“নিজের ক্ষমতায় ফ্লপ ছবি হিট করিয়ে সেই লাভের টাকাই বিএমডব্লিউ কিনতে পারতাম”, নিজের ফ্লপ ছবি নিয়ে বিস্ফোরক শাহরুখ

নিজস্ব প্রতিবেদন: একজন তারকার জীবনে যেমন সফলতা থাকে, ঠিক তেমনভাবেই থাকে ব্যর্থতা। অত্যন্ত বড় সুপারস্টারের কেরিয়ারের প্রতি লক্ষ্য রাখলেও আপনারা দেখতে পারবেন, যে তাদের যেমন প্রচুর পরিমাণে সফল চলচ্চিত্র রয়েছে ঠিক তেমনভাবেই রয়েছে বেশ কিছু ফ্লপ ছবি। ঠিক এরকমই একজন তারকা হলেন বলিউডের বাদশা শাহরুখ খান। কিং খান কে চেনেন না এরকম মানুষ হয়তো খুব কমই রয়েছেন। তবে আপনারা কি জানেন একটা সময়ে ইন্ডাস্ট্রিতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য তাকে কিন্তু অনেকটাই লড়াই চালিয়ে যেতে হয়েছিল।

২০০১ সালে শাহরুখ খান এবং করিনা কাপুর অভিনীত ‘অশোকা’ ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল। তাবড় তাবড় তারকা থাকা সত্ত্বেও বক্স অফিসে কিন্তু এই ছবিটি সবিশেষ সফলতা অর্জন করতে পারেননি।। সম্প্রতি এই ছবিটি প্রসঙ্গে অভিনেতার শাহরুখ খান মুখ খুলেছেন। এক সাক্ষাৎকারে কিং খান জানান, “আমার ক্ষমতা ছিল যে আমি নিজের পয়সা লাগিয়ে আরও ৫০০টি প্রেক্ষাগৃহে সিনেমাটি চালাতে পারতাম। সেখান থেকে টাকাও আসতে পারত প্রচুর। সেই টাকা দিয়ে আমি খুব সহজেই বিএমডব্লিউ গাড়ি কিনতাম।

কিন্তু আমি তার কিছুই করিনি”। শুধুমাত্র তাই নয় শাহরুখ বলেন, “কোনও ছবির টিকিট বেশি বিক্রি না হলে আমি সেই ছবির লাভের অংশও নিই না। অন্যের টাকা নিয়ে আমি কোনও রকম সুযোগ নিই না’’। অভিনেতা আরো জানিয়েছেন, “ছবি নির্বাচনের সময় আমি লক্ষ্মীকে নয়, সরস্বতীকে অনুসরণ করি। লক্ষ্মী চলেই আসেন। আমি নিজের কাছে প্রতিজ্ঞা করেছি, এমন ছবিতে অভিনয় করব যা বিহারের প্রেক্ষাগৃহেও চলবে, আবার বার্মিংহামের থিয়েটারেও দেখানো হবে”।

আসলে বরাবর থেকেই অভিনেতা নিজের নীতি আর আদর্শ নিয়ে চলতেই পছন্দ করেন। জানিয়ে রাখি, এখনো পর্যন্ত শাহরুখ খানের অভিনীত মোট ছবির সংখ্যা কিন্তু আশির থেকেও অনেক বেশি। ১৯৯২ সালের দিওয়ানা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি ডেবিউ করেছিলেন। প্রথমদিকে বেশিরভাগ ভিলেনের চরিত্রে দেখা গেলেও এরপর থেকে কিন্তু ধীরে ধীরে নায়কের চরিত্রে ও কিং খানের দেখা মিলতে শুরু করে। ১৯৯৫ সালের দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে জায়েঙ্গে সিনেমাটি শাহরুখ খানের কেরিয়ারের একটি মাইলস্টোন হিসেবে পরিচিত।

এই সিনেমায় তার রোমান্টিক অভিনয় সকলের মনেই তার জন্য জায়গা তৈরি করে দেয়। এই ছবিতে শাহরুখ খানের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন কাজল। ভারতীয় সিনেমার ইতিহাসে এই সিনেমাটি প্রায় সমস্ত রেকর্ড ভেঙে দিতে শুরু করেছিল সেই সময়। শাহরুখ খান আর কাজলের কেমিস্ট্রি এই ছবির মাধ্যমেই বলিউডে অত্যন্ত জনপ্রিয় হয়ে যায়। এরপর আর তাকে কিন্তু কখনো পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। এরপর বহু সুপারহিট ছবিতে নিজের প্রতিভার জানান দিয়েছেন শাহরুখ খান।

Back to top button