বাসি নেতিয়ে যাওয়া পটেটো চিপস ফের আগের মতো হবে মুচমুচে, রইলো ৪টি দুর্দান্ত কার্যকরী টিপস

নিজস্ব প্রতিবেদন: পটেটো চিপস বা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই এমন একটি খাবার যা মুখরোচক খাবার হিসেবে মানুষের মধ্যে কিন্তু বিশেষভাবে পরিচিত। তবে খাবারটি খেতে সুস্বাদু হলেও এটির বিশেষ কিছু সমস্যা রয়েছে। অন্যান্য অনেক খাবারের মতন কিন্তু এটাকে দীর্ঘদিন ধরে কোনভাবেই খাওয়া যায় না বা সংরক্ষণ করে রাখা যায় না। অল্প কয়েকদিন রেখে দিলেই দেখা যায় চিপস বা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই কিন্তু একেবারে নেতিয়ে গিয়েছে।

প্রতিবার নতুন করে তাই হয়তো বাজার থেকে ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বা চিপস কিনে নিয়ে আসতে হয়। তবে পাঠকদের উদ্দেশ্যে জানিয়ে রাখি,এতো ঝামেলা করার চাইতে কিছু কৌশল খাটিয়ে সহজেই চিপস ও ফ্রেঞ্চ ফ্রাই বহুদিন পর্যন্ত মচমচে রাখা যেতে পারে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তা নিয়েই আপনাদের সঙ্গে আলোচনা করতে চলেছি। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

১) ময়েশ্চার বের করে নিন:

প্রধানত ময়েশ্চারের কারণেই চিপস বা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই অল্প সময়ের মধ্যে নেতিয়ে যেতে পারে। তাই দীর্ঘ সময় ধরে এটাকে মচমচে রাখতে চাইলে আপনাদের কিন্তু প্রথমেই এর ময়েশ্চার বের করে নিতে হবে। আলুর ময়েশ্চার বা জলভাব দূর করার জন্য আপনাদের কয়েকটি উপায় অবলম্বন করতে হবে।

1. ঘরে বানানো চিপস যতদূর সম্ভব ঠান্ডা করে নিতে হবে। পুরোপুরি এয়ার টাইট করে রাখার কিন্তু দরকার নেই। হালকাভাবে চিপস রেখে দিলেই হবে। যখন রি-হিট করবেন তখন যেন চিপস সম্পূর্ণ শুকনো থাকে সেটা বিশেষভাবে লক্ষ্যণীয়।

2. চিপসের নরম স্যাঁতসেঁতে ভাব কমানোর জন্য কিচেন টাওয়েল দিয়ে হালকা চেপে চিপসগুলো শুকিয়ে নিন। অথবা লবণ মাখিয়ে কিছুক্ষণ রাখতে পারেন জল বের করার জন্য।

3.সবশেষে বলবো ফ্রিজে চিপস না রেখে আপনারা কিন্তু রুম টেম্পারেচারেই এটাকে সংরক্ষণ করতে পারেন। তাহলে কিন্তু চিপস একেবারে শুকনো অবস্থায় থাকবে এর মধ্যে কোন রকমের জল প্রবেশ করবে না।

২)ফ্রাইপ্যানে রি-হিট করুন :

চিপস যদি নেতিয়ে গিয়ে থাকে তাহলে সেটাকে পুনরায় ঠিক করার জন্য আপনারা সেটাকে উচ্চতাপে ভেজে নিতে পারেন।এক্ষেত্রে কাস্ট আয়রন বা ঢালাই লোহার ফ্রাইপ্যান নিতে হবে। এবারে খুব সামান্য পরিমাণে তেল দিতে হবে। যদি আপনারা তেল ব্যবহার করেন সেক্ষেত্রে প্যানে চিপস পুড়ে যাবে না আবার মচমচে স্বাদও ফিরে আসবে। প্যানে তেল ভালোমতো ব্রাশ করে নিন। তারপরে মিডিয়াম হিটে প্যান গরম করুন।

প্যান ভালোভাবে গরম হয়ে আসলে এর মধ্যে চিপসগুলিকে দিয়ে দিন এবং ভালোভাবে গরম করে নিন। তবে গরম করার সময় কিন্তু প্যানের মধ্যে একবারে সমস্ত চিপস ঢালবেন না। চেষ্টা করবেন এটাকে যতটা সম্ভব ছড়িয়ে ঢালার। চিপসের একপাশ রি-হিট করা হয়ে গেলে উল্টে অপর পাশটাও রি-হিট করবেন। ভাজার ডিউরেশন ৩০ সেকেন্ডের বেশি কোনমতেই করা যাবে না।

৩) ওভেনের প্রয়োগ:

যদি আপনারা প্যানে চিপস গরম করতে না চান সে ক্ষেত্রে কিন্তু অবশ্যই ওভেন প্রয়োগ করতে পারেন। প্যানে গরম করার সময় চিপস কিন্তু অতিরিক্ত অয়েলি বা ওভারকুক হয়ে যেতে পারে। চিপস ওভেনে গরম করতে চাইলে এটাকে প্রথমেই প্রি হিট করে নিতে হবে। সাধারণত ৩৫০° থেকে ৩৭৫° ফারেনহাইটে প্রি-হিট করতে হয়। এর জন্য আপনারা ওভেনের ম্যানুয়াল দেখে নিতে পারেন যাতে সঠিক পরিমাপ বুঝতে পারেন।বেকিং ট্রে তে শীট বিছিয়ে নিন। চাইলে সামান্য তেল ব্রাশ করে নিতে পারেন, তবে না দিলেও চলে।

ওভেন প্রি-হিট হওয়ার সময়ে শীটসহ ট্রে টা ওভেনে দিয়ে দিন। শীট গরম হয়ে গেলে আপনাকে এর উপরে চিপস ছড়িয়ে দিতে হবে। তবে এই ক্ষেত্রেও কিন্তু একবারে সমস্ত চিপস দেবেন না যতটা সম্ভব ছড়িয়ে ছিটিয়ে দেবেন। প্রসঙ্গত বেকিং শীটের বদলে ওভেন-প্রুফ বাটিতে করেও চিপস গরম করতে পারেন। ওভেন প্রি-হিট করে চিপস ৫-১০ মিনিট গরম করুন। আলুর ভেতরে থাকা সমস্ত ময়েশ্চার উড়ে যাবে এবং চিপস কিন্তু সম্পূর্ণ মচমচে হয়ে যাবে।

৪)মাইক্রোওয়েভে রি-হিট করুন:

চিপস মচমচে করার জন্য বা গরম করার জন্য কিন্তু আপনারা ওভেনের পরিবর্তে মাইক্রোওয়েভ ব্যবহার করতে পারেন। তবে যাদের কাছে মাইক্রোওয়েভ নেই তাদের কিন্তু এই ক্ষেত্রে সমস্যা হবে। সুতরাং মাইক্রোওয়েভ না থাকলে আপনারা বিকল্প পদ্ধতি ট্রাই করে দেখতে পারেন ।ইলেকট্রিক ওভেনের চাইতে মাইক্রোওয়েভ ওভেনে চিপস রি-হিট করতে অনেক কম সময় লাগে। যদি আপনি ফ্রিজে চিপস রেখে থাকেন সেক্ষেত্রে কিন্তু গরম করার আগে প্রথমেই আপনাদেরকে এটাকে বের করে ১৫ থেকে কুড়ি মিনিট সময় রুম টেম্পারেচারে রেখে দিতে হবে।

তারপর এটিকে গরম করার জন্য মাইক্রোওয়েভ-সেফ প্লেটে পেপার টাওয়েল বিছিয়ে নিন। তারপর টাওয়েলের উপর এক পরত চিপস ছড়িয়ে দিন। এরপর চিপসের উপরে কিছুটা পরিমাণে অলিভ অয়েল বা ভেজিটেবল অয়েল ছড়িয়ে দিন। এভাবে তেল ঝরিয়ে দিলে কিন্তু খুব সহজেই আপনার চিপস মচমচে হয়ে উঠবে। চিপস বিছানোর পরে প্লেটটা মাইক্রোওয়েভে দিয়ে হাই হিটে ২০ সেকেন্ড গরম করুন। একপাশ গরম হলে বের করে উল্টে দিন এবং পুনরায় ২০ সেকেন্ড গরম করুন।

যতক্ষণ না পর্যন্ত উভয় পাশ গোল্ডেন ব্রাউন কালারের এবং মচমচে হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত এভাবে গরম করে যান। যেহেতু এটা গরম অবস্থায় থাকবে তাই খুব সাবধানে নামিয়ে কিন্তু পরিবেশন করবেন। বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে,মাইক্রোওয়েভে টানা ১ মিনিট ধরে চিপস গরম করলে একপাশ শুধু গরম হয়ে পুড়ে যায়। তাই ২০ সেকেন্ড টাইম লিমিটে উভয় পাশ গরম করা উচিত। মাইক্রোওয়েভ ওভেনে চিপস গরম করলে কিন্তু একটা বড় সুবিধা হচ্ছে এটাকে আগে থেকে কোনরকম প্রি হিট করার প্রয়োজন হয় না।

এতে যেমন সময়ের সাশ্রয় হয়, ঠিক তেমনভাবেই কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। তবে যদি আপনারা ফ্রেঞ্চ ফ্রাই গরম করতে চান সেক্ষেত্রে ক্রিস্পার প্যান প্রি-হিট করে ব্যবহার করতে হবে। প্রথমে মাইক্রোওয়েভে ক্রিস্পার প্যান ৩-৪ মিনিট ধরে প্রি-হিট করুন। তারপর হালকা করে অলিভ অয়েল বা ভেজিটেবল অয়েল ছড়িয়ে যে রকম ভাবে চিপস গরম করে মচমচে করে তুলেছিলেন ঠিক একই রকম ভাবে ফ্রেঞ্চ ফ্রাইকেও গরম করে নিতে হবে।

Back to top button