সবার হবে পছন্দ গ্যারান্টি! খুব সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন মাছের টকের দুর্দান্ত স্বাদের এই ৩টি রেসিপি

নিজস্ব প্রতিবেদন: কথাতেই রয়েছে মাছে ভাতে বাঙালি। এক কথায় বলা যায় বাঙালির পাতে মাছ থাকবে না এই ব্যাপারটা কিন্তু হতেই পারে না।। মাছ ভাজা থেকে শুরু করে ঝোল, কালিয়া অথবা কোপ্তা অনেক কিছুই খেয়েছেন আপনারা। কিন্তু আপনাদের মধ্যে কতজন মাছের টক খেয়েছেন বলুন তো? আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করে নিতে চলেছি সম্পূর্ণ সাবেকী পদ্ধতিতে তৈরি মাছের টক রান্নার বিশেষ তিন ধরনের রেসিপি। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের প্রতিবেদনের মূল পর্বে চলে যাওয়া যাক।

১) বড়ি ও বেগুন দিয়ে মৌরালা মাছের টকঃ

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে প্রথম রেসিপি হিসেবে আমরা আলোচনা করব বড়ি ও বেগুন দিয়ে তৈরি মৌরলা মাছের টকের রেসিপি। প্রথমেই জেনে নেব এই রেসিপিটি তৈরি করার জন্য প্রয়োজনীয় উপকরণ।

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

1.মৌরালা মাছ – ২০০ গ্রাম
2. বেগুন কিউব করে কাটা -অর্ধেকটা
3. বড়ি – ১৫-২০টি
4. সরিষার তেল – আধা কাপ
5. সরিষার দানা – আধা চা চামচ
6. তেঁতুল – ১ ইঞ্চি
7.কাঁচা লঙ্কা – ২টি
8. হলুদ গুঁড়ো – ১ চা চামচ
9.লঙ্কা গুঁড়ো – আধা চা চামচ
10.পাঁচফোড়ন – আধা চা চামচ
11.নুন – স্বাদ মতো

রন্ধন প্রণালী:

প্রথমেই আপনাদের মৌরলা মাছ ভালো করে ধুয়ে নিতে হবে। এরপর এক টেবিল চামচ হলুদ আর এক টেবিল চামচ লবণ মাছগুলিতে মাখিয়ে নিন। এরপর কড়াইতে তেল দিয়ে আপনাদের ভালো করে মাছগুলিকে ভেজে নিতে হবে। মাছ ভাজা হয়ে গেলে তা তুলে অন্য পাত্রে রেখে দিন এবং ওই তেলের মধ্যেই আপনাদের বড়ি গুলিকে ভেজে নিতে হবে। একটি পাত্রের মধ্যে জল নিয়ে তাতে তেতুল গুলে ১০ মিনিট পর্যন্ত রেখে দেবেন।আরেকটি কড়াইতে ২ টেবিল চামচ তেল গরম করে নিন।

এতে পাঁচফোড়ন, সরিষার দানা, এবং কাঁচা লঙ্কা দিয়ে ফোড়ন দিন। তেল ছিটতে শুরু করলে বেগুনের টুকরাগুলো দিয়ে ২ মিনিট ভাজুন। এরপর হলুদ গুঁড়ো, নুন, এবং লঙ্কার গুঁড়ো দিয়ে ১ মিনিট সতে করুন। এরপর যে তেতুলগুলি ভিজিয়ে রেখেছিলেন সেগুলি ছেঁকে নিয়ে জলটা বেগুনের মধ্যে দিয়ে দিন। মোটামুটি পাঁচ থেকে সাত মিনিট রান্না করার পরে বেগুন সেদ্ধ হয়ে আসলে বড়ি আর মাছগুলো এর মধ্যে দিয়ে দিন। আরো মোটামুটি দুই থেকে তিন মিনিট কষিয়ে রান্না করার পরেই আপনারা এটাকে পরিবেশন করতে পারবেন।

২. বড়ি দিয়ে বড় মাছের টকঃ

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

1.যেকোন বড় মাছ – পেটি ৪ পিস এবং মাথা ২ পিস
2.নুন – ১ টেবিল চামচ (মাছের জন্য)
3. হলুদ গুঁড়ো – ১ টেবিল চামচ (মাছের জন্য)
4. সরিষার তেল – ৩ টেবিল চামচ (মাছ ও বড়ি ভাজার জন্য)
5. সরিষার তেল – আধা টেবিল চামচ
6.ডালের বড়ি – ১৫-২০টি
7. তেজপাতা – ২টি
8. পাঁচফোড়ন – ১ চা চামচ
9.শুকনো লঙ্কা – ২টি
10.হলুদ গুঁড়ো – আধা চা চামচ
11. নুন – আধা চা চামচ
12.পাকা তেঁতুল – ১ টেবিল চামচ, আধা কাপ জলে গোলানো থাকবে
13. চিনি – ৬ টেবিল চামচ
14.ভাজা মশলা – আধা টেবিল চামচ

রন্ধন প্রণালী:

প্রথমেই ভালোভাবে নুন আর হলুদ দিয়ে মাছের পিসগুলিকে মেখে নিতে হবে। এরপর পর্যাপ্ত পরিমাণে সর্ষের তেল দিয়ে মাছগুলিকে ভালো করে ভেজে নিন। তারপর একই রকম ভাবে মাছগুলিকে তুলে ওই তেলের মধ্যেই আপনাদের বড়ি গুলিকে ভেজে নিতে হবে। এরপর কড়াইতে আরও কিছুটা সর্ষের তেল দিয়ে পাঁচফোড়ন, তেজপাতা, এবং শুকনো লঙ্কা কিছুক্ষণ ভাজতে থাকুন।

এরপরে হলুদ গুঁড়ো, স্বাদমতো নুন, তেঁতুল গোলানো জল, এবং সামান্য জল দিয়ে দিন। কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করতে থাকুন। রান্নার এই পর্যায়ে স্বাদ মতন চিনি যোগ করে দিন। আবারো কিছুক্ষণ নাড়াচাড়া করার পরে ভাজা মাছ, এবং সমস্ত ভাজা মসলা এর মধ্যে দিয়ে দিন। ঢাকনা দিয়ে ঢেকে মোটামুটি ৭ থেকে ৮ মিনিট মিডিয়াম ফ্লেমে এটাকে রান্না করতে থাকুন।গ্ৰেভি কিছুটা ঘন হয়ে আসলে এটাকে নামিয়ে নিন। ব্যাস তৈরি হয়ে গেল আপনাদের এই রেসিপি।

৩. বড়ি ও টমেটো দিয়ে পুঁটি মাছের টকঃ

প্রয়োজনীয় উপকরণ:

1.পুঁটি মাছ – ২৫০ গ্রাম
2. হলুদ গুঁড়ো – ১ টেবিল চামচ (মাছের জন্য)
3. নুন – ১ টেবিল চামচ (মাছের জন্য)
4. সরিষা বাটা – ২ টেবিল চামচ
5. তেঁতুল – ১ টেবিল চামচ
6. বড়ি – ৮-১০টি
7. টমেটো – মাঝারি সাইজের ২টি
8.শুকনো লঙ্কা – ১টি
8.সরিষার দানা – এক চিমটি
9.নুন – স্বাদ মতো
10. হলুদ গুঁড়ো – ১ চা চামচ
11. জল – ১ কাপ
12. চিনি – ১ টেবিল চামচ

রন্ধন প্রণালী:

১ টেবিল চামচ লবণ এবং হলুদ ব্যবহার করে ভালো করে আপনাদের মাছে মাখিয়ে নিতে হবে। এরপর ভালো করে মাছ ভেজে নিন। অন্যদিকে টমেটো গুলি টুকরো করে কেটে রাখার পাশাপাশি আপনাদের তেতুল জল গুলে নিতে হবে।কড়াইতে ২ টেবিল চামচ তেল দিয়ে গরম করে নিন। এতে প্রথমে বড়িগুলো লাল করে ভেজে তুলে রাখুন। এবারে এতে শুকনো লঙ্কা, সরিষার দানা, এবং টমেটো দিয়ে দিন। এরপর ১ চা চামচ করে নুন ও হলুদ গুঁড়ো দিয়ে দিন। ৫-৬ মিনিট নাড়তে থাকুন।

রান্নাটিতে সামান্য জল যোগ করুন এবং যতক্ষণ পর্যন্ত না এটা ফুটে উঠছে অপেক্ষা করুন। ফুটে উঠলে মধ্যে মাছ ও বড়ি দিয়ে কিছুক্ষণ হালকা হাতে নাড়াচাড়া করে মিশিয়ে নিন। এরপর এর মধ্যে সরষে বাটা আর তেতুলের জল যোগ করুন। গ্যাসের আঁচ কমিয়ে এটাকে নাড়াচাড়া করতে থাকুন এবং চিনি মিশিয়ে দিন। চিনির পরিমাণ আপনারা নিজেদের পছন্দ মতন কমাতে বাড়াতে পারেন। মাছের ঝোল কিছুটা মাখামাখা হয়ে আসলে আপনারা নামিয়ে নেবেন। বিশেষভাবে উল্লেখ্য এই রান্নায় যদি আপনারা কাঁচা তেতুল ব্যবহার করতে পারেন তাহলে কিন্তু এটি একেবারে স্বাদে অনন্য হয়ে উঠবে।

Back to top button