বাড়ির টবেই খুব সহজ এই দুর্দান্ত ঘরোয়া পদ্ধতিতে করুন লঙ্কা চাষ, ফলন দেবে বারোমাস!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- আমাদের রান্না ঘরের গুরুত্বপূর্ণ জিনিসগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো লঙ্কা। বেশিরভাগ রান্নাতে কিন্তু লঙ্কা ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সত্যি কথা বলতে গেলে লঙ্কার ব্যবহার ছাড়া কিন্তু রান্নার স্বাদ একেবারেই ভালো লাগেনা বলা যায়। বাজার থেকে সবসময় ভালো লঙ্কা পাওয়া যায় না। কেমন হয় যদি বাড়িতেই সারাবছর লঙ্কার চাষ করা যায়? কি ভাবছেন আপনিতো লঙ্কা চাষ করতে জানেন না?

একেবারেই চিন্তার কোন কারণ নেই। এই বিশেষ প্রতিবেদনটি ফলো করলে খুব সহজেই আপনারা বাড়িতে মাত্র তিনটি ধাপে লঙ্কা চাষ করে নিতে পারবেন। চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক। যারা যারা বাড়িতে ছাদ বাগানে অথবা খোলা কোন জায়গায় লঙ্কা চাষ করার কথা চিন্তা-ভাবনা করছেন তারা অবশ্যই নিজেদের মতামত আমাদের সঙ্গে কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে পারেন।

১) উপযুক্ত পরিবেশ আর টব নির্বাচন:

বাড়িতে যদি আপনারা সঠিক পদ্ধতিতে লঙ্কা চাষ করতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই কিন্তু উপযুক্ত পরিবেশ আর টবের উপরে আপনাদেরকে খেয়াল রাখতে হবে। মাথায় রাখবেন লঙ্কা কিন্তু বারো মাস চাষ করা যেতে পারে। যে কোন সময়ই বীজ বপন করা হোক না কেন ফল পাকার সময় অবশ্যই কিন্তু আবহাওয়া শুকনো থাকা দরকার। অতিরিক্ত গরমে লঙ্কার ফলন ভালো হলেও এর রঙ আর ঝাঁজ কিন্তু অনেকটাই কমে যায়।আবার ফুল ও ফল ধরার সময়ে যদি অতিরিক্ত বৃষ্টি হয় তাহলে ফুল ও ফল ঝরে যায়। জল জমে গাছ পঁচে যায়।

তাই খুব গরম বা খুব বৃষ্টির সময়ে লঙ্কা গাছ লাগানো যাবে না। লঙ্কা চাষ করার সময় তাপমাত্রা ২০ থেকে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে ভালো হয়। অবশ্যই আপনাকে লঙ্কা গাছ এমন জায়গায় রাখতে হবে যেখানে সূর্যের আলো ভালো পৌঁছায়। হালকা ছায়াযুক্ত স্থানেও রাখতে পারেন তবে সেখানে খুব বেশি ছায়া যেন না থাকে। আলো, বাতাস পূর্ণ উপযুক্ত স্থানের রাখলে কিন্তু লঙ্কা গাছ অল্প সময়ের মধ্যেই ভালোভাবে দাঁড়িয়ে যাবে।

এবার আসা যাক টবের কথায়। লঙ্কা চাষ করার জন্য মাঝারি সাইজের মাটির বা প্লাস্টিকের টব কিন্তু আপনাদের জন্য যথেষ্ট। টবটি যদি বাজারের না হয় তাহলে ড্রিল মেশিন দিয়ে টবের নিচে একটি ফুটো করে নিবেন যাতে জল নিষ্কাশিত হয়। টব তৈরি হয়ে গেলে বেডিং তৈরি করে নিবেন এবং তারপরে মাটি দেবেন। বেডিংয়ের জন্য যেকোন ভাঙা মাটির পাত্রের ছোট একটি টুকরা নিন। টুকরাটার যেদিক ঢেউ খেলানো সেদিকটা নিচে রেখে টবের ছিদ্রের উপর বসিয়ে দিন। ভাঙা টুকরাটা প্রথমে অল্প স্টোন চিপস দিয়ে এবং পরে অল্প বালি দিয়ে ঢেকে দিন। এটা না করলে কিন্তু গাছে জল দেওয়ার সময় ওই ছিদ্রের মাধ্যমে খুব সহজেই মাটি বেরিয়ে যেতে পারে, যা হয়তো আপনাদের চাষের ক্ষতি করবে।

২) গাছের জন্য মাটি তৈরি করার পদ্ধতি:

শুধুমাত্র পরিবেশ আর টবের উপর নির্ভর করলেই কিন্তু চলবে না। লঙ্কার ফলন যেতে ভালো হয় তার জন্য উপযুক্ত মাটির ব্যবহার করতে হবে আপনাদের। বেলে মাটি ও দোআঁশ মাটি আদর্শ লঙ্কা গাছ লাগানোর জন্য। যখন টবে মাটি দিবেন তখন পরিমাণমতো জৈব সার,গোবর সার, এবং ইউরিয়া সার মিশিয়ে দিবেন।

মাটি তৈরি করার এক সপ্তাহ পরে নার্সারি থেকে কিনে আনা চারাগাছ বা বীজ পুতে দিবেন। বীজ থেকে চারা বেরিয়ে গেলে কিন্তু আপনাদের গাছের যত্ন আরো কয়েকগুণ পর্যন্ত বাড়িয়ে দিতে হবে। তাই ইউরিয়া সার, পটাশ সার, এবং ম্যাগনেসিয়াম সালফেট প্রতিটি ১ টেবিল চামচ করে মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ প্রতি ১৫ দিন পরপর মাটির চারদিকে ঢেলে জল দিয়ে দেবেন। মাথায় রাখবেন এই সময় গাছ যদি পর্যাপ্ত খাবার না পায় সে ক্ষেত্রে কিন্তু খুব দ্রুত নুইয়ে পড়বে।

৩) গাছের পরিচর্যা পদ্ধতি:

গাছ ভালো মাটিতে লাগানোর পাশাপাশি কিন্তু এটি যখন ধীরে ধীরে বেড়ে উঠবে তখন আপনাদের গাছের পরিচর্যা করতে হবে। যদি কোনো কারণে আপনাদের গাছের বৃদ্ধি আটকে চায় সেক্ষেত্রে কিন্তু বিকল্প ব্যবস্থা অবশ্যই আপনাদের গ্রহণ করা উচিত। যেকোন সারের দোকানে গিয়ে ভিটামিন লিকুইডের খোঁজ করুন। কেনার সময়ে দেখবেন প্যাকেটের গায়ে গ্রোথ রেগুলেটর উল্লেখ করা আছে কিনা। ১ লিটার জলে ৩০ ফোঁটা ভিটামিন লিকুইড মিশিয়ে প্রতি ১০ দিন পরপর গাছে স্প্রে করবেন।

এই মিশ্রণটি স্প্রে করলে কিন্তু আপনাদের গাছের উপর খুব ভালো প্রভাব পড়বে এবং ফলন ভালো হবে। যদি কোন কারনে গাছের বৃদ্ধি আটকে যায় তাহলেও কিন্তু এই মিশ্রণ আপনাদের অনেকটাই সাহায্য করবে। লঙ্কা গাছে যদি কোন কারনে পিঁপড়ের উপদ্রব হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে সাবান গুঁড়া টবের মাটিতে ছড়িয়ে দিতে পারেন। যদি কোন অন্যান্য পোকামাকড়ের উপদ্রব দেখতে পান সেক্ষেত্রে রোগোটপ্লাস বা ক্যারিনা ব্যবহার করবেন। দুটির যেকোন একটি থেকে ৩০ ফোঁটা পরিমাণ ওষুধ ১ লিটার জলে মেশাবেন। তারপর এই জল প্রতি ১০ দিন পরপর গাছে স্প্রে করবেন। ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন।

সবশেষে আপনাদের কয়েকটি বিষয়ের উপর নজর রাখতে হবে। লঙ্কা গাছে কিন্তু কখনোই অতিরিক্ত পরিমাণে জল দেবেন না। জল এমনভাবে দিতে হবে যাতে টবে জল জমে না থাকে আবার মাটি শুকিয়ে না থাকে। যদি আপনারাও বাড়িতে লঙ্কা চাষ করতে চান সহজ উপায়ে এবং ভালো ফলন পেতে চান সেক্ষেত্রে অবশ্যই আমাদের এই তিনটি ধাপ পরপর প্রয়োগ করে দেখতে পারেন সঠিকভাবে। অবশ্যই ফলন কেমন হলো এবং আপনারা কোন অসুবিধার সম্মুখীন হলেন কিনা সেই সমস্ত অভিজ্ঞতা আমাদের সঙ্গে কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button