সর্দি-কাশি হলে একবার বানিয়ে দেখুন এই উপকারী রেসিপি, নিমেষেই ফেরত আসবে মুখের রুচি

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভারতের মতো নাতিশীতোষ্ণ জলবায়ুর দেশে সর্দি কাশি এবং জ্বর হওয়াটা খুবই স্বাভাবিক বিষয়। সর্দি কাশি হলে সবথেকে বড় যে সমস্যাটা আমাদের হয়ে থাকে তাহলে মুখের রুচি হারিয়ে যাওয়া। অনেকেই হারানো মুখের রুচি ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য নানান ধরনের ওষুধ খেয়ে থাকেন।

আবার অনেকেই ট্রাই করেন কিছু মুখরোচক খাবার। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা পাঠক বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি একদম দুর্দান্ত রেসিপি যেটা সাহায্যে খুব সহজেই আপনারা মুখের রুচি আগের মতন ফিরিয়ে নিয়ে আসতে পারবেন।

এটি তৈরি করার জন্য একটা বড় সাইজের গাজরকে মিডিয়াম টুকরো করে কেটে নিন। সাথে নিয়ে নেবেন তিনটি মিডিয়াম সাইজের আলুর টুকরো, দুটো মিডিয়াম সাইজের পেঁয়াজের টুকরো, কিছুটা পরিমাণ বিন্স, সামান্য পরিমাণে রসুন এবং আদা কুচি। এগুলো ছাড়াও আপনাকে নিয়ে নিতে হবে 600 গ্রাম পরিমাণ চিকেন এবং গোবিন্দ ভোগ চাল।

চায়ের কাপের দেড় কাপ পরিমাণে গোবিন্দ ভোগ চাল নেবেন। চার থেকে পাঁচ বার চালটাকে জল বদলে ধুয়ে নেওয়ার পরে গ্যাসে একটা কুকার বসিয়ে তাতে কিছুটা পরিমাণ বাটার দিয়ে দিন। বাটার গলে গেলে এর মধ্যে সামান্য পরিমাণে ছোট এলাচ, ছোট টুকরো করে থেঁতো করে নেওয়া দারচিনি, কয়েকটা থেঁতো করে নেওয়া লবঙ্গ, ১৫ টা থেতো করে নেওয়া গোলমরিচ এবং তেজপাতা দিয়ে দিন। একটু নাড়াচাড়া করে এই মিশ্রণের মধ্যে দিয়ে দেবেন আন্দাজ মতো থেঁতো করে নেওয়া রসুন এবং থেঁতো করে নেওয়া আদা।

এবার পেয়াজ ,আলু,গাজর সহ যেগুলোকে বড় টুকরো করে কেটে রেখেছিলেন সেগুলো কেউ এই মিশ্রণের মধ্যে যোগ করবেন। গ্যাসের ফ্লেম মিডিয়ামে করে সবজিগুলো যোগ করার পর আপনাকে মিনিট দু এক সময় ভেজে নিতে হবে। সবজিগুলো এভাবে নাড়াচাড়া করে মাংসের টুকরো গুলোকেও হাই ফ্লেমে চার মিনিট এর সঙ্গে মিশিয়ে নেবেন।।

কিছুক্ষণ কষিয়ে নেওয়ার পরে যখন মাংসের রং পরিবর্তিত হয়ে যাবে তখন এতে যোগ করে দিন স্বাদমতো লবণ এবং আগে থেকে ধুয়ে জল ঝরিয়ে রাখা গোবিন্দভোগ চাল। চালের সাথে সমস্ত উপকরণগুলোকে এবার মিশিয়ে নিন। চাল ভালোভাবে মেশানো হয়ে গেলে এর মধ্যে পরিমাণ মতো জল নিয়ে নিন। যেহেতু দেড় কাপ চাল নিয়েছিলেন তাই জল নেবেন আড়াই কাপ।

চারটে কাঁচা লঙ্কা ফাটিয়ে দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে প্রেসার কুকারের ঢাকনা লাগিয়ে গ্যাসের ফ্লেম হাই করে দুটো সিটি দিয়ে নেবেন। দুটো সিটি দেওয়া হয়ে গেলে এটাকে নামিয়ে একটু মিশিয়ে নিয়ে সহজেই আপনারা পরিবেশন করতে পারেন। একবার অবশ্যই বাড়িতে এভাবে বানিয়ে দেখবেন। মুখের রুচির পরিবর্তন আপনারা নিজেরাই বুঝতে পারবেন।

Back to top button