‘আশা জির সাথে একই মঞ্চে গান গেয়ে কেঁদে দিয়েছিলাম সেদিন’,- বলতে বলতেও কেঁদে দিলেন অরুনিতা

‘আশা জির সাথে একই মঞ্চে গান গেয়ে কেঁদে দিয়েছিলাম সেদিন’,- বলতে বলতেও কেঁদে দিলেন অরুনিতা

নিজস্ব প্রতিবেদন :- সম্প্রতি শেষ হলো ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ এর ১২ তম সিজন। যেখানে রানার্স আপ হন বাংলার মেয়ে অরুনিতা কাঞ্জিলাল। বনগাঁও এর মেয়ে অরুনিতা বিচারকদের পাশাপাশি তার সুরের মাধ্যমে জিতে নিয়েছেন দর্শকদের মন ও। ইতিমধ্যেই অরুনিতা বনগাঁও এর বাড়িতে ফিরে সকলের ভালোবাসার বন্যায় ভেসেছেন তিনি। এদিন নিজের বনগাঁও এর বাড়ি থেকেই তার অভিজ্ঞতার কথা শোনালেন তিনি।

জানালেন তার প্রিয় গায়ক,গায়িকাদের সামনে থেকে দেখে কি মনে হয়েছিল তার। যদিও এতো বড়ো একটা মঞ্চ থেকে ফিরে এসেও এখনো একই রকম রয়েছেন তিনি। বাড়ি ফিরেই সকলের সাথে খুনসুঁটি তে মেতে ওঠেন। তার পরের দিনই ধুমধাম করে দাদার সাথে পালন করেন রাখী উৎসব। যেই ছবি ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। তার পরেই তার দীর্ঘ যাত্রার কথা শোনালেন তিনি। এদিন এক সাক্ষাৎকারে অরুনিতা জানিয়েছেন,

‘ওই মঞ্চে গান করার সুবাদে অনেক বড়ো বড়ো শিল্পীরা আমার গান শুনেছেন। এবং সব থেকে আনন্দের বিষয় তারা সকলেই আমার গান শুনে খুশী হয়েছেন। এবং ওই মঞ্চ থেকে আমার সবথেকে বড়ো পাওনা এতো বড়ো বড়ো শিল্পীদের আশীর্বাদ ও ভালোবাসা। তবে আমার বাড়ি থেকে কোনদিন ও চাপ দেওয়া হয়নি চ্যাম্পিয়ন হয়ে আসার জন্য।’ প্রসঙ্গত, বনগাঁও এর মেয়ে অরুনিতার গান শুনে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন করণ জোহার পর্যন্ত।

গানের সুরে এতটাই মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিলেন যে ওই মঞ্চেই অরুনিতাকে পরবর্তী সিনেমায় সুযোগ দেওয়ার কথা জানিয়ে দেন ধর্মা প্রোডাকশনের কর্ণধার। তবে অরুনিতা জানান তিনি সবথেকে বেশী আপ্লুত হয়েছিলেন আশা জির সান্নিধ্য পেয়ে। গোটা সাক্ষাৎকারেই তিনি বারংবার জানান এই কথা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি শুধু কাঁদছিলাম তাঁকে সামনে দেখে,আশা জি আমার কাছে বড় অনুপ্রেরণা। আমি ওই মুহূর্ত কোওদিনও ভুলতে পারব না।’ এর আগেও অবশ্য তিনি বারবার জানিয়েছিলেন সে কথা।


Leave a Reply

Your email address will not be published.