নিউজ

এটি একবার শিখুন, জীবনে যা চাইবেন তাই পাবেন!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রতিনিয়ত ও চাহিদা বেড়েই চলেছে আমাদের মধ্যে । ভবিষ্যতে কি করব আমরা কিভাবে অর্থ উপার্জন হবে কিভাবে জীবনকে আরো ম-সৃণ করে তোলা যাবে এই বিষয়ে মানুষ প্রতিনিয়ত ভাবতে শুরু করেছেন । যদি আপনাদেরকে এই মুহূর্তে জিজ্ঞেস করা হয় যে একটি কম্পিউটারে বেশি ক্ষমতা নাকি একটি মানব মস্তিষ্কের বেশি ক্ষমতার । আপনি হয়তো বলতেই পারেন যে একটি কম্পিউটারের বেশি ক্ষমতা । একটি কম্পিউটার ২০ বিলিয়ন ডাটা কুড়ি হাজার গান এবং বেশ কয়েকশো সিনেমা মজুদ করে রাখতে পারে ।

কিন্তু আপনি এটা জানলে অবাক হবেন যে আমাদের মস্তিষ্ক প্রতি সেকেন্ডে ৩৮০০০০ ট্রিলিয়ন ভাবনাচিন্তা একসাথে ভাবতে পারে । আমাদের মস্তিষ্ক কে আমরা যতটা অবহেলা করি ততটাই যদি গুরুত্ব দিয়ে ভাবতাম তাহলে আপনি হয়তো জীবনে যা কিছু চেয়েছেন সেগুলো পেয়ে যেতেন ।একটা ইউনিভার্সাল ল রয়েছে যার মাধ্যমে আপনি জীবনে যা চান সেটাই পেতে পারেন ।তাহলে হয়ত আপনার মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে অন্যান্য বাকি সকল মানুষেরা সেগুলো পায় না কেন । সমস্ত কিছু প্রশ্নের উত্তর আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে ।

চিন্তাভাবনা হচ্ছে যে কোন কাজে সফল হওয়ার চাবিকাঠি । যদি আমরা কোন দুস্বপ্ন দেখে থাকি । তাহলে আমরা ঠিক তেমনটা আচরণ করি যদি আমরা বাস্তবে সত্যি কোন বি-পদে পড়ি । এই ধরনের চিন্তাভাবনাগুলোকে বলে সাবকনসাস মাইন্ড । এই সাবকনসাস মাইন্ড আসল এবং নকল ঘটনার মধ্যে কোন পার্থক্য করতে পারে না । তাইতো দুঃস্বপ্ন দেখা তে আমরা যেভাবে প্রতিক্রিয়া বাস্তবে ঠিক তেমনি প্রতিকৃতি যদি কোনো কারণে বি-পদগ্রস্ত হয় ।

এবার যে বিষয়টি আপনাদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করব যে কিভাবে আপনি যেটা চান সেটাই পাবেন । তার একটা মাত্র উপায় হচ্ছে চিন্তা ভাবনা । যদি ধরুন আপনি একটি বাগানে আম গাছে লাগালেন ।তাহলে প্রথমে আপনাকে উর্বর মাটি নিয়ে আসতে হবে । তারপর তার মধ্যে বীজ রোপণ করতে হবে । সঠিক উপযুক্ত আবহাওয়া এবং উজ্জ্বল পেলে সেটা বড় একটা আম গাছে পরিণত হবে । ঠিক তেমন ভাবে কাজ করা আমাদের মস্তিষ্ক ।

এখানে উর্বর মাটির মনে হচ্ছে আপনার মস্তিষ্ক । বীজ মনে হচ্ছে আপনার চিন্তাভাবনা এবং আবহাওয়া বা ইত্যাদি হচ্ছে আপনি কি প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন সেটা । আপনি যদি এমনটা ভাববেন যে আমি বড় হয়ে এই ধরনের কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত হবো এবং প্রতিনিয়ত সেই ভাবনার উপর কাজ করে থাকেন তাহলে কিন্তু অবশ্যই জীবন আপনি সেটা পাবেন। কিন্তু অনেক মানুষ পাই না কারণ জীবনে তাদের যেটা দরকার নেই তার বেশি প্রকাশ ফোকাস করে ফেলে । তারা নেগেটিভ বিষয়গুলোর ওপর বেশি ভাবনা-চিন্তা করে তারা । যার ফলে তারা ব্যর্থ হয়ে যায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button