বাড়ির টবেই খুব সহজ এই দুর্দান্ত উপায়ে সারাবছর করুন ধনেপাতা চাষ, অল্পদিনেই মিলবে অধিক ফলন

নিজস্ব প্রতিবেদন: আজকাল অনেকেই কিন্তু বাড়িতে ছাদ বাগানে বা কিচেন গার্ডেনের মধ্যে বিভিন্ন ধরনের সবজির কমবেশি চাষবাস শুরু করেছেন। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা যায় সঠিক পদ্ধতি না জানার কারণে কিন্তু এই সমস্ত গাছপালা বেশি দিন পর্যন্ত বাঁচিয়ে রাখা যায় না। আজকাল সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে আমরা এমন অনেক সাহায্য পেয়ে থাকি যাতে খুব সহজেই কিন্তু আপনারা এই গাছ তৈরি করার এবং বাঁচিয়ে রাখার সঠিক পদ্ধতি পেয়ে যাবেন।

তবে অবশ্যই সম্পূর্ণ পদ্ধতি পরপর অবলম্বন করবেন নয়তো সমস্যা দেখা দেবে। আজকে আমরা আলোচনা করব কিভাবে আপনারা বাড়িতে ধনেপাতার গাছ চাষ করতে পারেন। ধনেপাতার চারা লাগানোর জন্য আমাদের বিশেষ কয়েকটি জিনিসের প্রয়োজন হবে সর্বপ্রথমে সেগুলিকে জোগাড় করে নিতে হবে। বাড়িতে রান্নার জন্য যে ধনে আনা হয় সেখান থেকে আপনাদের প্রথমে কিছুটা ধনে সংগ্রহ করে নিতে হবে। তারপর একটি কাঠের টুকরোর সাহায্যে এটাকে হালকা গুঁড়ো করে নিন। তবে এটাকে কিন্তু একবারে সম্পূর্ণ গুঁড়ো অর্থাৎ পাউডার করবেন না।

এবার এই ধনেগুলোকে আপনাদের মোটামুটি পাঁচ থেকে ছয় ঘন্টার জন্য ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে। তারপর আপনাদের নিয়ে নিতে হবে একটি প্লাস্টিকের টব যার নিচের দিকে কয়েকটি ছিদ্র রয়েছে। তবে এই ছিদ্র দিয়ে যাতে মাটি না বেরিয়ে যায় সে কারণে একটা শক্ত পেপার বা কয়েকটি কাঠের টুকরো দিয়ে জায়গাটাকে আটকে ফেলুন।। গার্ডেন সয়েল‌,কম্পোস্ট ও নিমখোল মিশ্রন দিয়ে ভালো করে আপনাদের ধনেপাতা রোপন করার জন্য মাটি তৈরি করে নিতে হবে।

এবার টবের মধ্যে আপনাদের এই মিশ্রণ টাকে ছড়িয়ে নিতে হবে। তবে এমনভাবে মাটি দেবেন যাতে মোটামুটি টবে এক ইঞ্চি পরিমাণ জায়গা খালি থাকে। এরপর আপনাদের যে কাজটি করতে হবে তা হল বীজগুলিকে ভালো করে মাটির উপরে ছড়িয়ে দিতে হবে। ছড়িয়ে দেওয়ার পরে এর উপরের অংশে হালকা মাটি দিয়ে ভরাট করে দেবেন। সবশেষে যে কাজটি করতে হবে তা হল ভালোভাবে বীজ লাগানোর পরে আপনাদের এতে জল ছরিয়ে দিতে হবে পর্যাপ্ত পরিমাণে।

এবার আপনাদের যে কাজটি করতে হবে তা হল অবশ্যই যতদিন পর্যন্ত না ধনেপাতার চারা বেরোচ্ছে লক্ষ্য রাখবেন কোনভাবেই যাতে মাটি শুকিয়ে না যায়।। মোটামুটি কয়েক দিনের মধ্যেই কিন্তু বীজ থেকে চারা বেরোতে শুরু করে দেবে। এই সময় চেষ্টা করবেন টবটিকে কিছুটা সূর্যালোকের মধ্যে রাখার। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি আপনাদের কেমন লাগলো তা জানাতে অবশ্যই ভুলবেন না। গাছপালা সম্পর্কিত সমস্ত ধরনের টিপস পেতে আমাদের অন্যান্য প্রতিবেদন গুলির উপর নজর রাখতে থাকুন।

Back to top button