সিরিয়াল হোক বা সিনেমা দীর্ঘকাল ধরে দর্শকদের প্রিয় মা ও শাশুড়ি তুলিকা বসু, জেনে নিন তার অভিনেত্রী হওয়ার কিছু অজানা কাহিনী!

নিজস্ব প্রতিবেদন: ইদানিং টলিউড সিনেমার তুলনায় বাংলা ধারাবাহিকগুলোই (Bengali Mega Serial) যেন বাংলার দর্শকদের অনেক কাছের হয়ে উঠেছে। বাংলা টেলিভিশনের তারকাদের আপনজন বলেই মনে করেন দর্শকরা। তাদের সম্পর্কে জানার জন্য আগ্রহ থাকে প্রবল। আজ বাংলা টেলিভিশনের এমন একজন মানুষের জীবনের অজানা কাহিনী নিয়ে সাজানো এই প্রতিবেদন যাকে ‘ওগো বধূ সুন্দরী’র ললিতার স্নেহময়ী শাশুড়ি হিসেবে আজও মনে রেখেছেন দর্শকরা। তিনি হলেন তুলিকা বসু (Tulika Basu)।

দীর্ঘ ২৫ বছরের এই ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন তুলিকা। তিনি হলেন একজন ভার্সেটাইল অভিনেত্রী। অভিনয় দক্ষতার গুণ থাকার কারণে তাকে কখনও বসে থাকতে হয়নি। ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখা মাত্রই একের পর এক ধারাবাহিকের সুযোগ এসেছে তার হাতে। সামান্য একজন গৃহবধূ থেকে টলিউডের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী হয়ে ওঠার নেপথ্য কাহিনীটা কিন্তু এখনও সকলেরই অজানা।

তুলিকা অভিনয় জীবনে পা রেখেছিলেন তার বিয়ের পর। আসলে তার মেসোমশাই প্রীতম বসু ছিলেন একজন চিত্রনাট্যকার। সেই সময় ইন্ডাস্ট্রিতে স্ক্রিপ্ট রাইটার হিসেবে তার বেশ পরিচিতি ছিল। পরিচালক বুদ্ধদেব বসুর সঙ্গেও ছিল তার ঘনিষ্ঠতা। তিনি তার প্রিয় বোনঝিকে মাঝেমধ্যেই সিনেমা দেখাতে নিয়ে যেতেন। তখনই তুলিকার সঙ্গে বুদ্ধদেব বসুর পরিচয় করিয়ে দেন তিনি।

বুদ্ধদেব বসুর সূত্র ধরেই ‘এবার জমবে মজা’ সিরিয়ালে প্রথম কাজের সুযোগ পান তুলিকা। অভিনয়টা তিনি বেশ ভালই করতেন প্রথম থেকেই। তাই প্রথম ধারাবাহিক থেকেই তার জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। প্রথম সিরিয়াল শেষ হতে না হতেই নতুন কাজের অফার চলে আসে তার কাছে। ‘মহাপ্রভু’ ধারাবাহিকের জন্যেও তুলিকাকে বেছে নেওয়া হয়।

তবে ততদিনে তুলিকার কোলজুড়ে এসেছে ছোট্ট এক সন্তান। প্রথম সিরিয়াল কোনওভাবে সামলে উঠতে পারলেও সন্তানকে বাড়িতে রেখে তিনি কিভাবে আবার কাজ করতে পারবেন সেই নিয়ে চিন্তায় পড়ে যান। কিন্তু এই সময় তার স্বামী এবং শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা তার পাশে এসে দাঁড়ান। তুলিকার কথায়, “সেই সময় স্বামী শ্বশুরবাড়ির লোক খুব সাহায্য করেছিলেন। ওরা না থাকলে সম্ভব হত না।”

এরপর সংসার, সন্তান আর অভিনয়ের কেরিয়ারে আর কখনও বাঁধার সম্মুখীন তাকে হতে হয়নি। দীর্ঘ দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে একাধিক জনপ্রিয় ধারাবাহিক, ছবি এবং থিয়েটারে চুটিয়ে কাজ করেছেন তিনি। ‘অন্তঃসত্তা’, ‘রং রুট’, ‘গোলন্দাজ’ ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। জীবনে কখনও নায়িকার চরিত্র পাননি ঠিকই কিন্তু দর্শকরা তবুও তার অভিনয় মুগ্ধ। ইদানিং স্টার জলসার ‘আলতা ফড়িং’ ধারাবাহিকে নায়কের মায়ের চরিত্রে তাকে অভিনয় করতে দেখা যাচ্ছে।

Leave a Comment