ফ্রিজে জমে যাওয়া তরকারির গ্রেভি গরম করে স্বাদ বজায় রাখার রইলো দুর্দান্ত কার্যকরী টিপস!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের বাড়িতে যে সমস্ত তরকারি রান্না করা হয় সেগুলির গ্রেভি বেঁচে গিয়ে থাকে। কিছু মানুষ রয়েছেন যারা এই গ্রেভি ফেলে দেন আর কিছু মানুষ রয়েছেন যারা এগুলিকে ফ্রিজে সংরক্ষণ করে রেখে দেন যাতে পরবর্তীতে কোন তরকারি রান্না করলে সেখানে ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে ফ্রিজে যদি আপনারা গ্রেভি রেখে দেন তাহলে কিন্তু সেটা অনেকটা জেলির মতন হয়ে যায়। দরকারের সময় এই গ্রেভি ব্যবহার করতে গেলে অনেকটাই সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়।

জেলড হোক বা ফ্রোজেন, ফ্রিজে কোন তরকারির গ্রেভি জমে গেলে তা সঠিকভাবে গরম করতে হবে যাতে স্বাদ বজায় থাকে। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব এই গ্রেভি সঠিকভাবে গরম করার এবং ব্যবহার করার বিশেষ কিছু পদ্ধতি। এই পদ্ধতিগুলি জানা না থাকলে কিন্তু আপনাদের বেশ সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে। তাহলে আসুন আর দেরি না করে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

১) ওভেনে গ্রেভি গরম করার পদ্ধতি:

যদি আপনারা ওভেনে গ্রেভি গরম করতে চান তাহলে আপনাদের অবশ্যই কিছু নিয়ম পালন করতে হবে। এর জন্য প্রথমে ইলেকট্রিক ওভেন ১৮০ ডিগ্রী সেলসিয়াসে (৩৫০ ডিগ্রী ফারেনহাইট) প্রি-হিট করে নিবেন। জমে যাওয়া তরকারির গ্রেভি (জেলির মতো) চামচ দিয়ে ভেঙে টুকরা করে নিবেন। এরপর একটা বেকিং ডিশে গ্রেভির ক্লাম্পগুলো সমান করে ছড়িয়ে দিন। এবারে এই বেকিং ডিশ ভালো করে ফয়েল পেপার দিয়ে আপনাদের মুড়িয়ে দিতে হবে। এরপর ডিশটা ওভেনে দিয়ে ৫-১০ মিনিট গরম করুন, মাঝে একবার বা দুইবার নেড়ে দিবেন। যদি আপনারা গ্রেভি গুলিকে ছোট ছোট টুকরা করে রাখেন তাহলে কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি গরম হয়ে যাবে। এই সময় আপনারা অবশ্যই খেয়াল রাখবেন যাতে গ্রেভি পুড়ে না যায়।

২) মাইক্রোওয়েভ ব্যবহার করে গ্রেভি গরম করার উপায়:

গ্রেভি গরম করার জন্য আপনারা কিন্তু মাইক্রোওয়েভ ব্যবহার করতে পারেন সহজেই। তবে অবশ্যই আপনাকে নির্দিষ্ট কিছু পদ্ধতি অবলম্বন করতেই হবে। এর জন্য প্রথমেই আপনাদের ফ্রিজ থেকে গ্রেভি বের করে একটি চামচের সাহায্যে নেড়ে ভেঙে নিতে হবে।এবারে এটা একটা মাইক্রোওয়েভ-সেফ ডিশে ঢালুন। অবশ্যই খেয়াল রাখবেন এই ডিশ যেন খুব একটা গভীর না হয়। কারণ যদি এটা খুব বেশি গভীর হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে গরম করলে গ্রেভিতে তাপমাত্রা সমানভাবে ছড়াতে পারবে না। ফলে ক্লাম্প থেকে যাবে।

আর প্লাস্টিক বা স্টাইরোফোম ম্যাটেরিয়ালের কোন বাটি বা কন্টেইনার মাইক্রোওয়েভ ওভেনে দিবেন না। ডিশে গ্রেভি ঢালার পরে যদি ডিশের মুখটা প্লাস্টিক র্যাপ দিয়ে মুড়ে দিতে পারেন তাহলে ভালো হয়। তারপর ডিশটা মাইক্রোওয়েভে দিয়ে মিডিয়াম বা মিডিয়াম-লো হিটে প্রথমে ৩০ সেকেন্ড গরম করুন। এবার একবার বাইরে বের করে কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করে নিয়ে পরবর্তীতে আরও ৩০ সেকেন্ড গরম করে নিতে হবে। দেখবেন ধীরে ধীরে গ্ৰেভি লিকুইড হয়ে আসছে এবং ধোঁয়া ছাড়তে শুরু করেছে। প্রতিবার ৩০ সেকেন্ড করে গরম করবেন এবং বের করে নাড়তে থাকবেন। এতে গ্রেভি ক্লাম্পড হয়ে থাকবে না, গরম করা ঠিকমতো হচ্ছে কিনা বোঝা যাবে, আর পুড়েও যাবে না।

৩) ফ্রাইং পান ব্যবহার করে গ্রেভি গরম করার উপায়:

উপরিউক্ত দুটি পদ্ধতির মতন এটাতেও গ্রেভি গরম করতে গেলে আপনাদের নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম পালন করতেই হবে। প্রথমেই একটা মোটা আর ভারী ফ্রাইং প্যান আপনাদের নিয়ে নিতে হবে। লো হিটে প্যানটা গ্যাসে বসিয়ে গ্রেভি নাড়তে থাকুন কাঠের চামচ বা খুন্তি দিয়ে।গ্রেভিতে যদি ছাড়া ছাড়া ভাব থাকে তাহলে হুইস্কার দিয়ে জোরে জোরে হুইস্ক করতে থাকুন। এতে গ্রেভির আগের কনসিসটেন্সি ফিরে আসবে।

হুইস্ক ততক্ষণ পর্যন্ত করতে থাকুন যতক্ষণ না পর্যন্ত গ্রেভি ফুটে উঠছে। যদি গ্রেভি খুব বেশি ঘন হয়ে গিয়ে থাকে সেক্ষেত্রে পাতলা করার জন্য আপনারা স্টক বা দুধ ব্যবহার করে নিতে পারেন। অন্যদিকে খুব বেশি পাতলা হয়ে গেলে কর্নস্টার্চ দিয়ে দিবেন। তবে কর্নস্টার্চ দেয়ার পরে ভালো করে নাড়তে থাকুন ফুটে উঠা পর্যন্ত। নাহলে কর্নস্টার্চ গ্রেভিকে আবার জমিয়ে ফেলবে। তবে ফ্রাইং প্যানে গ্রেভি গরম করার সময় কিন্তু ক্রমাগত নাড়তে ভুলবেন না। নয়তো এটা পুড়ে গিয়ে প্যানের সাথে লেগে যেতে পারে।

৪) কড়াইতে গ্রেভি গরম করার উপায়:

সহজ পদ্ধতিতে কিন্তু আপনারা বাড়িতে থাকা কড়াই ব্যবহার করেও এই গ্রেভি গরম করে নিতে পারেন। এই পদ্ধতি ফ্রাইং প্যানের থেকেও অনেকটাই নিরাপদ বলা যায়। সাধারণ কড়াই বা কুকিং পটে গ্রেভি নরম করলে পুড়ে যাওয়ার ভয় থাকে না। এই পদ্ধতিতে গ্রেভি গরম করতে হলে আপনাকে একটা কড়াই ২ ইঞ্চি পরিমাণ জলপূর্ণ করে নিতে হবে।

তারপর এটা গ্যাসে দিয়ে জলে বলক আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এবারে একটা বাটির মধ্যে আপনাদের ফ্রিজ থেকে জমাট বেঁধে যাওয়া গ্রেভি বের করে নিয়ে নিতে হবে। জলে বলক আসলে গ্রেভির বাটিটা মাঝখানে বসিয়ে দিন৷ খেয়াল রাখবেন যেন কড়াইয়ের জল গ্রেভির বাটিতে না ঢোকে। এবারে অল্প আঁচে গ্রেভি নাড়তে থাকুন। দেখবেন ধীরে ধীরে এটা কিন্তু গলে যাচ্ছে।

৫) বরফ হয়ে যাওয়া গ্রেভি নরম করার উপায়:

অনেকেই কিন্তু পরবর্তীতে ব্যবহার করার জন্য সংরক্ষণ করতে গিয়ে গ্রেভি ডিপ ফ্রিজে রেখে দিয়ে থাকেন। তখন এই গ্রেভি কিন্তু প্রায় বরফ হয়ে যায়। এটা নরম করার জন্যেও বিশেষ কিছু উপায় রয়েছে। তার জন্য প্রথমেই ডিপ ফ্রিজ থেকে আপনাদের গ্রেভি বের করে নিতে হবে। এরপর প্রথমে মাইক্রোওয়েভে গলিয়ে নিতে হবে। প্রয়োজনমতো গ্রেভির খন্ড একটা অগভীর মাইক্রোওয়েভ-সেফ ডিশে ঢেলে নিন।

তারপর এটাকে প্রথমে লো হিটে ৩০ সেকেন্ড গরম করুন। বের করে ফ্রোজেন গ্রেভি চামচ দিয়ে যতটা পারবেন ভেঙে দিন। গ্রেভি যতক্ষণ পর্যন্ত শক্ত থাকবে ততক্ষণ পর্যন্ত কিন্তু আপনাদের একবার করে বের করে ৩০ সেকেন্ড করে গরম করে নিতে হবে। গলানোর সময়ে ডিশটা মাইক্রোওয়েভ-সেফ প্লাস্টিক র্যাপ বা ভেজা পেপার টাওয়েল দিয়ে ঢেকে দিবেন। এতে তাপ বাইরে বেরোতে পারবে না, গ্রেভি ঠিকভাবে গরম হবে, আবার গ্রেভি ছিটকে বাইরেও পড়বে না।

যখন গ্রেভি ধীরে ধীরে গলে আসবে সেই সময় পুনরায় হাই হিটে গরম করতে থাকুন যাতে মাইক্রোওয়েভ ওভেনের ইন্টার্নাল টেম্পারেচার ৭৪ ডিগ্রী সেলসিয়াস (অথবা ১৬৫ ডিগ্রী ফারেনহাইট) তাপমাত্রায় পৌঁছায়। এই সময় আপনাদের গ্রেভির কনসিসটেন্সি চেক করে নিতে হবে। যদি মনে হয় একটু পাতলা করতে হবে সেক্ষেত্রে সামান্য দুধ বা চিকেন ব্রোথ দিয়ে দিবেন রি-হিট করার আগে।ফ্রোজেন গ্রেভি লো হিটে ডিফ্রস্ট করতে সাধারণত ২ মিনিট লাগে। কিন্তু কখনো কখনো ২ মিনিটের কম-বেশী হতে পারে।

Back to top button