একথালা গরম ভাত নিমেষেই হবে ভ্যানিশ! শুধু এই সহজ ঘরোয়া পদ্ধতিতে বানিয়ে ফেলুন দুর্দান্ত স্বাদের কচুর লতির ভর্তা

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রাচীনকাল থেকে এমন বহু কিছু রান্নার রয়েছে যেগুলো কিন্তু বর্তমান সময়ে আধুনিককরণ করা হয়েছে এবং বিভিন্ন ধরনের নাম দেওয়া হয়েছে এমন বহু রান্না রয়েছে যেগুলো হয়তো আমাদের বাড়ির মা কাকিমা বা ঠাকুমারা একটা সময় রান্না করতেন কিন্তু সময়ের সাথে সাথে সেই রান্নার পদগুলি বিলুপ্ত হয়ে গেছে আজকের প্রতিবেদনে মাধ্যমে আপনাদেরকে সেই একটি রান্নার কথা তুলে ধরতে চলেছি।

এর আগে বিভিন্ন প্রতিবেদন এর মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের রান্নার কথা আপনাদের তুলে ধরেছি । নিত্যনতুন স্বাদের রেসিপির কথা আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরেছি । তবে আজকের এই মাধ্যমে যে রান্নাটি কথা জানাবো সেটি অতি পরিচিত একটি রান্না কিন্তু সেটাকে কিভাবে আরো সুস্বাদু করে তোলা যায় সেটি উল্লেখ থাকবে এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আমরা কচুর লতির ভর্তা কিভাবে বানানো যায় সেটা জানাবো

প্রথমে কচুর লতিগুলোকে ছোট ছোট অংশে কেটে নেই তারপর এক বাটি উষ্ণ গরম জুড়ে সেটাকে ১০ থেকে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন । এবং তারপর সেটিকে তুলে ছাকনিতে জল ঝেড়ে অন্য একটি পাত্রে রাখুন ।কড়াই গরম করে তাতে সরষের তেল দিন। তেল একটু বেশি লাগে এই রান্নায়। তেল ভালো করে গরম হলে আঁচ কমিয়ে দিন।

তারপর তাতে এক এক করে পেঁয়াজ, রসুন, শুকনো লঙ্কা আর কাঁচা লঙ্কা বাটা দিন। কম আঁচে এটা কষাতে থাকুন। তেল ছাড়তে শুরু করলে হাফ চামচ হলুদ ও স্বাদ অনুযায়ী নুন দিন। হলুদের গন্ধ চলে যাওয়া অব্দি এটাকে কষান। তারপর এতে কেটে রাখা পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। মসলার সাথে পেঁয়াজ কুচি ভালো করে মিশিয়ে আরও পাঁচ মিনিট মত কষান।

ক্রমাগত নাড়তে থাকবেন। হালকা সেদ্ধ করা লতি গুলো এবার এতে দিয়ে পাঁচ মিনিট বেশি আঁচে রান্না করুন। তারপর ঢেকে দিয়ে ১৫ মিনিট রান্না করলেই তৈরি কচুর লতির ভর্তা। তবে ঢেকে দেওয়ার পর মাঝে মাঝে খুন্তি দিয়ে নাড়তে থাকবেন। রান্না হয়ে গেলে ১চামচ পাতিলেবুর রস উপর থেকে ছড়িয়ে দিন।

Back to top button