মাতৃত্বের স্বাদ মেটাতে সন্তান দত্তক নিতে চেয়েছিলেন অর্পিতা! মেয়ের সুপ্ত ইচ্ছে নিয়ে এবার মুখ খুললেন অর্পিতার মা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:- পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সম্মতিতে সন্তান দত্তক নিতে চেয়েছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। সম্প্রতি কয়েকদিন আগেই ইডির তরফে জমা করা চার্জশিটে এ কথার উল্লেখ হওয়ায় রাজনৈতিক মহল থেকে শুরু করে সব জায়গায় রীতিমতন হৈচৈ সৃষ্টি হয়ে যায়। বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং অর্পিতা মুখোপাধ্যায় কে কেন্দ্র করে কিন্তু বিভিন্ন জল্পনা-কল্পনা কম হয়নি। এই অবস্থায় তারা কেন সন্তান দত্তক নিতে চেয়েছিলেন সেটাই সকলের কাছে প্রশ্নের বিষয়। কিন্তু মেয়ের এই সিদ্ধান্তের খবর কি জানতেন মা? কোনও আঁচ ছিল মিনতি মুখোপাধ্যায়ের কাছে?

সম্প্রতি অর্পিতার এই সন্তান দত্তক নেওয়ার কথা সামনে আসতেই সংবাদমাধ্যমের একাংশ তার মা মিনতি মুখোপাধ্যায়ের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছিলেন। সেইসব প্রশ্নের উত্তরে মিনতি দেবী যা জানিয়েছেন তা নিতান্তই ভাবনার বিষয়। জানা গিয়েছে, অর্পিতা সম্বন্ধিত এই সমস্ত প্রশ্ন করতেই রীতিমতো তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠেন মিনতি দেবী। তাঁর কথায়, ”ও দোষ করুক আর যাই করুক অর শাস্তি হোক বা যাই হোক তার কোনও ব্যাপার না।” মেয়ের সন্তান দত্তক নেওয়ার কথা কী জানতেন? প্রশ্ন করতেই তীব্র বিরক্তি প্রকাশ করে মিনতি দেবীর জবাব, ”খালি একই নোংরা কথাবার্তা। যান তো! আমি ওসব জানি না।”

এ সমস্ত কথাবার্তার আমি উত্তর দিতে পারব না।” অন্যদিকে সামনেই রয়েছে দুর্গা পুজো অথচ বাড়িতে কিন্তু অর্পিতা নেই। খারাপ করছে মায়ের?এই প্রশ্ন শুনেও তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায় মিনতি দেবীকে। রীতিমতো ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, “অর্পিতা নেই তো কী হয়েছে। আমি কী রাস্তায় বেরিয়ে গিয়েছি নাকি। এসব প্রশ্ন করে মাথা গরম করে দেয় একদম। আমার কোনও কথা বলা বারণ আছে।” পুজোয় একা থাকলে মন খারাপ করবে না? উত্তরে তিনি বলেন, ”একটুও মন খারাপ লাগছে না।”

আমার মেয়ের উপর রাগ নেই। আমার এত প্রশ্ন ভাল লাগছে। আমার এত উত্তর দেওয়ার দরকার নেই।” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য দীর্ঘ সময় তল্লাশির পর পার্থ চট্টোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের দুটি ফ্ল্যাট থেকে প্রায় ৬০ কোটি টাকার কাছাকাছি উদ্ধার করে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরী। এরপর ২৩ জুলাই প্রথম ইডি-র হাতে গ্রেফতার হয়েছিলেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। তার পর থেকে কখনও ইডি হেফাজতে, কখনও জেল হেফাজতে দিন কাটছে তার। ইডি সূত্রের খবর অনুযায়ী, প্রায় ২০১২ সাল থেকেই পার্থ চট্টোপাধ্যায় আর অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের মধ্যে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল।

Arpita Mukherjee, Partha Chatterjee

এমনকি তাদের মধ্যে একটি ভিন্ন ধরনের সম্পর্কের আচও পাওয়া যায়। তাঁদের দুজনের নামে এর আগে একাধিক যৌথ সম্পত্তিরও খোঁজ দিয়েছেন তদন্তকারীরা। নাম উঠে এসেছে ‘অপা ইউটিলিটি সার্ভিসেস’ নামে পার্থ-অর্পিতার যৌথ মালিকানায় থাকা একটি সংস্থার। স্বাভাবিকভাবেই এই অবস্থায় কেন সন্তান দত্তক নিতে চেয়েছিলেন তারা এটা নিয়ে কিন্তু বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন উঠে আসছে ওয়াকিবহাল মহলে। তবে এখনো পর্যন্ত সেই সমস্ত প্রশ্নের কোন উত্তর দেননি পার্থ – অর্পিতা।

Back to top button