একদম অল্প খরচে বাড়িতেই খুব সহজ এই পদ্ধতিতে করুন মেকআপ, দেখতে লাগবে দারুণ সুন্দর!

নিজস্ব প্রতিবেদন: সামনেই রয়েছে দীপাবলি এবং কালীপুজো। বিজয়া দশমী পেরিয়ে যাবার পরে দীপাবলি এবং কালীপুজোর দিকেই তাকিয়ে রয়েছে আম বাঙালি। তবে এমন বহু মানুষ রয়েছেন যারা হয়তো বৃষ্টির কারণে পুজোর সময় ভালোভাবে আনন্দ করতে পারেননি। তাই স্বাভাবিকভাবেই এখন ভরসা কালীপুজো। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই একটি বিশেষ মেকআপ টিউটোরিয়াল শেয়ার করতে চলেছি যা খুব সহজেই আপনারা কালীপুজোর সময় ট্রাই করে দেখতে পারেন।

কমবেশি অনেকেই কিন্তু স্টেপ বাই স্টেপ ভালোভাবে মেকাপ করতে জানেন না।যার ফলস্বরূপ তাদেরকে অসুবিধার মুখোমুখি করতে হয়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই সামান্য কয়েকটি জিনিস ব্যবহার করে আপনাদের সাথে মেকআপ টিউটোরিয়াল শেয়ার করে নেব। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে এটা আপনারা করতে পারবেন!

দীপাবলি এবং কালীপূজো স্পেশাল মেকআপ টিউটোরিয়াল:

১) প্রথমেই কিন্তু আপনাকে মেকআপ করার আগে ভালো করে নিজের স্কিন রেডি করে নিতে হবে। তার জন্য আপনারা ব্যবহার করতে পারেন অ্যারোমা স্কিন টোনার। যদি এই কোম্পানির স্ক্রিন টোনার আপনাদের কাছে না থাকে সে ক্ষেত্রে আপনারা নিজেদের ব্যবহৃত টোনারও কিন্তু এখানে লাগাতে পারেন। এরপর আপনাদের ব্যবহার করতে হবে নিভিয়া কোম্পানির একটি সফট ময়শ্চারাইজার ক্রিম।

মশ্চারাইজার ক্রিম ব্যবহার করার পরে আপনাদের ত্বকের উপর লাগিয়ে নিতে হবে প্রাইমার। যদি আপনাদের কাছে প্রাইমার না থাকে সেক্ষেত্রে বিকল্প হিসেবে কিন্তু অ্যালোভেরা জেল ব্যবহার করতে পারেন। প্রাইমার ছাড়াও মেকআপ করা যেতে পারে তবে এটি ব্যবহার করলে মেকআপ দীর্ঘ সময় পর্যন্ত ভালোভাবে থাকে। ঠোঁটে মশ্চারাইজার বজায় রাখার জন্য আপনারা কিন্তু লিপ বাম অবশ্যই ব্যবহার করে নিতে ভুলবেন না।

২) প্রাইমার লাগানোর পরে আপনাদের ব্যবহার করতে হবে ল্যাকমি ফাউন্ডেশন। এটা এমন একটি ফাউন্ডেশন যা খুব সহজেই কিন্তু আপনার মেকআপকে একটা অসাধারণ টাচ দেবে ‌। এরপর ভালোভাবে বিউটি ব্লেন্ডারের সাহায্যে ফাউন্ডেশন ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এরপর আপনাদের ডার্ক সার্কেল দূর করার জন্য ব্যবহার করতে হবে কন্সিলর। যদি আপনাদের কাছে কনসিলার না থাকে সেক্ষেত্রে হাতের সামান্য ফাউন্ডেশন নিয়ে সেখানে সামান্য ট্যালকাম পাউডার যোগ করে দিন।

এবার এই দুটি জিনিস মিশিয়ে নিলেই কিন্তু সেটা কনসিলারের কাজ করবে। আবার একই রকম ভাবে এটাকেও আপনাদের স্কিনে ব্লেন্ড করে নিতে হবে। এরপর মেকআপ সেট করার জন্য আপনাদের ব্যবহার করতে হবে ল্যাকমি কোম্পানির কম্প্যাক্ট পাউডার। চাইলে আপনারা অন্য কম্প্যাক্ট পাউডার ও ব্যবহার করতে পারেন। এরপর পরবর্তী স্টেপে আপনাদের শুরু করতে হবে আই মেকআপ। শুরুতেই ভালো করে আইব্রো কম্ব করে নিতে হবে।

তারপর একটি আইব্রো পেন্সিল নিয়ে ভালো করে এটাকে ড্র করে নিন। চেষ্টা করবেন ডার্ক ব্রাউন বা বাদামি ধরনের কোন কালার ব্যবহার করার তাহলে কিন্তু আইব্রো দেখতে অনেকটাই ন্যাচারাল লাগবে। যদি আপনাদের কাছে আলাদা করে শ্যাডো প্যালেট না থাকে সেক্ষেত্রে লিপস্টিক আপনারা কিন্তু সহজেই শ্যাডো হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

৩) এরপর আপনাদের ভালো করে নিজেদের পছন্দমত আইলাইনার দিয়ে আই মেকআপ সম্পূর্ণ করতে হবে। যদি আপনাদের কাছে আলাদা করে মাসকারা না থাকে সেক্ষেত্রে কিন্তু আইলাইনার ও মাসকারা হিসেবে আপনারা ব্যবহার করতে পারেন। মেকআপে একটু ভিন্ন ধরনের লুক নিয়ে আসার জন্য আপনারা অবশ্যই চোখে কাজল ব্যবহার করতে ভুলবেন না।

ব্লাশার হিসেবে আপনারা কিন্তু বিকল্প লিপস্টিক ব্যবহার করতে পারেন। মেকআপ সম্পূর্ণ করার জন্য সবশেষে আপনাদের ব্যবহার করতে হবে হাইলাইটার নাকের উপরে এবং গালে একেবারে দুই ধারে এই হাইলাইটার দিয়ে আপনারা কিন্তু ভালোভাবে মেকআপ হাইলাইট করে নেবেন। লিপস্টিক পড়ার আগে অবশ্যই একবার লিপ লাইনার ব্যবহার করে ড্র করতে ভুলবেন না। তারপরে পছন্দ মতন লিকুইড বা ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করে ফিনিশিং টাচ দিয়ে দিন।

Back to top button