যে কেউ খেয়ে বলবে দারুণ! খুব সহজ এই পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন ঝরঝরে ও টেস্টি বাসন্তী পোলাও

নিজস্ব প্রতিবেদন: বাঙালির একটি অত্যন্ত প্রিয় রেসিপি কিন্তু বাসন্তী পোলাও। সুস্বাদু এই খাবারটি পারফেক্ট ভাবে তৈরি করতে কিন্তু অনেকেই জানেন না। অনেক ক্ষেত্রেই পোলাও তৈরি করার সময় খুব বেশি গলে যায়। এছাড়াও আরও নানান ধরনের সমস্যা দেখা যায়। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি বিশেষ কয়েকটি টিপস যার সাহায্যে খুব সহজেই স্টেপ বাই স্টেপ পদ্ধতি ফলো করে আপনারা বাড়িতে একেবারে ঝরঝরে বাসন্তী পোলাও তৈরি করে নিতে পারবেন।। তাহলে আসুন আর সময় নষ্ট না করে প্রতিবেদনের মূল পর্বে যাওয়া যাক।

পারফেক্ট ঝরঝরে বাসন্তী পোলাও তৈরি করার পদ্ধতি:

১) পোলাও তৈরি করার জন্য একেবারে মেজারমেন্ট কাপে পরিমাপ করে আপনাদের গোবিন্দভোগ চাল নিয়ে নিতে হবে। আপনাদের কাছে যদি মেজারমেন্ট কাপ না থাকে সেক্ষেত্রে যে কোন চায়ের কাপ নিয়ে নিতে পারেন। মোটামুটি দেড় কাপ চাল নিয়ে নেওয়ার পরে এটাকে প্রথমে ভালো করে পরিষ্কার করে নিতে হবে। একটি স্টেনারের সাহায্যে চাল ধুয়ে নেওয়ার পর আপনাদের ভালো করে জল ঝরিয়ে এটাকে রেখে দিতে হবে। যদি বাড়িতে স্টেনার না থাকে সেক্ষেত্রে খবরের কাগজ বা কাপড়ের উপর রেখেও কিন্তু অবশ্যই জল ভালো করে ঝরিয়ে নেবেন।

গোবিন্দভোগ চাল কিন্তু ভেজাবার কোন প্রয়োজন নেই। ৩০ থেকে ৪০ মিনিট পরে চাল থেকে সমস্ত জল ঝরে গেলে এর মধ্যে ২ টেবিল চামচ ঘি, তিন টেবিল চামচ চিনি এবং পরিমাণ মতো লবণ দিয়ে দিন। পোলাও যেহেতু একটু মিষ্টি হয়, তাই চিনি কিন্তু বেশি দেবেন। এবার এর মধ্যে আপনাদের দিয়ে দিতে হবে হাফ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, হাফ চা চামচ গরম মসলার গুঁড়ো, হাফ চা চামচ গোলমরিচের গুড়ো এবং এক চা চামচ আদা বাটা।

২) উপরের সমস্ত উপকরণ দিয়ে আপনাকে ভালো করে চাল মেখে নিতে হবে। ভালো করে মাখা হয়ে গেলে চাল ঢাকা দিয়ে মোটামুটি ত্রিশ মিনিট সময় রেখে দিন। কড়াইতে দিয়ে দিন এক চা চামচ পরিমাণে ঘি। ঘি গরম হয়ে গেলে এর মধ্যে দিয়ে দিন ১টা তেজপাতা,২টো দারচিনি, কয়েকটি ছোট এলাচ এবং কয়েকটি লবঙ্গ। ছোট এলাচ আর লবঙ্গ অবশ্যই একটু ফাটিয়ে নেবেন।

লো ফ্লেমে এই মসলাগুলোকে ৩০ থেকে ৪০ সেকেন্ড সময় পর্যন্ত ভেজে নিন। মসলা ভাজা হয়ে গেলে এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে ২০ থেকে ২৫ টি কাজুবাদাম। এগুলোকেও কিছুক্ষণ ভেজে নিন। মিনিট খানেক সময় ধরে কাজু বাদাম ভেজে নেওয়ার পর এতে ২০ টা কিসমিস দিয়ে দিন। সামান্য একটু লবণ দিয়ে নাড়াচাড়া করুন। এবার আগে থেকে মেখে রাখা চাল এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে।।

৩) পরবর্তী ধাপে মোটামুটি তিন মিনিট সময় ধরে লো ফ্লেমে আপনাদের ভালো করে চাল নাড়াচাড়া করে ভেজে নিতে হবে। চাল ভাজার সময় একটা সসপ্যানে জল গরম বসিয়ে ভালো করে এটাকে ফুটিয়ে নিন। জল ভালো করে ফুটে গেলে এটাকে গোবিন্দভোগ চালের মধ্যে দিয়ে দিতে হবে।। যে মেজারমেন্ট কাপে আপনারা পরিমাপ করে চাল নিয়েছিলেন সেটার পরিমাপেই কিন্তু আপনাদের জল দিতে হবে।

দেড় কাপ চাল যেহেতু ব্যবহার করা হয়েছে তাই জল দিতে হবে দ্বিগুণ অর্থাৎ তিন কাপ। গ্যাসের ফ্ল্যেম হাই করে কিছুক্ষণ পোলাও ফুটিয়ে নিন। ঢাকনা চাপা দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন এটাকে। পাঁচ মিনিট পর ঢাকনা খুলে এর মধ্যে কয়েকটা কাঁচা লঙ্কা দিয়ে দিন। লঙ্কা দিয়ে দেওয়ার পর পোলাও সামান্য নাড়াচাড়া করে নিন। নয়তো তলা ধরে যেতে পারে। আরো কিছুক্ষণ রান্না করে এটাকে গরম গরম নামিয়ে নিন এবং পরিবেশন করুন।

Back to top button