প্রেসার কুকারে এই সহজ উপায়ে এবার থেকে করুন ভাত রান্না, ভাত হবে সুস্বাদু ও ঝরঝরে!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ভাত আর রুটিকেই কিন্তু আমাদের দেশের প্রধান খাদ্য হিসেবে গণ্য করা হয়ে থাকে। বিশেষ করে বাঙ্গালিদের দৈনন্দিন খাদ্য তালিকায় ভাত না থাকলে যেন চলেই না। এবার এই ভাত যদি হয়ে যায় একেবারে গলা এবং কাদা কাদা তখন কিন্তু স্বাভাবিকভাবেই আপনাদের আর খেতে ভালো লাগবে না। এদিকে প্রায় সময় আমরা দেখতে পাই অনেক গৃহিণীরা অভিযোগ করে থাকেন যে হাজার চেষ্টা করার পরেও প্রেসার কুকারে সহজ উপায়ে ঝরঝরে ভাত তৈরি করা যাচ্ছে না।

দৈনন্দিন ব্যস্ততার কারণে কিন্তু আমরা অনেকেই সময় বাঁচানোর জন্য প্রেসার কুকারে ভাত রান্না করে থাকি। তাই গৃহিণীদের সমস্যার সমাধান করার জন্য আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নিতে চলেছি কিভাবে প্রেসার কুকারে ভাত একেবারে ঝরঝরে করে তৈরি করতে পারবেন সেই পদ্ধতি। যদি আপনিও ভাত বসিয়ে ভুলে যাওয়ার সমস্যার নিয়মিত ভুক্তভোগী হয়ে থাকেন তাহলে একেবারেই আমাদের আজকের এই প্রতিবেদন টি মিস করবেন না।

প্রেসার কুকারে ঝরঝরে ভাত রান্না করার সঠিক পদ্ধতি:

মোটামুটি ৩০০ গ্রাম সেদ্ধ চাল নিয়ে প্রথমেই জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে। যদি আপনারা ৩ লিটারের প্রেসার কুকার ব্যবহার করে থাকেন, সেক্ষেত্রে ভাত করার সময় প্রেসার কুকারে দুই ভাগ অংশে জল দেবেন। জল যদি বেশি হয়ে যায় সে ক্ষেত্রে কিন্তু স্টিমের চাপে ঢাকনার চারপাশ থেকে জল বেরোতে পারে।

একটি ৩ লিটারের প্রেসার কুকারে আপনি সর্বোচ্চ ৪০০ গ্রাম চাল রান্না করতে পারেন। প্রেসার কুকারে  জল ফুটতে শুরু করলে আপনাদের জলে ভেজানো চাল এর মধ্যে ঝরিয়ে দিয়ে দিতে হবে। কুকারের ঢাকনা লাগিয়ে দিন। হাই ফ্লেমে মোটামুটি দুটো সিটি হতে দিন। এরপর গ্যাসের আচ থেকে আপনাদের কুকার নামিয়ে নিতে হবে।

নামিয়ে নেওয়ার পর ঢাকনার উপরের অংশ থেকে আপনাদেরকে ঠান্ডা জল ঢেলে দিতে হবে যাতে ভেতরের বাষ্প তাড়াতাড়ি কমে যায়। এরপর আপনাদের কুকারের ঢাকনা সঙ্গে সঙ্গেই খুলে নিতে হবে। এটি যদি খুব বেশি সময় লাগানো থাকে তাহলে কিন্তু ভাত একেবারেই আঠালো হয়ে যেতে পারে।

তারপর নিজেদের সুবিধামতো মাড় গেলে নিলেই কিন্তু আপনারা একেবারে ঝরঝরে ভাত পেয়ে যাবেন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য অনেকেই কিন্তু দৈনন্দিন ব্যস্ততার মাঝে হাড়িতে ভাত করতে গিয়ে অনেকটা সময় ব্যয় করে থাকেন। নিঃসন্দেহে তাদের অবশ্যই এরকমভাবে স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি ফলো করে প্রেসার কুকারে ভাত রান্না করা উচিত যাতে অনেকটা সময় বেঁচে যায়।

হাড়ির তুলনায় প্রেসার কুকারে কিন্তু কিছুক্ষণ সময়ের মধ্যেই কিন্তু আপনাদের ভাত একেবারে ঝরঝরে ভাবে তৈরি হয়ে যাবে। তবে প্রেসার কুকারের ঢাকনা কিন্তু খুব বেশি সময় ধরে বন্ধ করে রাখবেন না এতে ভাত গলে যেতে পারে। এটা খুবই সহজ আর সাধারণ পদ্ধতি। কোথাও বুঝতে অসুবিধা হলে আমাদের প্রতিবেদনের সঙ্গে থাকা ভিডিওটি দেখে নিতে পারেন। এভাবে বাড়িতে ঝরঝরে ভাত তৈরি করে অবশ্যই নিজেদের অভিজ্ঞতা আমাদের প্রতিবেদনের কমেন্ট বক্সে শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

Back to top button