ভাতের মাড় গাছে দিলে কী হয় জানেন? জেনে নিন গাছে ভাতের মাড় দেওয়ার আসল উপকারিতা!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- ঘরে, বারান্দায় বা ছাদে একটুখানি বাগান। একদিকে মনে আনে প্রশান্তি, অন্যদিকে উৎপাদন করে বিশুদ্ধ অক্সিজেন। তবে সঠিকভাবে পরিচর্যা না করলে কিন্তু কোন রকম ভাবেই বাড়িতে বাগান টিকিয়ে রাখা যাবে না। আজকাল আবার অনেকেই ছাদ বাগান বা কিচেন গার্ডেনে কিন্তু চাষবাস করতে খুব ভালোবেসে থাকেন। তবে সমস্যা হচ্ছে যেভাবে সাধারণত কৃষকেরা যে কোন ফল মূল বা সবজি চাষ করে থাকেন সেটা কিন্তু বাড়িতে আমরা খুব সহজেই করে উঠতে পারি না।

আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা গাছে ভাতের মাড় প্রয়োগ করলে কি কি সুবিধা হতে পারে সেই জিনিস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করতে চলেছি। প্রসঙ্গত আমাদের দৈনন্দিন ব্যবহার্য এরকম অনেক জিনিস দিয়েই কিন্তু বাড়িতে থাকা গাছের পরিচর্যা করা যেতে পারে। চলুন তাহলে আর দেরি না করে জেনে নেওয়া যাক গাছে ভাতের মাড় প্রয়োগ করলে কি কি হতে পারে!

  • গাছে ভাতের মাড় প্রয়োগের পদ্ধতি:

ভাতের মাড় প্রয়োগে কিন্তু প্রচুর পরিমাণে পুষ্টি উপাদান গাছের মধ্যে প্রবেশ করে থাকে। ফসফরাস, ম্যাঙ্গানিজ, পটাশিয়াম,আয়রন থেকে শুরু করে বহু উপাদান এর মধ্যে থাকে। তবে প্রথমেই আপনাদের সুবিধার্থে জানিয়ে রাখি যে সরাসরি কখনোই ভাতের মাড় গাছের মধ্যে প্রয়োগ করা উচিত নয় এতে কিন্তু ক্ষতি হতে পারে।

  • প্রথম ধাপ:

এই পদ্ধতিতে প্রথমেই আপনাদের একটি বালতির মধ্যে ৫০০ গ্রাম পরিমাণ ভাতের মাড় নিয়ে নিতে হবে। এবারে এর মধ্যে আপনাদের ২ লিটার পরিমাণ জল যোগ করে দিতে হবে।

যতটা পরিমাণ মাড় আপনারা এই কাজে ব্যবহার করবেন তার প্রায় চার থেকে পাঁচ গুণ বেশি জল কিন্তু ব্যবহার করতে হবে। এবারে এই বালতিতে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে ২০ গ্রাম পরিমাণ ইউরিয়া সার।

ইউরিয়া সারে প্রচুর পরিমাণে নাইট্রোজেন থাকে যা গাছের বৃদ্ধিতে সহায়ক। ভাতের মাড়ের সাথে আপনারা যদি এভাবে ইউরিয়া মিশিয়ে নেন তাহলে কিন্তু দ্রবণ খুবই কার্যকরী হতে পারে। চাইলে আপনারা কিন্তু ইউরিয়া সারের পরিবর্তে সরিষার খোল ও ব্যবহার করতে পারেন।

  • দ্বিতীয় ধাপ:

দ্বিতীয় ধাপে আপনাদের সম্পূর্ণ দ্রবণটি ভালো করে নাড়াচাড়া করে মিশিয়ে নিতে হবে যাতে পুরো জলের মধ্যেই এটা মিশে যায়। এবারে আপনাদের এর মধ্যে যোগ করে দিতে হবে থিয়োভিট। এটি গাছে প্রয়োগ করলে কিন্তু ভিটামিনের সাথে সাথে কীটনাশকেরও কাজ করে থাকে। অনেক সময় কিন্তু গাছে প্রচুর পরিমাণে ফাঙ্গাসের আক্রমণ হয়ে থাকে তাই এটা খুবই কার্যকরী হতে পারে।

এবারে সমস্ত দ্রবণটিকে আপনাদের ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে যাতে জলের ঘনত্ব একেবারে সমান থাকে। সবশেষে আপনার বাড়িতে থাকা পেয়ারা গাছ থেকে শুরু করে লঙ্কা গাছ এবং অন্যান্য অনেক গাছের গোড়াতেই মগের সাহায্যে বা যে কোন পাত্রের সাহায্যে এই মিশ্রণ আপনারা ছড়িয়ে দিতে পারেন। ফলাফল হাতেনাতেই দেখতে পারবেন।

  • ভাতের মাড় প্রয়োগের ফলাফল:

১) বাড়িতে থাকা লাউ গাছের গোড়ায় যদি আপনারা ভাতের এই মাড় উপরিউক্ত পদ্ধতিতে তৈরি করে প্রয়োগ করতে পারেন তাহলে কিন্তু ফলন খুবই ভালো হবে।

২) পেয়ারা গাছ, পেঁপে গাছ থেকে শুরু করে লেবু গাছে যদি সময় মতন ফুল বা ফল না ধরে থাকে অথবা ধরলেও যদি তা ঝরে পড়ে যায় তবে কিন্তু আপনারা এভাবে ভাতের মাড় প্রয়োগ করতে পারেন।

৩) বাড়িতে থাকা লঙ্কা গাছের পাতা যদি হলুদ হয়ে গিয়ে থাকে বা এর ফলন বৃদ্ধি না হয়ে থাকে সেক্ষেত্রেও কিন্তু আপনারা এটাকে প্রয়োগ করতে পারেন।

Back to top button