নিউজ

খুশির মহল গোটা দেশ জুড়ে! প্রায় দেড় লক্ষ একাউন্টে ৭০০ কোটি টাকা পাঠাচ্ছে মোদি সরকার! জানুন বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- আমাদের এই দেশে প্রচুর মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করেন। এমনকি বাসস্থানের জন্য তাদের মাথার উপর একটা পাকাপোক্ত বাড়ি অব্দি নেই। তাদের কথা চিন্তা করেন প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির নতুন একটি প্রকল্প জারি করেছিল গোটা ভারত বর্ষ জুড়ে এবং এই প্রকল্পের নাম ছিল প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা।

Loading...

প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার মাধ্যমে দরিদ্র সীমার নিচে বসবাসকারী মানুষগুলিকে পাকাপোক্ত বাড়ি তৈরি করে দেওয়ার একটা পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছিল। এবং যত সময় এগোতে থাকে ততই পরিকল্পনাকে বাস্তবায়িত করা হয় কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। তবে সম্প্রতি এমনটাই জানা যাচ্ছে যে পুনরায়প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার প্রথম কিস্তির টাকা প্রবেশ করানো হচ্ছে গ্রাহকদের একাউন্টে।

Loading...

এই প্রকল্পের মাধ্যমে সমতলে বসবাসকারী মানুষদের বাড়ি তৈরির জন্য ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকার ১০০ শতাংশ অনুদান দেওয়া হয়। অন্যদিকে উত্তর-পূর্ব, জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ পাহাড়ি এলাকায় ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। ইতিমধ্যে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার আওতায় আনা হয়েছে প্রায় কয়েক কোটি মানুষকে।

Loading...

এখনো অনেক মানুষকে এই প্রকল্পের সুবিধা প্রদান করতে হবে বলে অনুমান করছেন কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধিরা। তাই পুরোদমে এই প্রকল্পকে বাস্তবায়িত করতে উঠে পড়ে লেগেছে তারা। এই প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হওয়া লক্ষ লক্ষ মানুষ এরা নতুন ভাবে বাঁচার স্বপ্ন দেখতে পেরেছে।

Loading...

সম্প্রতি একটি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন যে তাই ১ লক্ষ ৪৭ হাজার গ্রাহকের অ্যাকাউন্টে ৭০০ কোটি টাকা স্থানান্তরিত করা হবে এবং এই অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল ভাবে উপস্থিত থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এদিনের এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ঘর তৈরির কিস্তির প্রথম টাকা ত্রিপুরার গ্রাহকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করবেন।

Loading...

এই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে উপস্থিত থাকবেন কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমরও। আপনি যদি এখনও পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা সুযোগ-সুবিধা গ্রহণ না করে থাকেন তাহলে অতি অবশ্যই প্রধানমন্ত্রী অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে গিয়ে এটার জন্য আবেদন করতে পারেন শর্তাবলী প্রযোজ্য।

Loading...

Loading...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button