নিউজ

দুঃসংবাদ গাড়ি ও মোটরসাইকেল চাকলদের জন্যে! জারি করা হল নতুন নিয়ম! না জানলেই বি’পদ! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- শুধুমাত্র মোটরসাইকেল বাইক বাড়িতে থাকবে আর কোনো নিয়ম আমরা মানবো না তেমনটা কিন্তু হতে পারে না । সরকারের তরফ থেকে যাবতীয় নিয়ম জারি করা হয়েছে এবং এই সমস্ত নিয়ম গুলি যদি আপনি নামান তাহলে কিন্তু আপনাকে ভোগান্তির শিকার হতে হবে এমনটা পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছে বিভিন্ন রাজ্য সরকার । এবার হয়তো আপনার মনে হতে পারে যে এর আগেও তো মোটর ভেকেল আইন অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের নিয়ম জারি করা হয়েছে ।

নতুন কি নিয়ম জারি করা হল অবশ্যই আপনাদেরকে বিস্তারিত জানাবো এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে । আমরা দেখেছি অনেক সময় মোটরবাইকে আধুনিক কিছু লাইট লাগানো থাকে লাল-নীল-সবুজ এমনকি হলুদ ।এতে চালকের রাস্তাঘাট পরিষ্কার ভাবে দেখাতে খুব সুবিধা হয় ঠিক কিন্তু তারা ভাবে না অপর দিক থেকে আসা গাড়ির চালকের কথা ।এই জোরালো আলোতে চোখ ধাঁধিয়ে যায় রীতিমতো । যার ফলে দুর্ঘটনা ঘটে অনেক সময় ।

এমনকি পূর্বের এমন বহু ঘটনা রয়েছে যে সমস্ত ঘটনা সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে রয়েছে এই জোরালো আলো। অনেক সময় দেখা যাচ্ছে মোটরসাইকেলে মাঝখানে এমনভাবে লাইট লাগানো হচ্ছে যাতে দূর থেকে মনে হচ্ছে চার চাকার গাড়ি আসছে। অনেক সময়ই বোঝা যাচ্ছে না এটি চার চাকার যান না দু চাকার! । চার চাকার মত মোটরসাইকেলেও অহেতুক ফ্লাড লাইটের মত জোরালো এলইডি লাইট লাগানো হচ্ছে।

যার ফলে একাধিক দুর্ঘটনা ঘটছে পথে-ঘাটে । তবে এবার প্রশাসন নড়েচড়ে বসেছে । যদিও এর আগে এই সমস্ত লাইট এর প্রতি নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল । কিন্তু আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রমরমিয়ে বাজারে চলছে এই ধরনের লাইট এর প্রবণতা । তবে বর্তমানে পুলিশ আরো কড়াকড়ি করছে এই ধরনের গাড়ির উপর। ট্রাফিকের থামানো হচ্ছে এ ধরনের গাড়ি । অহেতুক এলইডি লাইট লাগানো থাকলে ধরা পড়লেই সাথে সাথে সেই লাইট খোলা হচ্ছে।

তবে এই গাড়িকে ছাড়া হচ্ছে । এছাড়া যারা এই সমস্ত নিষেধাজ্ঞা মানছে না তাদের জন্য কিছু আইনি দাওয়াই তো আছেই। ইতিমধ্যেই পুলিশ বিভিন্ন গ্যারেজ গুলিতে এবং মডিফিকেশন শপগুলোতে টহল দিচ্ছে। অতিরিক্ত এবং অপ্রয়োজনীয় জোরালো এলইডি আলো লাগানো হচ্ছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। গোড়া থেকেই এই সমস্যা নির্মূল করতে চায় কলকাতা ট্রাফিক পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button