সারাবছর টবেই চাষ করুন ধোনেপাতা, কিভাবে করবেন চাষ? রইলো সম্পূর্ণ পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আজকাল অনেকেই কিন্তু বাড়িতে ছাদ বাগানে নানান ধরনের চাষবাস শুরু করেছেন। ফল-ফুল থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের সবজি যা খুব সহজেই আজকাল বাড়িতে উপযুক্ত পরিচর্যা দিয়ে তৈরি করা যাচ্ছে। তবে উপযুক্ত পরিচর্যা পদ্ধতি যদি আপনারা না জানেন তাহলে কিন্তু কখনোই ছাদ বাগান বা কিচেন গার্ডেনে এভাবে চাষবাস করতে পারবেন না। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি সারা বছর মাটি ছাড়া টবেই ধনেপাতা চাষ করার পদ্ধতি। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে কিভাবে এটা স্টেপ বাই স্টেপ করা যেতে পারে সেই বিশেষ প্রসেস দেখে নেওয়া যাক।

  • ছাদবাগানে মাটি ছাড়াই সারা বছর টবে ধনেপাতা চাষের পদ্ধতি:

১) মাটি ছাড়া এরকম ভাবে ছোট জায়গায় তথা টবের মধ্যে ধনেপাতা চাষ করতে গেলে আমাদের সর্বপ্রথম এই যে জিনিসটা প্রয়োজন হবে তা হল উন্নত মানের হাইব্রিড বীজ। যেকোনো নামী নার্সারীর দোকান থেকে আপনারা কিন্তু এই বীজ সহজেই সংগ্রহ করে নিতে পারেন। মসলার কাজে যে ধনে ব্যবহার করা হয় তা থেকেও কিন্তু আপনারা চারা তৈরি করতে পারেন। কিন্তু সেই ক্ষেত্রে আপনারা এত ভাল ফলাফল কিন্তু পাবেন না।

কারণ যে ধনে গুলো মসলার কাজে ব্যবহার করা হয়ে থাকে সেগুলো বিভিন্ন প্রসেসিং এর পর আসে। তাই এটি ব্যবহার না করে আপনারা চেষ্টা করুন উন্নতমানের বীজ ব্যবহার করার। বীজ নিয়ে আসার পরে মোটামুটি ৪৮ ঘণ্টা সময় পর্যন্ত আপনাদের এগুলি সাধারণ জলে ভিজিয়ে রেখে দিতে হবে। তারপর আপনাদের মিডিয়াম তৈরি করতে হবে এই বীজ বপন করার জন্য।

২) আজ আপনাদের সাথে আমরা মাটির অস্তিত্ব ছাড়া মিডিয়াম তৈরির পদ্ধতি বলতে চলেছি। ৪০ % কোকোপিট, ৪০ % বালি এবং ২০% যেকোনো প্রকারের কমপোস্ট ধনেপাতা চাষের জন্য একেবারেই আদর্শ। আপনারা এখানে ফার্মিং কম্পোস্টের ব্যবহার করতে পারেন। পাশাপাশি গোবর সার ও ব্যবহার করা যেতে পারে।

পাত্রে মিডিয়া ফিলআপ করার পরে তার উপরে হাফ ইঞ্চি অথবা এক ইঞ্চি কোকো পিট এর লেয়ার আপনাদের তৈরি করতে হবে। অন্ততপক্ষে দুই দিন ভেজানোর পরে যে জ্বলে আপনারা বীজ ভিজিয়ে রেখে দেবেন তার রং কিন্তু একেবারে লাল হয়ে যাবে।

৩) এবারে আপনাদের একবার খুব যত্ন সহকারে বীজগুলি ছেকে নিয়ে সাধারণ জলে ধুয়ে নিতে হবে। মিডিয়ার মধ্যে বীজ গুলি ছড়ানোর পর আপনারা দেখে নেবেন যাতে খুব বেশি ঘন না হয়ে যায়। কারণ খুব বেশি ঘন হয়ে গেলে কিন্তু গাছের গ্রোথ একেবারেই ভালো হবে না। কারণ জায়গা যেহেতু সীমিত তাই যতটা আলাদা আলাদা ভাবে করতে পারবেন ততটাই ভালো।

বীজগুলি ছড়িয়ে দেওয়ার পরে আপনাদের কোকোপিট দিয়েই আবারো বীজ ঢেকে দিতে হবে। এক্ষেত্রে আপনারা খেয়াল রাখবেন যাতে খুব পুরু আস্তরণ না হয়ে যায়।

বীজগুলো ছড়িয়ে দেওয়ার পর যতদিন পর্যন্ত না সম্পূর্ণরূপে জারমিনেশন শেষ হচ্ছে, আমাদের এই পাত্র গুলো এমন জায়গায় রাখতে হবে যেখানে এক থেকে দেড় ঘন্টার বেশি সূর্যের আলো পৌঁছয় না। বীজ লাগিয়ে দেওয়ার পরে আপনাদের পাত্রে ভরপুর জল দিতে হবে।

৪) যদি আপনারা ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত বীজ ভিজিয়ে রাখতে পারেন তাহলে কিন্তু দুই থেকে তিন দিনের মধ্যেই জারমিনেশন শুরু হয়ে যাবে। এই সময় থেকে আপনাদের ধীরে ধীরে সানলাইট তথা সূর্যালোকের পরিমাণ কিন্তু ধীরে ধীরে বাড়াতে হবে। পাশাপাশি আপনাদের কিন্তু এই সময়ে খোল পচা বা তরল জৈব সারের ব্যবহার করতে হবে।

যদি খোল পচা সারের ব্যবহার এই ধনেপাতার মধ্যে করে থাকেন সেক্ষেত্রে তাহলে ১০ দিনের মধ্যে ফলাফল আপনারা হাতেনাতেই দেখতে পারবেন। খুব বড়জোর ১০ থেকে ১৫ দিনের মধ্যেই কিন্তু আপনাদের প্রত্যেকটা পাত্রে একেবারে জাকিয়ে ধনেপাতার গাছ বেরিয়ে যাবে। সাধারণত এই ধনেপাতার মধ্যে পোকামাকড়ের আক্রমণ খুব কম হয়ে থাকে।

তবুও আপনারা এক সপ্তাহ অন্তর একবার করে নিম তেলের স্প্রে করতে পারেন। এটা কিন্তু আপনার গাছের সুরক্ষা কয়েক গুণ বাড়িয়ে দেবে। আরো একটা কথা মাথায় রাখবেন যেহেতু আমরা এই ধনেপাতা কনজিউম করব অর্থাৎ খাবো তাই রাসায়নিক কীটনাশক ব্যবহারের থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকতে হবে। এভাবে সঠিক পরিচর্যা দিয়ে আপনারা কিন্তু সহজেই বাড়িতে মাটি ছাড়া ধনেপাতা চাষ করে নিতে পারেন। বছরের যে কোন সময়তেই আপনারা এটা করতে পারবেন।

Back to top button