দীঘা প্রেমীদের জন্য দারুন খবর! এবার থেকে দিঘায় পাবেন মাত্র ২২৫ টাকাতেই সরকারি হোটেল

নিজস্ব প্রতিবেদন : পশ্চিমবঙ্গের সব থেকে উল্লেখযোগ্য ভ্রমণ কেন্দ্র গুলির মধ্যে রয়েছে দিঘা। স্বল্প কয়েক দিনের ছুটি হোক বা দীর্ঘ অবসর সময় মানুষ কিন্তু এই দিঘাতেই সময় কাটাতে অত্যন্ত ভালোবাসেন। পরিবার বা বন্ধু-বান্ধব নিয়ে এটি ঘুরতে যাওয়ার জন্য একটি আদর্শ জায়গা। এখানে যাওয়ার জন্য খুব একটা অর্থ খরচ না হলেও হোটেল ভাড়া এবং অন্যান্য আনুষঙ্গিক খরচে কিন্তু বেশ নাজেহাল অবস্থা হয় সাধারণ মধ্যবিত্ত জনগণের।

তাই ইচ্ছে থাকলেও অনেক মানুষ ভ্রমণের পরিকল্পনা শেষ পর্যন্ত হয়তো বাতিল করে দেন। সেই সব মানুষদের জন্যই আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদন। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা এমন একটি জায়গার কথা আলোচনা করতে চলেছি যেখানে গিয়ে আপনার মাত্র ২২৫ টাকার মধ্যেই থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা পেয়ে যাবেন। তবে তার আগে আমাদের কিন্তু এই জনপ্রিয় সমুদ্র সৈকত সম্পর্কে হালকা কিছু ধারণা অবশ্যই তৈরি করে নেওয়া দরকার।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এটি কলকাতা থেকে প্রায় ১৮৭ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থিত। দীঘায় অগভীর বালির সৈকত সহ একটি নিম্ন গ্রেডিয়েন্ট রয়েছে যা দৈর্ঘ্যে ৭ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত, এবং মৃদু ঘূর্ণায়মান তরঙ্গ রয়েছে। এখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য মনোমুগ্ধকর ও লোভনীয়। দীঘার সমুদ্র সৈকতের দাঁড়িয়ে সূর্যোদয় এবং সূর্যাস্ত দুটোই অত্যন্ত সুন্দরভাবে মানুষ উপভোগ করতে পারেন যা বিশেষভাবে আকর্ষণীয়।

১৯২৩ সালে, একজন ইংরেজ পর্যটক ‘জন ফ্রাঙ্ক স্মিথ’ দীঘার সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে এখানে বসবাস শুরু করেন। দীঘা সম্পর্কে তাঁর লেখায় ধীরে ধীরে এই স্থানের প্রকাশ ঘটেছে। স্বাধীনতার পর, তিনি পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ডঃ বিধান চন্দ্র রায়কে দীঘাকে একটি সমুদ্র সৈকত রিসোর্ট হিসেবে গড়ে তুলতে রাজি করেছিলেন। সাধারণত দীঘা ঘুরতে গেলে কিন্তু খাওয়া দাওয়া বা যাতায়াত নিয়ে খুব একটা অর্থ খরচ হয় না, তবে এখানকার হোটেলের মূল্য এতটাই চড়া যে সাধারণ মধ্যবিত্ত বাঙালির পক্ষে তা সর্বদা চালানো সম্ভব নয়।

হোটেল খরচ বেশি থাকার কারণেই অনেক মানুষ কিন্তু দীঘা ভ্রমণ করতে যেতে চান না। সিজনের সময় এখানে হোটেলের দাম এতটাই চরা হয়ে গিয়ে থাকে যে মানুষের পক্ষে পা রাখা সম্ভব হয় না। তবে যদি আপনারা এবার থেকে দীঘা ভ্রমণ করতে চান সেক্ষেত্রে এত দাম দিয়ে হোটেলের না থেকে কিন্তু একটি জায়গায় থাকতে পারেন যেখানে মাত্র 225 টাকা আপনাদেরকে খরচ করতে হবে।

সাধারণ পর্যটকদের সুবিধার্থে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার অনুমোদিত নিউ দিঘা যুব আবাসে আপনি মাত্র ২২৫ টাকা খরচ করলেই কিন্তু থাকতে পারবেন। অত্যন্ত অবিশ্বাস্যভাবে এখানে মাথাপিছু প্রতিদিন খরচ ২২৫ টাকা। এছাড়াও AC ডবল বেড রুমের ভাড়া ৭৫০ টাকা এবং ট্রিপল বেড রুমের খরচ প্রতিদিন ১১২৫ টাকা। যারা চড়া দামের জন্য দীঘা ঘুরতে যেতে সমস্যায় পড়ছেন তারা কিন্তু খুব সহজেই এই নিউ দীঘা যুব আবাস থেকে সম্পূর্ণ দীঘা ভ্রমণ করে নিতে পারেন।

খুব সহজেই অনলাইনে আপনারা এটিকে বুকিং করে নিতে পারেন।বুকিং করার জন্য পর্যটকদের https://youthhostelbooking.wb.gov.in/pages/Home.aspx ওয়েবসাইটে যেতে হবে। এই ওয়েবসাইটে যাওয়ার পর যদি আপনাদের আগে থেকে লগইন করা না থাকে সেক্ষেত্রে অবশ্যই রেজিস্টার করে নিতে হবে।এরপর CHECK AVAILABILITY অপশনে ক্লিক করে দেখে নিতে হবে কোন কোন দিন কোন রুম ফাঁকা রয়েছে। রুম ফাঁকা অনুযায়ী আপনি আপনার চাহিদা মত রুম বুকিং করে নিতে পারবেন।

এখানে একটি বিশেষ চার্জ দেওয়া হয়েছে যার মাধ্যমে আপনারা জানতে পারবেন আপনাদেরকে কোন রুমের জন্য কত টাকা দিতে হবে।খরচ এবং থাকা খাওয়া সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য আপনারা কিন্তু এই ওয়েবসাইট থেকেই পেয়ে যাবেন। সুতরাং আর দেরি না করে যারা দীঘা ভ্রমণ করতে যেতে চান তারা দ্রুত বেরিয়ে পড়ুন এবং কম খরচে ভ্রমণ করে আসুন এই সুন্দর সৈকত শহর। পরিবার থেকে শুরু করে বন্ধু-বান্ধব সকলকে নিয়েই কিন্তু আপনারা এই জায়গায় ভ্রমণ করতে যেতে পারেন। কমেন্ট সেকশনে অবশ্যই আপনার দীঘা ভ্রমণের অভিজ্ঞতা এবং নিউ দীঘা যুব আবাসের ব্যবস্থা সম্পর্কে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button