যেকেউ খেয়ে বলবে দারুণ! খুব সহজ এই পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন ঝরঝরে ও টেস্টি বাসন্তী পোলাও

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙালির একটি অত্যন্ত প্রিয় রেসিপি কিন্তু বাসন্তী পোলাও। তবে সুস্বাদু এই খাবারটি পারফেক্ট ভাবে তৈরি করতে কিন্তু অনেকেই জানেন না। অনেক ক্ষেত্রেই কি হয় পোলাও তৈরি করার সময় খুব বেশি গলে যায়! আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই নিয়ে এসেছি বিশেষ কয়েকটি টিপস যার সাহায্যে খুব সহজেই বাড়িতে আপনারা একেবারে ঝরঝরে বাসন্তী পোলাও বানিয়ে নিতে পারবেন।

চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক। প্রসঙ্গত যেকোনো অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে পূজোর দিনেও কিন্তু আপনারা পোলাও তৈরি করে নিতে পারেন। সামনেই রয়েছে দীপাবলি এবং কালীপুজোর মতন উৎসব। উৎসবের দিনগুলিতে একটু সময় করে বাড়ির সদস্যদের আনন্দ দিতে কিন্তু পোলাও এর থেকে পারফেক্ট কোনো রেসিপি হতে পারে না।

পারফেক্ট বাসন্তী পোলাও তৈরি করার পদ্ধতি:

ঝরঝরে বাসন্তী পোলাও তৈরি করার জন্য প্রথমেই আপনাদের ৫০০ গ্রাম গোবিন্দ ভোগ চাল নিয়ে নিতে হবে। এরপর চাল ভালো করে ধুয়ে জল ঝরিয়ে নিতে হবে। এবার যে পাত্রে আপনারা চালটিকে রেখেছেন সেখানে এক চামচ হলুদ, আদা কুচি, গোটা গরম মসলা ও এক চামচ ঘি দিয়ে দিন। এবার হাত দিয়ে ভালো করে চালের সঙ্গে সমস্ত উপকরণ মিশিয়ে চালটাকে ম্যারিনেট করে নিন। মোটামুটি ১০ মিনিট পর্যন্ত চাল রেখে দিতে হবে। এবার আপনাদের অন্যান্য উপকরণ অর্থাৎ কাঁচালঙ্কা,কাজু-কিসমিস, চিনি, নুন এবং গরম মসলা একত্র করে নিতে হবে।

পরিমাপ গুলো আপনারা নিজেদের আন্দাজ মতন করে অর্থাৎ যতটা আপনারা পোলাও তৈরি করছেন ঠিক ততটা ব্যবহার করতে পারেন।। এবার গ্যাসে প্যান বসিয়ে আপনাদের এক চামচ ঘি দিয়ে দিতে হবে। লো ফ্লেমে ঘি গলিয়ে নেওয়ার পর এতে কাজু আর কিসমিস যোগ করে দিন। ভাজা হয়ে গেলে এগুলিকে তুলে অন্য একটি পাত্রে রেখে দিন। তারপর ওই প্যানের মধ্যেই আরো একটু ঘি দিয়ে তাতে গোটা গরম মসলা দিয়ে হালকা হাতে নাড়াচাড়া করতে থাকুন।এবার এর মধ্যে আপনারা আগে থেকে ম্যারিনেট করা চাল দিয়ে দিন।

ভালো করে একেবারে চালটাকে আপনাদের নাড়াচাড়া করে নিতে হবে। গ্যাসের আঁচ মিডিয়ামে রেখে চালটাকে ভেজে নিন। চাল কিছুটা ঝরঝরে হয়ে গেলে এর মধ্যে গরম জল যোগ করতে হবে। যেহেতু এখানে ৫০০ গ্রাম গোবিন্দ ভোগ চাল অর্থাৎ দৈনন্দিন চাল মাপার কাপের চার কাপ চাল দেওয়া হয়েছে তাই এখানে জল দিতে হবে সাড়ে চার কাপ। আপনারা বাসমতি চাল দিয়ে পোলাও করে থাকেন সেক্ষেত্রে কিন্তু যা চাল নেবেন তার ঠিক ডবল জল দিতে হবে। অবশ্যই এখানে গরম আর ফুটন্ত জল ব্যবহার করবেন। স্বাদ মতন এবং গুঁড়ো গরম মসলা লবণ দিয়ে দিন। প্রথমে যে কিসমিস আর কাজুবাদাম গুলিকে ঘিয়ে ভেজে রেখেছিলেন সেটাও এর মধ্যে এই পর্যায়ে যোগ করে দিন।

এবার ভাত ভালো করে নাড়িয়ে নিয়ে আপনাদের ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে। গ্যাসের ফ্ল্যেম মিডিয়ামে রেখে ৫ মিনিট ঢাকা দিয়ে রান্না করে নিন। নির্দিষ্ট সময় অন্তর ঢাকনা খুলে হালকা নাড়াচাড়া করে নিয়ে এতে আন্দাজ মতন চিনি যোগ করে দিন। আবারো হালকা হাতে নাড়াচাড়া করুন যাতে চিনি ছড়িয়ে যায়।চিনি গলে গেলে সেখান থেকে দেখবেন কিছুটা জল বেরোচ্ছে ওই জলেই বাদবাকি ভাত সেদ্ধ হয়ে যাবে। সুতরাং আপনারা আর অতিরিক্ত জল ব্যবহার করবেন না।

এই পর্যায়ে কয়েকটি কাঁচা লঙ্কা এতে দিয়ে দিন। সামান্য গুঁড়ো গরম মসলা ছড়িয়ে দিতে পারেন। ভালো করে নাড়াচাড়া করে আরো কিছুক্ষণ এটাকে কুক করে নিন। এরপর গ্যাসের ফ্লেম বন্ধ করে মিনিট দুয়েক সময় স্ট্যান্ডার্ড টাইম পর্যন্ত পোলাও ঢাকা দিয়ে রাখতে হবে। এক চামচ ঘি ছড়িয়ে এবার আপনারা ঝরঝরে বাসন্তী পোলাও পরিবেশন করতে পারেন।

Back to top button