এক চুমুকেই জুড়িয়ে যাবে মনপ্রাণ! একবার বাড়িতে এই সহজ উপায়ে বানিয়ে দেখুন দারুণ টেস্টি হায়দ্রাবাদী দম চা

নিজস্ব প্রতিবেদন: কিছু মানুষের কাছে ‘চা’ এমন একটি পানীয় যাকে ছাড়া ‘বাঁচা’ সম্ভব নয়। বিশেষ করে বাঙালিদের কাছে এটি এমন একটি পানীয় যার প্রয়োগ সকাল থেকে শুরু করে রাত পর্যন্ত কম-বেশি হয়েই থাকে।‘স্বয়ম্বরা’ গল্পে পরশুরাম চায়ের বিভিন্ন গুনাগুন উল্লেখ করেছেন। চায়ে মনের কপাট খুলে যায়, খেতে খেতে বেফাঁস কথা মুখ দিয়ে বেরিয়ে পড়ে। অশ্বত্থামা যেমন দুধের অভাবে পিটুলিগোলা খেয়ে আহ্লাদে নৃত্য করতেন, নিরীহ বাঙালি তেমন চায়েতেই মদের নেশা জমিয়ে থাকে।

এটি এমন একটি পানীয় যা শিশু থেকে বয়স্ক সকলের কাছেই অত্যন্ত পছন্দের। প্রায় প্রত্যেকটি বাড়িতেই কিন্তু কম বেশি চা প্রেম লক্ষ্য করা যায়। চায়ের আবার প্রকারভেদও কিন্তু কম নয়। সাধারণ দুধ চা থেকে শুরু করে, লিকার চা, লেবু চা, মালাই চা অথবা গ্ৰিনটি সবকিছুই কিন্তু মানুষের অতিরিক্ত পছন্দের। এবার আপনারা হয়তো ভাবছেন যে আমরা চা নিয়ে এত আলোচনা কেন করছি?

আসলে আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা আপনাদের সাথে একটি চায়ের রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি। নিঃসন্দেহে যদি আপনি একজন চা প্রেমী মানুষ হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই প্রতিবেদনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আজ আমরা আপনাদের সাথে শেয়ার করে নেব হায়দ্রাবাদি বিখ্যাত দম চায়ের রেসিপি।

হায়দ্রাবাদী বিখ্যাত দম চা বানানোর পদ্ধতি:

১) এই চা তৈরি করার জন্য প্রথমে একটি পাত্রের মধ্যে আপনাদের দুই কাপ পরিমাণ জল নিয়ে নিতে হবে। এখানে এক কাপ চায়ের জন্য জল নেওয়া হচ্ছে অর্থাৎ আপনাকে কিন্তু দুই কাপ জলকে জ্বাল দিয়ে এক কাপে পরিণত করতে হবে।। এবার এই জলের মধ্যে তিনটি এলাচ ফেটিয়ে দিয়ে দিন। এটি কিন্তু একটা দারুন ফ্লেভার নিয়ে আসবে। তারপর আপনাদের দিয়ে দিতে হবে এক টেবিল চামচ পরিমাণ চা পাতা।

এক কাপ চা তৈরি করতে চাইলে এই পরিমাণ টাই যথেষ্ট। এবার এটাকে ভালো করে গ্যাস অন করে ফুটিয়ে নিতে শুরু করুন। খেয়াল রাখবেন পাত্রের মধ্যে যাতে কোন রকমের ছিদ্র না থাকে অর্থাৎ বাইরে থেকে কোন বাতাস যেন ভেতরে প্রবেশ না করে। এভাবেই দমে রেখে আপনাদেরকে গ্যাসে এটাকে লো ফ্লেমে মিনিট দশেক সময় ফুটিয়ে নিতে হবে। ১০ মিনিট পর্যন্ত কিন্তু ঢাকনা একেবারেই তোলা যাবে না। অন্যদিকে চায়ের জন্য আপনারা মালাই তৈরি করে নিন।

২) মালাই তৈরি করার জন্য একটি গ্লাসের মধ্যে আপনারা নিয়ে নিন ১ টেবিল চামচ পরিমাণ মিল্ক পাউডার। এর মধ্যে যোগ করে দিন স্বাদমতো চিনি এবং ২ টেবিল চামচের মতো হালকা কুসুম গরম জল। অতিরিক্ত গরম জল কিন্তু একেবারেই ব্যবহার করবেন না। এতে গুঁড়ো দুধ জমাট বেঁধে যেতে পারে। সবকিছুকে ভালো করে একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। ব্যাস তাহলেই তৈরি হয়ে যাবে মালাই। এবার যে কাপে আপনারা চা পরিবেশন করবেন সেটাকে আগে থেকেই রেডি করে রেখে দিন।

৩) অন্যদিকে চা পাতাগুলো 10 মিনিট ফুটিয়ে নেওয়ার পর শেষের এক মিনিট সময় হাই ফ্লেমে রেখে জ্বাল করে নিতে হবে।এটা করলে চায়ের স্বাদ আর রং দুটোই কিন্তু দারুণ আসবে। এবার চায়ের লিকার একটি ছাঁকনির সাহায্যে ছেঁকে কাঁপে নিয়ে নিন। এবার আপনারা আগে থেকেই যে মালাই তৈরি করে রেখেছেন সেটাকে এই লিকারের মধ্যে আপনাদের যোগ করতে হবে। এভাবে মালাই তৈরি করে রাখলে কিন্তু চা আপনাদের ঠান্ডা হবে না।

সরাসরি গুঁড়ো দুধ যোগ করলে কিন্তু চা নাড়তে নাড়তেই ঠান্ডা হয়ে যায়। মালাই মিশিয়ে নেওয়ার পর ভালো করে আপনাদের একটু নাড়াচাড়া করে এই চা পরিবেশন করতে হবে।। ব্যাস তাহলেই তৈরি হয়ে গেল হায়দ্রাবাদী দম চা। খুব একটা সময় যেহেতু লাগবে না তাই অবশ্যই বাড়িতে অতিথি আসলে এবার থেকে এই পদ্ধতিতে চা তৈরি করে আপনারা পরিবেশন করতে পারেন। নিঃসন্দেহে আপনার হাতের তৈরি চা খেয়ে সকলেই প্রশংসা করবে আমরা একথা বলতে পারি।

Back to top button