নিউজপশ্চিমবঙ্গ

সঙ্গে রাখুন এই জিনিসগুলি, নইলে পাবেন না ‘লক্ষীর ভান্ডার’ প্রকল্পের টাকা, স্পষ্ট জানিয়ে দিল নবান্ন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- এই মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে শুরু হতে চলেছে দুয়ারে সরকার কাম্প । চলবে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত। এবং এর ক্যাম্পের বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো অন্যান্যবারের মতো নেই নতুন একটি প্রকল্প সংযুক্ত করা হয়েছে সেটি হল লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প । আমরা প্রত্যেকেই জানি যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমাজে পিছিয়ে পড়া মহিলাদেরকে সামনের সারিতে তুলে আনার জন্য বিশেষ ধরনের জনহিতকর প্রকল্পের সূচনা করেছেন যার নাম লক্ষী ভান্ডার প্রকল্প । বিধানসভা ভোটের আগে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে যে ইস্তেহার প্রকাশ করা হয়েছিল সেই ইশতেহারের অন্যতম জনপ্রিয় একটি প্রকল্প ছিল এটি ।

এই প্রকল্প কে বাস্তবায়িত করতে চলেছে রাজ্য সরকার । এই পশ্চিমবঙ্গের সকল শ্রেণীর মানুষের প্রকল্পের জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে সাধারন অর্থাৎ জেনারেল কাস্ট এবং ওবিসি দের জন্য ধার্য করা হয়েছে মাসিক ৫০০ টাকা বাকি অন্যান্য জাতির জন্য ধার্য করা হয়েছে মাসিক এক হাজার টাকা অনুদান অর্থাৎ এই রাজ্যের মহিলারা রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ৫০০ টাকা এবং হাজার টাকা অনুদান পাবেন । যার ফলে তাদেরকে আর নিজেদের হাত খরচের জন্য অন্য কারো কাছে হাত পাততে হবে না ।

এর পাশাপাশি যে সমস্ত মহিলারা সমাজে পিছিয়ে পড়েছে তারাও সামনের সারিতে উঠে আসবে। এই ধরনের প্রকল্প আগামী দিনে বড়োসড়ো প্রভাব ফেলতে পারে রাজ্যবাসীর উপর এমনটা মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। লক্ষী ভান্ডার আবেদন পত্রটি আপনি এগিয়ে বাংলা নামক পশ্চিমবঙ্গের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে পেতে পারেন । সেখান থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারেন । অথবা দুয়ারে সরকার ক্যাম্পে যখন অনুষ্ঠিত হবে তখন সেখান থেকেও নিতে পারেন ।

কিন্তু যে বিশেষ বৈশিষ্ট্য গু-লি আপনাকে মাথায় রাখতে হবে এবং সাথে যে সমস্ত নথি পত্র গুলী আপনাকে সাথে নিয়ে যেতে হবে সেগু-লি সম্পর্কে বিস্তারিত জ্ঞান থাকা দরকার আপনাদের তাই আজকের প্রতিবেদন আপনাদেরকে জানাবো যে কিকি জিনিসপত্রগু-লি অতি অবশ্যই আপনাদের কাছে রাখতে হবে । ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প’কে উদ্দেশ্য করে শুক্রবার নবান্ন থেকে সমস্ত জেলাশাসকদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সে বৈঠক করেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। এই বৈঠকে বলা হয়,

দুয়ারে সরকারে আগের মত সমস্ত প্রকল্প থাকলেও, এবারে প্রাধান্য দেওয়া হবে ‘লক্ষ্মীর ভাণ্ডার প্রকল্প’কে। এই প্রকল্পের আয়ত্তাভুক্ত হওয়ার জন্য মহিলাদের অবশ্যই স্বাস্থ্যসাথী কার্ড, আধার কার্ড এবং অন্য জাতিভুক্ত হলে সেই জাতির শংসাপত্র থাকবে হবে। তবে কোন মহিলার যদি কোন নথি না থাকে, তাহলে সেটা তাঁকে দ্রুতই তৈরি করে দিতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button