ফ্রিজে রাখা রুটি যেভাবে নরম ও তুলতুলে রাখবেন, জেনে নিন

নিজস্ব প্রতিবেদন : এমন অনেক মানুষ রয়েছেন যাদের দুবেলা রুটি ছাড়া কিছুতেই চলে না। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই কি হয় ব্যস্ততার কারণে দিনে বার দুয়েক রুটি বানানোর সময় থাকে না। এবার যদি আপনারা রুটি তৈরি করে ফ্রিজে রেখে দেন তাহলে কিন্তু রুটি শক্ত হয়ে যাবে।

এমনকি ফ্রিজে রাখার পরে কিছু সময় রুটি এতটাই শক্ত হয়ে যায় যে তা আর খাওয়ার মতন অবস্থায় থাকে না।। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা সেই সমস্যারই সমাধান করতে চলেছি। চলুন আর দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক কিভাবে আপনারা ফ্রিজে দীর্ঘদিন পর্যন্ত নরম অবস্থায় রুটি সংরক্ষণ করে রাখতে পারবেন।। বিস্তারিত জানতে কিন্তু আমাদের এই প্রতিবেদনটি মনোযোগ সহকারে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত ভালো করে পড়ে নেবেন।

  • ফ্রিজে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত রুটি নরম রাখার উপায়—

১) রুটি দীর্ঘ সময় নরম রাখার জন্য আপনাদের কিন্তু অবশ্যই আটা মাখার সময় সামান্য পরিমাণে তেল ব্যবহার করতে হবে। এভাবে আটা মেখে নিলে দীর্ঘ সময় পর্যন্ত নরম থাকবে এবং রুটি তৈরি করার পর তা সংরক্ষণে সুবিধা হবে।

২) রুটি তৈরি করার পর তা হালকা করে সেকে নিতে হবে।টেবিলে বড় করে পত্রিকা বিছিয়ে সেঁকে নেয়া রুটিগুলো বিছিয়ে শুকিয়ে নিন। এরপরে জিপলক ব্যাগ বা এয়ার টাইট বক্সে ভরে ফ্রিজে রেখে দিন। দেখবেন খুব সহজে কিন্তু রুটি শক্ত হয়ে যাবে না।

৩) রুটি খাওয়ার আগে অবশ্যই ভালো করে সেকে নেবেন। এতে রুটির স্বাদ কিন্তু ভালো অবস্থায় থাকে। ছুটির দিনে বেশি করে রুটি বানিয়ে রাখুন এবং আগের তৈরি রুটি গুলি খেয়ে নিন। নতুন করে বানিয়ে রাখা রুটি আবার আপনারা বেশ কিছুদিন পর্যন্ত উপরিউক্ত পদ্ধতিতে সংরক্ষণ করে নিতে পারেন।

সবশেষে বলবো রুটি তৈরি করার কিছু পারফেক্ট পদ্ধতি রয়েছে। এই পদ্ধতিগুলিতে আপনারা যদি রুটি না তৈরি করতে পারেন তাহলে কিন্তু অসুবিধা হবে।রুটির আটা মাখার সময় তাতে সামান্য গরম জল ব্যবহার করুন। তারপর সেই জল দিয়ে ভালো করে আটা মাখুন। চাইলে আটার সঙ্গে সামান্য তেলও মেশাতে পারেন।আটা মাখার সঙ্গে সঙ্গে তা দিয়ে রুটি তৈরি করবেন না। বরং একটা বাটিতে মাখা আটা রেখে তা প্লেট দিয়ে ঢেকে রাখুন। ১০-১৫ মিনিট পর লেচি তৈরি করুন।

অনেকেই আছে রুটি বেলার সময় খুব বেশি পরিমানে শুকনো আটা ব্যবহার করেন। সেক্ষেত্রে রুটি তাওয়ায় সেঁকতে দেওয়ার আগে রুটির গায়ে লেগে থাকা শুকনো আটা ভালো করে ঝেড়ে নিন। খুব গরম তাওয়ায় রুটি না সেঁকাই ভালো। আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা কিন্তু অবশ্যই জানাতে ভুলবেন না। এই ধরনের আরো বিশেষ টিপস পেতে হলে আমাদের পরবর্তী লেখাগুলির উপর নজর রাখতে পারেন।

Back to top button