকল বয়সের মানুষ কিন্তু অত্যন্ত পছন্দ করে থাকেন। তবে বহু মানুষ কিন্তু এমন রয়েছেন যারা পারফেক্টভাবে চা বানানোর পদ্ধতি জানেন না। তাই আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমরা সেই সমস্ত মানুষদের উদ্দেশ্যে পারফেক্ট চা বানানোর একটি পদ্ধতির শেয়ার করে নেব যা সকলেরই অত্যন্ত কাজে লাগতে চলেছে। সুতরাং চলুন আর দেরি না করে আমাদের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। প্রসঙ্গত সকাল থেকে শুরু করে রাত, সুখ থেকে শুরু করে দুঃখ কিছুতেই এই চা আমাদের সঙ্গ ছাড়তে চায় না। তাহলে আমরা এবার চাকে কিভাবে ছেড়ে দিই?

  • পারফেক্ট চা বানানোর বিশেষ পদ্ধতি:

চা বানানোর জন্য আমাদের সর্বপ্রথমেই কয়েকটি উপকরণ একত্র করে নিতে হবে। এই উপকরণ গুলি একত্র না করলে কিন্তু আমরা কখনোই পারফেক্ট ভাবে চা বানাতে পারবো না।
এক কাপ চা তৈরিতে যা লাগবে –
পানি – দেড় কাপ (মেজারমেন্ট কাপের)
চা পাতা – এক টেবিল চামচ (সামান্য উঁচু করে)
গুড়া দুধ – এক টেবিল চামচ (কম বেশি লাগতে পারে)
( লবঙ্গ, এলাচ- একটা করে দারুচিনি, আদা-ছোট এক টুকরো করে, অথবা শুধু এলাচ) অপশনাল।
এগুলো দিয়ে বানালে দারুন স্বাদ হয়।

  • প্রস্তুত প্রণালী :

চা প্রস্তুত করার জন্য প্রথমেই একটি পাত্রের মধ্যে আপনাদের ভালো করে জল গরম করে নিতে হবে। এবারে এর মধ্যে চা পাতা দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিতে হবে। এই সময় গ্যাসের আঁচ মাঝামাঝি রাখার চেষ্টা করবেন। গ্যাসের আঁচ কিন্তু এই সময় হাই ফ্লেমে রাখবেন না এতে খুব তাড়াতাড়ি জল শুকিয়ে যাবে। যার ফলস্বরূপ চায়ের স্বাদ নষ্ট হয়ে যেতে পারে।এই ফাঁকে কাপে স্বাদ মতো চিনি আর গুঁড়ো দুধ মিক্স করে নিতে হবে।

সব সময় পরিমাণ ঠিক রাখার চেষ্টা করবেন কারণ পরিমাণ যদি এদিক-ওদিক হয় সেক্ষেত্রে কিন্তু চায়ের স্বাদ হেরফের হয়ে যায়। এবারে চায়ের পাতা ফুটে গেলে সেই লিকার আপনাদের কাপে ঢেলে নিতে হবে। যদি আপনি আস্ত মসলা দিয়ে চা বানাতে চান সেক্ষেত্রে কিন্তু শুরুতেই আপনাদের সমস্ত কিছু দিয়ে দিতে হবে। আবার আপনারা যদি পুরো কাপ ভর্তি করে চা খেতে চান সেক্ষেত্রে এক কাপ চায়ের জন্য মোটামুটি আপনাদের দুই কাপ পরিমাণ জল নিতে হবে।

এরমধ্যে চা পাতা, চিনি এবং গুঁড়ো দুধের পরিমাণও কিন্তু আপনাদের বাড়িয়ে দিতে হবে। ঠিক একই রকম পদ্ধতিতে আপনারা কিন্তু দুধ ছাড়া পারফেক্ট লিকার চাও তৈরি করে নিতে পারেন। আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা কিন্তু অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না। এই ধরনের আরো টিপস সম্পর্কে জানতে হলে আমাদের পরবর্তী প্রতিবেদন গুলির উপর নজর রাখতে পারেন।

Back to top button