জলের কলের কালো ময়লা ভাব মাত্র কয়েক মিনিটেই দূর করে চকচকে বানানোর জন্য রইলো এই সহজ ও দুর্দান্ত ট্রিকস

নিজস্ব প্রতিবেদন: আমাদের দৈনন্দিন জীবনে প্রতিদিনের ব্যবহার্য জিনিসগুলির মধ্যে অন্যতম হলো রান্নাঘর। যেহেতু এগুলি সব থেকে বেশি ব্যবহার করা হয়ে থাকে তাই কিন্তু এগুলো খুব সহজেই নোংরা হয়ে যায়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি বাথরুম বা রান্নাঘরের ট্যাপ পরিষ্কার করার বিশেষ পদ্ধতি।

দীর্ঘ সময় পর্যন্ত যদি আপনারা এই ট্যাপ পরিষ্কার না করে থাকেন সেক্ষেত্রে কিন্তু এগুলির উপর একটা জেদি আস্তরণ বা দাগ পড়ে যায় যা অত্যন্ত দৃষ্টিকটু। সাধারণত আয়রনের কারণে এই ঘটনা ঘটে থাকে। শুধুমাত্র জলের কল নয়, আপনারা দেখবেন বালতি এবং বাথরুমের মেঝেতেও অনেক সময় এই ধরনের একপ্রকার জেদি দাগ আপনারা দেখতে পেয়ে যাবেন।।

জলের কলে কোথায় এবং কেন ময়লা জমে থাকে?

জলের কলে কিন্তু অনেক কারণে ময়লা জমে থাকে। প্রথমেই ট্যাপ পরিস্কার করার আগে কিন্তু আপনাদের সেই সমস্ত সমস্যাগুলো জেনে নেওয়া প্রয়োজন।

প্রথমত, জলের কলের মধ্যে সময়ের সাথে সাথে, চুনা আঁশ, ক্যালসিয়াম কার্বনেটের একটি শক্ত খড়ি জমে যায়। ট্যাপের ফিল্টারগুলিতে তা জমা হয়, যার ফলে জলের প্রবাহ ধীর হয়ে যায়।

দ্বিতীয়ত, এক সময় কিন্তু দেখা যায় ট্যাপের মধ্যে জলের শক্ত দাগ জন্মে যায়। ম্যাগনেসিয়াম আর ক্যালসিয়াম জমা হয়ে এই দাগ অত্যন্ত কঠিন হয়ে ওঠে এবং তুলতে গিয়ে কিন্তু বেশ সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়। পাশাপাশি কলের সবচেয়ে বেশি স্পর্শ করা অংশ হওয়ায়, গাঁটটি ময়লা জড়ো করে, যা দীর্ঘদিন থাকলে কিন্তু রীতিমতো দাগ পড়ে যায়।

তৃতীয় কারণ হিসেবে আমরা বলবো,সিঙ্কের সাথে ট্যাপ জয়েন্টেে নোংরা জমে। সিঙ্কেও নোংরা বেশি জমে। একটি অসুবিধাজনক জায়গা যা পরিষ্কার করা কঠিন।

জলের কল বা ট্যাপ পরিষ্কার করার কয়েকটি সহজ উপায়:

১) জলের কল পরিষ্কারে লেবুর ব্যবহার:

লেবু এমন একটি জিনিস যা খুব সহজেই কিন্তু যে কোন জিনিস পরিষ্কার করতে সাহায্য করতে পারে।আপনার কলে জলের চাপ উল্লেখযোগ্য ভাবে কমে যায়, তাহলে সম্ভাবনা রয়েছে যে চুনের আঁশ বাধা সৃষ্টি করছে। অর্ধেক লেবু নিন আর তা কলে ভালো করে লাগিয়ে দিন।

কয়েক ঘন্টার জন্য লেবুর রস লাগিয়ে রেখে দিন। লেবুর মধ্যে থাকা এসিড খুব সহজেই চুনের আঁশকে দ্রবীভূত করে দেবে। মোটামুটি কিছুক্ষণ সময় লেবু বা লেবুর রস লাগিয়ে রাখার পরে আপনারা ৫ থেকে ৬ মিনিট সময় পর্যন্ত টুথব্রাশ দিয়ে এটাকে ঘষে নিতে পারেন তাহলেই কিন্তু জলের কল সম্পূর্ণ পরিষ্কার হয়ে যাবে। চাইলে একটি স্ক্রাবার এর মধ্যে লেবুর রস লাগিয়েও ঘষে নিতে পারেন।

২) জলের কল পরিষ্কার করতে ভিনেগারের ব্যবহার:

আমাদের প্রত্যেকের বাড়িতেই কিন্তু কম বেশি ভিনেগার থাকে। এটা ব্যবহার করেও আপনারা খুব সহজে জলের কল পরিষ্কার করে নিতে পারেন। একটি বাটিতে কিছুটা পরিমাণ জল নিয়ে তাতে সমপরিমাণ সাদা ভিনেগার মিশিয়ে দিন।

তারপর যে কোন স্ক্রাবার বা কাপড় ব্যবহার করে এই দ্রবণের ভিজিয়ে আপনারা কিন্তু সহজেই ঘষে কল পরিস্কার করে নিতে পারেন।যদি আপনার ট্যাপটি নিস্তেজ বা ফ্যাকাসে দেখাতে শুরু করে, তাহলে ভিনেগার এবং একটি নরম কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করে উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনুন। খুবই কার্যকরী একটি টিপস অবশ্যই ট্রাই করতে ভুলবেন না।

৩)ডিশ সাবান এবং জলের দ্রবণ ব্যবহার করে জলের কল পরিস্কার:

ডিশ সাবান আর জলের দ্রবণ একসাথে মিশিয়ে কিন্তু আপনারা খুব সহজেই রান্নাঘরে থাকা কল পরিষ্কার করে নিতে পারেন।।যদি আপনার ট্যাপগুলি পুরানো এবং জীর্ণ দেখাতে শুরু করে তবে এটি ধারাবাহিকভাবে ব্যবহারের ফলে দাগ জমা হওয়ার একটি সাধারণ ঘটনা।

সেই ক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু ডিশ সাবানের সাথে যে জলটি মেশাবেন সেটা কে কিছুটা গরম করে নিতে পারেন। এবার এই দ্রবণের মধ্যে শুকনো কাপড় বা স্ক্রাবার ডুবিয়ে নিয়ে আপনারা খুব সহজেই জলের কল কিন্তু ঘষে পরিষ্কার করতে পারবেন।। অন্ততপক্ষে চার থেকে পাঁচ মিনিট এভাবে ঘষলেই জলের কল সম্পূর্ণরূপে পরিষ্কার হয়ে যাবে।

৪) জলের কল পরিষ্কার করতে বেকিং সোডার ব্যবহার:

বেকিং সোডা কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরেই বিভিন্ন ক্লিনিং এর কাজে আমরা ব্যবহার করে থাকি। বেকিং সোডার মধ্যে সামান্য পরিমাণে জল মিশিয়ে খুব সহজেই সেই দ্রবণ দিয়ে কিন্তু জলের কল ঘষে পরিষ্কার করা যেতে পারে।ট্যাপের গাঁট বা শরীরে নোংরা দাগ অপসারণ করতে এই পদ্ধতি সবথেকে বেশি কাজে দেবে।

বেকিং সোডার সঙ্গে জলের যে দ্রবণ তৈরি হবে সেটাকে একটা কোন পুরোনো টুথব্রাশ এর মধ্যে লাগিয়ে ভালো করে কলে ঘষে নিতে পারেন। তারপর একবার ভালো করে ধুয়ে নিলেই দেখবেন কল একেবারে নতুনের মতন চকচক করছে।

Back to top button