অর্ধেক খাটনি কমাতে ৭টি সহজ ও দুর্দান্ত কিচেন টিপস, যা জানলে মনে হবে আগে জানলে ভালো হতো!

নিজস্ব প্রতিবেদন: দৈনন্দিন জীবনের ব্যস্ততার মাঝে বিভিন্ন কিচেন টিপস বা নানান ধরনের ছোটখাট টোটকা কিন্তু আমাদের কাজ অত্যন্ত সহজ করে থাকে। তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কি হয় আমরা হয়তো এই সমস্ত টোটকা নিয়ে সবিশেষ খুব একটা কিছু জানিনা। আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনে আমরা তাই আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি বিশেষ কয়েকটি কিচেন টিপস যা অত্যন্ত কার্যকরী।

সুতরাং ঘরোয়া দৈনন্দিন কাজকর্মের থেকে যদি আপনি একটু হলেও রেহাই চান এবং সহজে কাজ শেষ করতে চান তাহলে কিন্তু অবশ্যই আমাদের এই প্রতিবেদনটি একেবারে শেষ পর্যন্ত পড়ুন।  চলুন তাহলে আর দেরি না করে আমাদের আজকের এই বিশেষ প্রতিবেদনটি শুরু করা যাক।

দৈনন্দিন সময় বাঁচাতে সাহায্যকারী কয়েকটি কিচেন টিপস:

১) যখন জামা কাপড় পরিষ্কার করা হয় তখন কিন্তু বিভিন্ন রঙের কাপড় একসঙ্গে দেওয়া হয়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় কালো জামাকাপড় গুলির উপরে সাদা জামাকাপড় লেগে গিয়ে এক ধরনের সাদাটে দাগ তৈরি হয়ে যায়। এটা দেখতে কিন্তু খুবই খারাপ লাগে। এই ধুলো ভাব কাটিয়ে ফেলার জন্য আপনারা একটি সেলোটেপ নিয়ে নিতে পারেন। তারপর এর আঠালো দিকটা হাতের দিকে লাগিয়ে এবং অন্য দিকটা খোলা অংশে লাগিয়ে কাপড়ের উপরে আলতো করে প্রেস করে নিতে পারেন।। দেখবেন খুব সহজেই কিন্তু এতে ধুলো ভাব চলে যাবে।

২) বাড়িতে যখন রান্নার জন্য বাজার থেকে ছোট রসুন নিয়ে আসা হয় দেখবেন এগুলো খোসা ছাড়ানো কিন্তু বেশ কঠিন কাজ হয়ে ওঠে। সে ক্ষেত্রে সহজ পদ্ধতিতে আপনারা একটি কাজ করতে পারেন যে রসুনের ওপরের খোসাটা হালকা ছাড়িয়েই একটি গ্রেটারের সাহায্যে এটাকে গ্রেট করে নিতে পারেন। লক্ষ্য করে দেখবেন রসুন কিন্তু খুব সুন্দর ভাবে গ্রেট হয়ে যাবে তবে এর কোয়ার সঙ্গে যে খোসা গুলি লেগে থাকে সেটা কিন্তু গ্রেটারের সঙ্গে যাবে না।ওটা বাইরেই লেগে থাকবে।

৩) অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায় বাড়িতে হয়তো ডিটারজেন্ট পাউডার প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। তবে অনেকগুলো জামা কাপড় ধোয়ার প্রয়োজন রয়েছে। সেক্ষেত্রে আপনারা কিন্তু একটা টিপস কাজে লাগিয়ে ফেলতে পারেন। এর জন্য জামা কাপড় ভেজানোর পাত্রে পরিমাণ মতন জল নিয়ে সামান্য ডিটারজেন্ট পাউডার দিয়ে দিন। পাশাপাশি এতে দিয়ে দিন শুকনো লেবু অথবা লেবুর খোসা।

যদি আপনাদের কাছে অতিরিক্ত ডিটারজেন্ট পাউডার না থাকে সেক্ষেত্রে এই টিপসটি ফলো করলে কিন্তু আপনারা আরও বেশি পরিমাণে কাপড় সহজেই ধুয়ে নিতে পারবেন। এতে যেমন খরচ বাজবে ঠিক তেমনভাবেই কিন্তু ঘরে প্রয়োজনীয় জিনিস না থাকলে বিকল্প পদ্ধতিতে কাজ চালিয়ে নেওয়া যাবে।

৪) বাজার থেকে যখন ডাল বা অন্য কোন জিনিস কিনে আনা হয় তখন দেখবেন যে পলিথিনে এগুলিকে দেওয়া হয় সেটার মুখ খুব টাইট করে আটকানো হয়ে থাকে। এবার যদি জোরে খুলতে গিয়ে এই পলিথিনগুলো ছেড়ে দেওয়া হয় তাহলে কিন্তু পরবর্তীতে আর এগুলো ব্যবহার করা যায় না।

এই প্যাকেট গুলিকে আপনারা কিন্তু দুটি টিপসের সাহায্যে সহজেই খুলে নিতে পারেন। প্রথমত পলিথিনে যে গিট দেওয়া হয়েছে তার একটা সাইট মুড়িয়ে আপনাদের শক্ত করে নিতে হবে তারপর আলতো চাপ দিলেই দেখবেন এটা খুলে যাচ্ছে। দ্বিতীয়তঃ কাটা চামচ সকলের বাড়িতেই রয়েছে।কাটা চামচ দিয়ে আলতো করে টানলেই কিন্তু দেখবেন ধীরে ধীরে সমস্ত গিট খুলে যাচ্ছে।

৫) প্যাকেটজাত যখন কোন উপকরণ আমরা বাড়িতে কিনে নিয়ে আসি সেগুলো কিন্তু খোলার আগে দুই সাইডে একবার টেনে নিতে হয়। যদি আপনাদের কাছে ছুরি বা কাইচি কিছু না থাকে সেক্ষেত্রে এই দুই সাইডে আলতো করে টান দিয়ে কিন্তু মাঝবরাবর আপনারা সহজেই প্যাকেট খুলে নিতে পারেন।বিশেষ করে কোন কারনে প্যাকেটজাত খাবার বাইরে নিয়ে গেলে কিন্তু এই সমস্যার মুখোমুখি আমাদের প্রায়ই পড়তে হয়।।

৬) আপেল সংরক্ষণ করার জন্য অনেক সময় কিন্তু এর গায়ে মোমের প্রলেপ দেওয়া হয়ে থাকে। এই মোম কিন্তু আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর।তাই এবার থেকে যখন বাজার থেকে আপনারা আপেল কিনে নিয়ে আসবেন তখন এটাকে একবার গরম জলে ধুয়ে নিতে ভুলবেন না। তাহলে আপেলের গায়ে লেগে থাকা মোম খুব সহজেই গলে যাবে।

৭)সেলাই বাটিতে যখন সূচ আর সুতো একসঙ্গে রাখা হয় তখন দেখবেন এগুলো একটা অপরের গায়ে খুব বাজে রকম ভাবে পেঁচিয়ে গিয়ে থাকে। এই সমস্যা মুক্ত হতে আপনারা একটি খালি রিফিলের পেন নিয়ে তার মধ্যে সূচ গুলিকে ঢাকনা আটকে ভরে রাখতে পারেন খুব সহজেই।এতে একদিকে যেমন সূচ আর সুতো লেগে যাবে না ঠিক তেমনভাবেই কিন্তু সূচ গুলো কখনো হারিয়ে যাবে না।

Back to top button