ভিলফুডে ঠাকুমার তৈরি চিতল মাছের মুইঠার স্বাদ নিতে মুম্বাই থেকে ছুটে এলেন ‘কপিল শর্মা শো’ খ্যাত সুমনা, রইলো ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন: রসনার টানে  মুম্বাই থেকে বীরভূমে এসে হাজির হয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী সুমনা চক্রবর্তী। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য সম্প্রতিক কয়েকদিন আগেই একটি ইউটিউব চ্যানেলের দৌলতে ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছেন পুষ্পরানি সরকার নামের এক ঠাকুমা। জানা যাচ্ছে এই ঠাকুমার হাতের চিতল মাছের মুইঠ্যা খাওয়ার জন্যই সুদূর মুম্বাই থেকে এতদূর এসেছেন সুমনা।

প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়ার আগে সুমনা চক্রবর্তীর সামান্য কিছু পরিচয় দিয়ে দেওয়া যাক। প্রধানত ‚‘দ্য কপিল শর্মা শো’ এর মাধ্যমেই পরিচিতি, লাভ করেছেন সুমনা। তবে এছাড়াও বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকে কিন্তু দেখা গিয়েছে এই অভিনেত্রীকে। জন্মসূত্রে বাঙালি হলেও পেশাগত কারণে বর্তমানে মুম্বাইতেই থাকেন তিনি।।

‘দ্য কপিল শর্মা শো’ ছাড়াও ‘বড়ে আচ্ছে লাগতে হ্যায়’,‘কসম সে’,‘কস্তুরী’,‘জামাই রাজা’ প্রভৃতি ধারাবাহিকে বেশ দক্ষতার সাথেই কিন্তু অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে তাকে। অল্প সময়ের মধ্যেই নিজের সহজ আর সাবলীল অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছিলেন এই সুমনা।

শুধুমাত্র ছোট পর্দা তেই নয় বড় পর্দাতেও নিজের প্রতিভার ছাপ রেখেছেন অভিনেত্রী। ‘ফির সে’ (Phir Se) , ‘কিক’(Kick) ,’বরফি’ (Barfi) প্রভৃতি সিনেমায় পার্শ্বচরিত্রে তাঁর অভিনয় খুব কম মানুষই হয়তো এখনো ভুলতে পেরেছেন। তবে যতই বিদেশ বিভূঁইয়ে হয়ে থাকুন না কেন বাংলার টান কিন্তু এখনও মন থেকে সম্পূর্ণরূপে মুছে ফেলতে পারেননি অভিনেত্রী।

ঠাকুমা পুস্পরানীর ‘ভিলফুড’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল রয়েছে। সেখানে দেখেই চিতল মাছের মুইঠ্যার রেসিপি খাওয়ার জন্য বীরভূমে চলে এসেছিলেন সুমনা।দেশের গণ্ডির বাইরে বিদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে এই চ্যানেলের জনপ্রিয়তা। ২০১৭ সালে সুদীপ সরকারের হাত ধরেই পথ চলা শুরু হয়েছিল চ্যানেলটির।

৮২ বছর বয়সী পুস্পরানী তাঁর বৌমা কবিতা এবং নাতবৌ লিমুর সাহায্যে প্রতিদিনই নিত্যনতুন পদ রান্না করে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই এহেন মানুষের রান্না খেতে যে একজন সেলিব্রিটি আসতেই পারেন তাতে কোন সন্দেহ নেই। যারা সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকেন তারা কিন্তু কমবেশি সকলেই পুষ্পরানি ঠাকুমাকে চিনবেন।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে উঠে এসেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে,সুমনা আর পাঁচটা সাধারণ গ্রাম্য বাঙ্গালীর মত মাটিতে কলাপাতায় ভাতের সাথে তৃপ্তি করে খেয়েছেন চিতল মাছের মুইঠ্যা। রান্নার প্রশংসা করার পাশাপাশি জমিয়ে গল্পও করলেন বাকিদের সাথে। পাশাপাশি অভিনেত্রী আজ প্রথমবার জানতে পারলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এটা অত্যন্ত পছন্দের পদ ছিল। এতে যেন তার খুশি আরো কয়েকগুণ বেড়ে গিয়েছে।

তবে শুধুমাত্র এই ঠাকুমার হাতের রান্না খেতে নয় নিজের নতুন শো এর প্রচার করার জন্য ও বাংলায় এসেছিলেন সুমনা। আসলে খুব শীঘ্রই শুরু হতে চলেছে জি জেস্ট (Zee Zest)-এর ‘সোনার বেঙ্গল’(Shonar Bengal) নামে একটি অনুষ্ঠান। এই অনুষ্ঠানটিতে সঞ্চালিকার ভূমিকায় দেখা যাবে সুমনাকে। তাই পুষ্পরানী ঠাকুরমার হাতের রান্না খাওয়ার পাশাপাশি এই সুযোগে তিনি শো এর প্রচারকাজও টুক করে সেরে ফেলেন।

Back to top button